বেলাব ইউএনও-ওসির বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের অভিযোগে আটক ১
প্রকাশ : ২৯ জুন ২০১৮, ১৯:২৫
বেলাব ইউএনও-ওসির বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের অভিযোগে আটক ১
নরসিংদী প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

নরসিংদীর বেলাব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে হাবীবা ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাবেদ মাহমুদের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য দিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ অভিযোগে একজনকে আটক করেছে পুলিশ। সে ইতিমধ্যে অপরাধ স্বীকার করেছে।


জানা যায়,‘বর্ষা আক্তার’ নামের একটি ফেইবুক মিথ্যা প্রোফাইল (আইডি) থেকে ‘এভারগ্রীন বাংলাদেশ’ নামক একটি গ্রুপে স্ট্যাটাস দেয়া হয়। স্ট্যাটাসে লেখা হয়- ইউএনও এবং ওসি বলেছেন, বেলাব উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের দুলালকান্দী গ্রামের বড় বাড়ীর একটি মসজিদে নামাজ পড়া যাবে না। আযান দেয়া যাবে না। থানায় ডেকে নিয়ে মুসল্লিদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করা হয়েছে। মসজিদ বন্ধ না করলেও আযান দেয়া হলে গ্রেফতার করে জেলেহাজতে পাঠানো হবে।


ইতিমধ্যে বার বার পুলিশ পাঠিয়ে মসজিদ বন্ধ ও আযান দিতে নিষেধ করা হয়েছে বলেও স্ট্যাটাসটিতে উল্লেখ করা হয়। স্ট্যাটাসে আরো বলা হয়, এশার আযান দেয়ায় এলাকার মুসল্লিদের শাসিয়ে গেছে ওসি জাবেদ মাহমুদ।


এ ধরনের স্ট্যাটাস সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে কিছুক্ষণের মধ্যেই তা ভাইরাল হয়ে যায়।


এ ধরণের স্ট্যাটাস কে দিয়েছে তার খোঁজ নিতে গিয়ে থলের বিড়াল বেড়িয়ে আসে। দুলালকান্দী গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে বাবুল মিয়া এর সাথে সম্পৃক্ততা বেড়িয়ে আসে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে খোঁজ খবর নিয়ে গত বুধবার দুপুরে বাবুল মিয়াকে আটক করে উপজেলা হলরুমে নিয়ে আসা হয়।


জনপ্রতিনিধি ও সুধীজনদের সামনে বাবুলকে ভিত্তিহীন ফেসবুক স্ট্যাটাসের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে অকপটে তার অপরাধ স্বীকার করে। ভবিষ্যতে কখনোই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ধরনের ভিত্তিহীন কোনো স্ট্যাটাস দিবে না বলেও এ সময় অঙ্গীকার করে সে। পরে তাকে বেলাব থানা পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে যায়।


বেলাব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে হাবিবা ঘটনার জানান, বাবুল মিয়া তার ফেসবুকে আমার ও ওসির বিরুদ্ধে লেখা পোস্টটি নিজের বলে স্বীকার করেছে।


বেলাব থানার ওসি জাবেদ মাহমুদ বলেন, আমরা বাবুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছি। তার সাথে কোনো চক্র বা আরো কেউ জড়িত কি-না তা আমরা খতিয়ে দেখছি। তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।


উল্লেখ‍্য, দুলালকান্দি গ্রামের বড় বাড়ী নামক স্থানে দুটি মসজিদ রয়েছে। একটি তাবলীগ জামাতপন্থী অন্যটি সুন্নীপন্থীদের। এ এলাকার দুটি গ্রুপের মধ্যে ধর্মীয় কিছু মতবাদ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। এ দ্বন্দ্বের কারণে গত কয়েক বছরে এই এলাকায় তাবলীগ জামাতপন্থী ও সুন্নীপন্থীদের মধ্যে কয়েকবার সংঘষের্র ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রায় অর্ধশতাধিক লোক আহত ও দুইজন নিহতের ঘটনাও ঘটেছে। এ ঘটনায় যাতে মুসুল্লিদের মধ্যে কোনো রকম সংঘর্ষের ঘটনা না ঘটে সেজন্য সকলে একসাথে মিলেমিশে মুসুল্লিদের নামাজ পড়ার অনুরোধ জানান ইউএনও উম্মে হাবিবা।


এরই মধ্যে ঈদের দুইদিন পর ওই এলাকার তাবলীগ জামাতপন্থী মসজিদে আহলে সুন্নীপন্থীদের সাথে কথাকাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের রূপ নেয়। উভয় গ্রুপই দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় দু'পক্ষের প্রায় ১০ জন মুসুল্লি আহত হয়। উভয় পক্ষ থেকেই বেলাব থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়।


বিবার্তা/শরীফ/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com