কক্সবাজার, মুন্সীগঞ্জ ও সিলেটে‌ ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৪
প্রকাশ : ২১ নভেম্বর ২০১৮, ১০:১৭
কক্সবাজার, মুন্সীগঞ্জ ও সিলেটে‌ ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৪
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

মাদকবিরোধী অভিযানে দেশের কক্সবাজার, মুন্সীগঞ্জ ও সিলেটে পুলিশ ও র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ চারজন নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে তিনজন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ও একজন ডাকাত।


বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনাগুলো মঙ্গলবার গভীর রাতে থেকে বুধবার ভোরের মধ্যে ঘটে।


বিস্তারিত বিবার্তার জেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে।


কক্সবাজার:


কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুইজন নিহত হয়েছে। এদের একজন ১৯ মামলার আসামি ডাকাত নজির আহম্মদ প্রকাশ নজির (৪০) ও মাদকবিক্রেতা আব্দুল আলীম (৩৮)।


বুধবার ভোরে উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের হারিয়াখালীর ট্যুরিস্টজোন সংলগ্ন বেড়িবাঁধ এলাকায় জিরোপয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে। নজির সাবরাং হারিয়াখালীর কচুবনিয়ার আব্দুল করিম মাঝির ছেলে ও আলীম একই এলাকার আমির হামজার ছেলে।


টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বলেছেন, গ্রেফতার হওয়া ডাকাত নজিরের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের হারিয়াখালী বেড়িবাঁধ এলাকায় অস্ত্র উদ্ধারে যায় পুলিশ। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে নজিরের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়।


এক পর্যায়ে নজির ডাকাতের সহযোগীরা পিছু হটলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নজির ডাকাত ও মাদকবিক্রেতা আলিমকে গুরুতর আহতাবস্থায় উদ্ধার করে। পরে তাদের টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।


এছাড়া ঘটনাস্থলে থেকে চারটি দেশীয় তৈরি অস্ত্র, ২১ রাউন্ড গুলি, ১০ হাজার ১৫০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এ সময় পুলিশের চার সদস্য আহত হয়েছে।


তিনি আরো বলেন, নজির উপজেলার এক কুখ্যাত ডাকাত। তার বিরুদ্ধে থানায় মানবপাচার, ডাকাতি ও অস্ত্রসহ ১৯টি ও আব্দুল আলিমের বিরুদ্ধে চারটি মামলা রয়েছে।


মুন্সীগঞ্জ:


মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি উপজেলায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আবুল হোসেন শেখ (৪৭) নামে ১৮ মামলার এক আসামি নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় র‌্যাবের ২ সদস্য আহত হয়েছেন।


বুধবার ভোর সোয়া ৪টার দিকে টঙ্গিবাড়ি উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি, একটি ম্যাগজিন, ৫০০ পিস ইয়াবা, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। আবুল উপজেলার কুন্ডের বাজার এলাকার মৃত নাজিমুদ্দিন শেখের ছেলে।


মুন্সীগঞ্জের মাদক চোরাকারবারীদের যে তালিকা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় করেছে, সেখানে আবুলের নাম শীর্ষে ছিল বলে র‌্যাব-১১ এর উপঅধিনায়ক মেজর আশিক বিল্লাল জানিয়েছেন।


তিনি বলেন, টঙ্গীবাড়ি উপজেলার দেউলবাড়ি গ্রামে মাদক কারবারীদের জড়ো হওয়ার খবর পেয়ে র‌্যাবের একটি টহল দল রাত ১টার দিকে সেখানে যায়। তারা র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে আমাদের টহল টিমকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আমরাও পাল্টা গুলি ছুড়ি। পরে একজনকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখি।


গুলিবিদ্ধ আবুলকে টঙ্গীবাড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত দুই র‌্যাব সদস্যকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।


সিলেট:


সিলেটের মোগলাবাজারে মাদকবিরোধী অভিযানের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে র‌্যাবের গুলিতে শহীদুল ইসলাম ওরফে শহীদ মিয়া (৪১) নামে এক শীর্ষ মাদক ব্যবসায় নিহত হয়েছে। সে দক্ষিণ সুরমা থানার তেলিবাজার আহম্মদপুর গ্রামের দুলাল মিয়ার ছেলে।


শহীদ এর আগে কয়েকবার ইয়াবাসহ র‌্যাবের হাতে আটক হয়েছিলেন বলে র‌্যাব-৯ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান জানান।


তিনি বলেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি বিশেষ দল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার মোগলাবাজার থানার শ্রীরামপুর বাইপাস এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে যায়। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীরা র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের দিকে গুলি ছুড়লে র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। এক পর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ীরা সেখানে ইয়াবা ব্যবসায়ী শহীদকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়।


পরে তাকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল ও বিপুল পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।


বিবার্তা/মুন্না/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com