‘বন্ধুকযুদ্ধে’ তিন জেলায় আরো ৬ মাদক ব্যবসায়ী নিহত
প্রকাশ : ২৪ মে ২০১৮, ০৯:১৬
‘বন্ধুকযুদ্ধে’ তিন জেলায় আরো ৬ মাদক ব্যবসায়ী নিহত
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

সারাদেশে চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে কথিত বন্দুকযুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে চার জেলায় আরো অন্তত ছয়জন নিহত হয়েছে। এছাড়া আরো তিনজনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ এবং পালাতে গিয়ে এক নারী মাদক ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়েছে।


পুলিশ বলেছে, বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার সকালের মধ্যে চার জেলায় এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে পুলিশের গুলিতে ফেনীতে দুইজন, কুষ্টিয়ায় দুইজন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও নারায়ণগঞ্জে একজন করে মোট ছয়জন নিহত হয়েছে। মাগুরা ও সাতক্ষীরা থেকে তিনজনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।


নিহতরা সবাই মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ছিল। তাদের মধ্যে প্রায় সবার বিরুদ্ধেই থানায় মাদক আইনে একাধিক মামলাও রয়েছে।


এ নিয়ে বিভিন্ন জেলায় ১০ দিনে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হলো ৫১ জন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দাবি, তাদের মধ্যে ৪৫ জনই মাদক ব্যবসায়ী।


ফেনী:


ফেনীর ফুলগাজীতে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে । এ ঘটনায় পুলিশে তিন এসআইসহ আট পুলিশ আহত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি, তিনটি কার্তুজ, ৭০০ পিস ইয়াবা, ১৫০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়।


পুলিশ জানায়, কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ী মাদক বেচাকেনার উদ্দেশে উপজেলার ভারতীয় সীমান্তবর্তী এলাকা দক্ষিণ জাম্মড়া গ্রাম এলাকায় জড়ো হয়েছে, এমন খবর আসে। এরপর পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি গুলিবিনিময় হয়। এতে ফুলগাজী সদর ইউনিয়নের মন্তলা গ্রামের মনির হোসেন (৩২) ও আনন্দপুর ইউনিয়নের মাইজগ্রামের বাসিন্দা শাহমিরান ওরফে শামীম (৩০) নিহত হয়।


ফুলগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হুমায়ুন কবীর বলেন, দুজনই মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। তাদের বিরুদ্ধে ১০টি করে মাদকের মামলা রয়েছে।


কুমিল্লা:


কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে বন্ধুকযুদ্ধে বাবুল মিয়া ওরফে লম্বা বাবুল (৩৮) ও সদর দক্ষিণে রাজিব (২৬) নামের দুই ‘মাদক ব্যবসায়ী’ নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। বুধবার দিবাগত রাত ১টার দিকে চৌদ্দগ্রামের উপজেলার আমানগন্ডা এলাকায় ও রাত সোয়া ২টা দিকে দক্ষিণ সদরের গোয়ালমথন এলাকায় এ ঘটনা দুটি ঘটে।


চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু ফয়সল বলেন, মাদকের চালান যাচ্ছে- এমন গোপন সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে মাদক ব্যবসায়ী পুলিশের ওপর হামলা করে। পুলিশ আত্মরক্ষার্থে গুলি করলে ঘটনাস্থলে বাবুল গুলিবিদ্ধ হয়।


ওসি বলেন, পরে রাত আড়াইটার দিকে বাবুলকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। অভিযানে এসআই মোজাহের, কনস্টেবল মিজান ও ফরিদ আহত হয়েছেন। বাবুলের বিরুদ্ধে পাঁচটি মাদক মামলাসহ ছয়টি মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ২শ’ বোতল ফেন্সিডিল ও একটি এলজি উদ্ধার করা হয়েছে।


সদর দক্ষিণ মডেল থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, রাত সোয়া ২টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম পুরাতন ট্যাংক রোডের গোয়ালমথন এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এসময় মাদক ব্যবসায়ীরা একটি প্রাইভেট-কারে মাদকদ্রব্য নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ী রাজিব ও তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। তখন আত্মরক্ষার জন্য পুলিশও ১৭ রাউন্ড গুলি চালায়। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হয় রাজিব। রাজিবকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


ওসি আরো জানান, রাজিবের বিরুদ্ধে ১৩টি মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে কার্তুজসহ একটি এলজি, ৫০ বোতল ফেনসিডিল এবং ৪০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়েছে। এ অভিযানে তিনি নিজেসহ এস আই শামসুদ্দিন ও এসআই অঞ্জন কুমার সাহা আহত হয়েছেন।


ব্রাহ্মণবাড়িয়া:


ব্রাহ্মণবাড়িয়া আখাউড়া উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে আমির খাঁ নামের এক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। বুধবার দিবাগত রাত ২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।


আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোশারফ হোসেন তরফদার বলেন, আখাউড়া ধরখার ইউনিয়নের বনগজ স্টিল ব্রিজের কাছে কুড়ের পাড় নামক স্থানে মাদক বিরোধী অভিযানে যায় পুলিশ। এসময় শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী আমির এবং তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এসময় উভয় পক্ষের বন্দুকযুদ্ধে আমির নিহত হয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি দেশীয় তৈরি পাইপগান ও এক রাউন্ড কার্তুজ, একটি রামদা, বড় দু’টি ছোরা, ১০ কেজি গাঁজা, ৮ বোতল স্কফ সিরাপ উদ্ধার করে।


অভিযানে আহত একজন এএসআই ও দুইজন কনস্টেবলকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। আমিরের বিরুদ্ধে আখাউড়া থানায় নয়টি মাদক মামলা, বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দুটি ও একটা হত‍্যা মামলাসহ মোট ১২টি মামলা রয়েছে।


নারায়ণগঞ্জ:


নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে মাদকবিরোধী অভিযানের সময় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ফেন্সি সেলিম (৩২) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বুধবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে দক্ষিণ নিমাইকাশারী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।


পুলিশ বলেছে,ফেন্সি সেলিম মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একটি শুটার গান, একটি গিয়ার চাকু, ৫০০ ইয়াবা, ৫ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধারের কথা জানিয়েছে পুলিশ।


সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নজরুল ইসলাম বলেন, বন্দুকযুদ্ধে’ তিনিসহ সহপরিদর্শক (অপারেশন) আজিজুল হক, উপপরিদর্শক ইব্রাহীম, কনস্টেবল সাইদুল ও জাহাঙ্গীর আহত হয়েছেন। তারা খানপুর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।


মাগুরা:


মাগুরায় সদর উপজেলার পারনান্দুয়ালী হাউসিং প্রজেক্ট থেকে বুধবার গভীর রাতে আযুব হোসেন ও মিজানুর রহমান কালু নামে দুই মাদক ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।


পুলিশ জানায়, গভীর রাতে হাউসিং প্রজেক্টে দু’দল মাদক ব্যবসায়ী মাদকের টাকা ভাগাভাগি নিয়ে গোলাগুলি করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশের টহল দল সেখানে যায়। গিয়ে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দু’জনকে দেখতে পেয়ে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে আসে। তবে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। পরে এলাকাবাসী তাদেরকে শনাক্ত করেন। নিহতদের বিরুদ্ধে থানায় ২০টির বেশি মাদকের মামলা রয়েছে।


সাতক্ষীরা:


সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ উপজেলার ভাড়াশিমুলিয়া ইউনিয়নের চৌবাড়িয়া থেকে পুলিশ এক ব্যক্তির গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে। তার পরিচয় জানা যায়নি। লাশের পাশে একটি থলেতে ৪৮ বোতল ফেনসিডিল ছিল। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। নিহত ব্যক্তির বয়স আনুমানিক ৪০ বছর।


কালিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান জানিয়েছেন, স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে লাশ পড়ে থাকার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ যায়। লাশের গলায় ও মাথায় দুটি গুলির চিহ্ন রয়েছে। লাশের পাশে একটি রিভলবার ও রাইফেলের একটি গুলি ছাড়াও বন্দুকের চারটি গুলির খোসা পড়ে ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, বুধবার মধ্যরাতের দিকে এই ব্যক্তিকে হত্যা করা হয়।


রাজশাহী:


রাজশাহীতে পুলিশ ভ্যান থেকে পালাতে গিয়ে আজিজা (৪০) নামে এক নারী মাদক ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়েছে। তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার রাত সোয়া ৯টার দিকে রাজশাহী নগরের কাশিয়াডাঙ্গা থানা এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।


কাশিয়াডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রবিউল ইসলাম বলেন, আজিজার বাড়িতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৬০টি ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করে। এ সময় আজিজা হাসুয়া দিয়ে পুলিশ কোপাতে উদ্যত হয়। তাকে আটক করে থানায় নেওয়ার সময় তিনি পুলিশকে ধাক্কা দিয়ে পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ শটগান থেকে গুলি ছোড়ে। আহত অবস্থায় তাকে আটক করা হয়। পরে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাসহ আট-দশটি মামলা রয়েছে।


র‍্যাব ও পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানের সময় মঙ্গলবার দিবাগত রাতে বন্দুকযুদ্ধে আট জেলায় নয়জন নিহত হয়েছে। এর আগের দিন সোমবার দিবাগত রাতে নয় জেলায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয় ১১ জন।


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com