চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন
প্রকাশ : ০৬ জুন ২০১৮, ০৫:০৪
চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন
কুমিল্লা প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার বাঙ্গড্ডা ইউপির গান্ধাছি গ্রামের চৌধুরী মিয়ার ছেলে পুলিশের তালিকায় চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী সোলায়মানকে গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছেন এলাকাবাসী।


মঙ্গলবার গান্ধাছি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে বাঙ্গড্ডা মুন্সির হাট সড়কে এ বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করে। মাদক ব্যবসায়ী সোলায়মানকে গ্রেফতার করতে হন্য হয়ে খুঁজছে পুলিশ। কিন্তু তার নাগাল পাওয়া যাচ্ছে না। গ্রামবাসীও পুলিশকে তাকে দেখিয়ে দিতে সাহস করে না। বার বার অভিযানের পরও পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে ব্যর্থ হয়েছে।


ওই গ্রামের সাবেক চেয়ারম্যান আলী আক্কাস মজুমদার, সাবেক মেম্বার আবদুস সোবহান, সাবেক মেম্বার আবদুর রাজ্জাক, বর্তমান মেম্বার ইসহাক মিয়া, বাঙ্গড্ডা ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক সাইফুল ইসলামসহ স্থানীয় কয়েক শ’ লোক বিক্ষোভ ও মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করে।


এলাকাবাসী জানান, মাদক ব্যবসায়ী সোলায়মান একই গ্রামের সুফল মিয়ার ছেলে অলি উল্লাহ, ইয়াছিনের ছেলে হাছানুজ্জামান, দুলাল, রুবেল মিলে এলাকায় ইয়াবা, ফেনসিডিল ও গাঁজাসহ সব ধরনের মাদক ব্যবসা করে আসছে। তারা এসব অপকর্ম করে যুব সমাজকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তারা পুলিশের খাতায় চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী হলেও তাদের পুলিশ গ্রেফতার করে না। আমাদের জানা মতে তাদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে একাধিক মামলা রয়েছে।


এলাকাবাসী আরো জানায়, বিগত ১ বছর পূর্বে তাকে আমরা গ্রামবাসী একত্রিত হয়ে গ্রাম থেকে বিতাড়িত করেছিলাম। পরে সে এ সমস্ত কাজ আর করবে না বলে আবার গ্রামে ফিরে। কিন্তু আবারো সে মাদক ব্যবসা শুরু করেছে। বর্তমানে সোলায়মান র‌্যাব ও ডিবির সোর্স পরিচয় দিয়ে মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। আমরা এর প্রতিবাদ করলে সে র‌্যাব ও ডিবি পুলিশ দিয়ে তুলে মামলা ও মারধর করার হুমকি দেয়। মাদক ব্যবসার আড়ালে সে চুরি ও ছিনতাইয়ের সাথে জড়িত।


এলাকাবাসী এও জানায়, সোলায়মান র‌্যাব, ডিবি পুলিশের সোর্স পরিচয় দিয়ে গ্রেফতারের ভয় দেখিয়ে অনেকের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা আদায় করে। আরো কয়েকজনকে আটকে রেখে মারধর করে। এরকম অবৈধভাবে একজনকে আটকের ঘটনায় নাঙ্গলকোট থানায় একটি মামলাও হয়েছে তার বিরুদ্ধে। তবুও কোনো ধরনের প্রতিকার না মেলায় আমরা জড়ো হয়ে তার বিরুদ্ধে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করছি।


এদিকে পুলিশ জানায়, কয়েকটি মামলার আসামি পুলিশের তালিকায় শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী সোলায়মানকে খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ। অথচ তার মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় সোমবার ভোর রাতে একই গ্রামের মৃত কালা মিয়ার ছেলে ওমর আলীর বাড়িঘর ভাংচুর করে সোলায়মান ও তার সাঙ্গ পাঙ্গরা। এ ঘটনায় সোমবার সন্ধ্যায় নাঙ্গলকোট থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।


এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে সন্ত্রাসী পান্ডা ও মাদক কারবারী সোলায়মান মুঠোফোনে বলেন, আমি ডিবি ও র‌্যাবের সোর্স পরিচয় দিলে আপনার সমস্যা কী? আপনার যা মন চায় তা লিখেন। আমার ফোন নাম্বার পাইলেন কই বলে ফোনের লাইন কেটে দেন। এরপর আর ফোন ধরেননি।


এ ব্যাপারে নাঙ্গলকোট থানার ওসি মোহাম্মদ আইয়ুব জানান, অভিযুক্ত সেলায়মানের বিরুদ্ধে চৌদ্দগ্রাম থানায় মাদক আইনে দুইটি মামলা রয়েছে। অবৈধ আটক ও নির্যাতনের অভিযোগে একটি মামলা রয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় আরো একটি অভিযোগ করা হয়েছে। আমরা তাকে গ্রেফতার করতে বার বার অভিযান চালিয়েও পাইনি। তাকে গ্রেফতারে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তিনি আরো বলেন, মূলত সে চৌদ্দগ্রাম ও লাকসাম কেন্দ্রিক মাদক ব্যবসা করায় আমরা তাকে খুঁজে পাইনা।


জানতে চাইলে ডিবির ওসি নাসির উদ্দিন মৃধা জানান, অভিযুক্ত সোলায়মানের সাথে ডিবির কোনো সম্পর্ক নাই। যদি কেউ ডিবির সোর্স পরিচয় দেয় তাকে আটক করে পুলিশে দিতে বলবেন।


র‌্যাব-১১ কুমিল্লার অধিনায়ক আতাউর রহমান জানান, এই নামে নয় নাঙ্গলকোট উপজেলাতেই আমাদের কোনো সোর্স নেই। আপনি যেহেতু বলেছেন খোঁজ নিয়ে এমন কেউ করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


বিবার্তা/বাবর/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanews24@gmail.com ​, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com