শূন্যরেখা থেকে রোহিঙ্গাদের সরাতে বিজিপি'র মাইকিং
প্রকাশ : ১৯ মে ২০১৮, ২২:৫৪
শূন্যরেখা থেকে রোহিঙ্গাদের সরাতে বিজিপি'র মাইকিং
উখিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

মিয়ানমারের তুমব্রুতে ১৪৪ ধারা জারি করে সীমান্তের কোনারপাড়া শূন্যরেখা থেকে রোহিঙ্গাদের সরে যেতে আবারো মাইকিং করেছে দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী- বিজিপি। এমনকি ওই সীমান্ত এলাকায় টহলও জোরদার করেছে মিয়ানমার।


শনিবার সকাল সাড়ে ৮টা থেকে সীমান্তের কাটাতার ঘেঁষে দফায় দফায় মাইকিং করেছে বিজিপি। মাইকিংয়ে নো ম্যান্স ল্যান্ড থেকে রোহিঙ্গাদের সরে গিয়ে বাংলাদেশের অন্যকোনো স্থানে আশ্রয় নিতে বলা হয়।


এরপর থেকেই রোহিঙ্গা ও স্থানীয়দের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে আতঙ্ক। ২৫ আগষ্টের পর তুমব্রু শূন্যরেখায় প্রায় ৮ হাজারের অধিক রোহিঙ্গা আশ্রয় নেয়। সেখান থেকে বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আশ্রয় নেয়ার ফলে বর্তমানে ৫ হাজার রোহিঙ্গা তুমব্রু সীমান্তের নো ম্যান্স ল্যান্ডে অবস্থান করছেন।


যেখানে কোনো মানুষ অবস্থানের ওপর আর্ন্তজাতিক নিষেধাজ্ঞা বলবৎ রয়েছে। তারপরও শূন্যরেখায় অবস্থানকারী রোহিঙ্গারা না পারছে ফিরে যেতে, না পারছে সামনে এগোতে।


প্রায় সাড়ে ৮ মাস ধরে এসব রোহিঙ্গাদের মিয়ানমার সেনা, বিজিপি ও সেদেশের উগ্রপন্থী রাখাইন জনগোষ্টী বিভিন্নভাবে নির্যাতন, ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছে বলে জানিয়েছেন সেখানে বসবাসরত রোহিঙ্গা নেতা দিল মোহাম্মদ। তিনি বলেন, বেশ কিছুদিন নীরব থাকার পর মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ আবারো তাদের তাড়ানোর জন্য তৎপর হয়ে মাইকিং করার ফলে জনমনে উদ্বেগ উৎকণ্ঠার সৃষ্টি হয়েছে।


এর আগে চলতি বছরের মার্চে মিয়ানমার সেনাবাহিনী তুমব্রু সীমান্তের নো ম্যান্স ল্যান্ডের রোহিঙ্গাদের সরাতে একইভাবে মাইকিং করেছিল। সে সময় রোহিঙ্গাদের ওপর হামলার ঘটনাও ঘটেছিল। পরে উভয় দেশের কর্মকর্তাদের বৈঠকের পর পরিস্থিতি শান্ত হয়।


কক্সবাজার ৩৪ বিজিবি’র উপ-অধিনায়ক মেজর ইকবাল আহমদ বলেছেন, মাইকিং করে মিয়ানমার বিজিপি সদস্যরা বলছে রোহিঙ্গারা যে স্থানে অবস্থান করছে ওই স্থানটি মিয়ানমারের। তাই উক্ত এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে শূন্যরেখায় অবস্থিত রোহিঙ্গাদের অন্যত্র সরে যাওয়ার জন্য বলছে মিয়ানমার। যার ফলে পবিত্র রমযান মাসে রোহিঙ্গাদেরকে আবারো আতঙ্কের মধ্যে দিন যাপন করতে হচ্ছে।



সীমান্তে যেকোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিজিবি সতর্কাবস্থায় রয়েছে বলে জানিয়েছেন মেজর ইকবাল আহমদ।


স্থানীয় ঘুমধুম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান একে জাহাঙ্গীর আজিজ জানান, সীমান্ত এলাকায় দু’দেশের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে পতাকা বৈঠকের পর থেকে সীমান্তের শূন্যরেখায় আশ্রিত রোহিঙ্গারা ভালো ছিল। রমযানের শুরুতেই সেদেশের তুমব্রু এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে রোহিঙ্গাদের শূন্যরেখা থেকে সরে যেতে মাইকিং করাকে কেন্দ্র করে আশ্রিত রোহিঙ্গা ও স্থানীয় গ্রামবাসীর মধ্যে ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।


বিবার্তা/মানিক/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com