কমলনগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ৩০ মামলার আসামি!
প্রকাশ : ২৫ জুন ২০১৮, ১৯:২৬
কমলনগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ৩০ মামলার আসামি!
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা হুমায়ুন কবিরের বিরুদ্ধে পুলিশ কনস্টেবল হত্যা, সরকারি কাজে বাধা দেয়া ও নাশকতার অন্তত ৩০টি মামলা রয়েছে। তারপরও তিনি বহালতবিয়তে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।


অভিযুক্ত হুমায়ুন কবির কমলনগর উপজেলা জামায়াতের সাবেক আমির। বার বার কারাবরণের পরও আইনের মারপ্যাঁচে কারামুক্ত হয়ে তিনি ফের নাশকতার ছঁক আঁকছেন বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।


থানা সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে লক্ষ্মীপুর জেলা ও উপজেলা ব্যাপী জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছিল। তখন বন বিভাগের প্রায় ১০ হাজার গাছ কেটে সড়কে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছে বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা। এতে প্রায় সাত দিন ওই জেলার সঙ্গে সারাদেশের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ছিল।


নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রে দায়িত্ব পালনকালে পুলিশ কনস্টেবলকে পিটিয়ে হত্যা ও নাশকতাসহ বিভিন্ন মামলা হয় তার বিরুদ্ধে। ২০১৪ সালের ২৭ আগস্ট কমলনগর উপজেলা কমপ্লেক্স এলাকা থেকে হুমায়ুন কবিরকে গ্রেফতার করা হয়। প্রায় দেড় মাস জেলে থেকে ওই বছরের ২০ নভেম্বর জামিনে মুক্ত হয়ে জেলগেট থেকে আবারো গ্রেফতার হন। একই বছর ৩ ডিসেম্বর আবার জামিন নিয়ে বের হলে ফের জেলগেট থেকে ডিবি পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। বর্তমানে তিনি জামিনে মুক্ত রয়েছেন।


স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের অভিযোগ, একাদশ সংসদ নির্বাচনকে বানচাল করতে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা ফের নাশকতার ছক আঁকছে। ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মত পুনরায় তারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির লক্ষ্যে গোপনে কাজ করে যাচ্ছে।


তাদের নাশকতার পরিকল্পনা যেন সফল না হয়, উপজেলায় যেন শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষা পায় সেজন্য থানা পুলিশসহ সংশ্লিষ্টদের তৎপরতা বাড়ানোর দাবি তাদের।


এসব অভিযোগের ব্যাপারে অভিযুক্ত কমলনগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক জামায়াতের নেতা মাওলানা হুমায়ুন কবিরের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। কিন্তু সোমবার বিকাল থেকে বার বার ফোন দেয়া হলেও তার ফোন বন্ধা পাওয়া যায়।


লক্ষ্মীপুর জেলা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফোরামের আহবায়ক ও সদরের তেওয়ারীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওমর হুসাইন ভুলু বলেন, একজন চেয়ারম্যানকে মাসে গড়ে ৫০টি শালিশ করতে হয়। এটি না হলে বিচার ব্যবস্থা ভেঙে যাবে। আর তারা (চেয়ারম্যান) যদি দিনদুপুরে অপরাধ করে তাহলে তাদের দায়ভার নিজেদেরকেই নিতে হবে।


বিবার্তা/সুমন/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com