দিনাজপুরে যমুনায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলন
প্রকাশ : ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ০২:২৫
দিনাজপুরে যমুনায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলন
দিনাজপুর প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ছোট যমুনা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। কোথাও ড্রেজার মেশিন দিয়ে চলছে বালু উত্তোলন। এসব বালু নদীর পাশে স্তুপ করে নিয়মিত বিক্রি করে যাচ্ছেন কয়েক জন অসাধু ব্যবসায়ী।


বালু উত্তোলনকে কেন্দ্র করে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গড়ে তোলা হয়েছে বালু মজুদ ও বিক্রির ঘাট। আর ওই সব ঘাটের বালু বহনকারী ট্রাক্টরগুলো বেপরোয়াভাবে যাতায়াত করায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধসহ গ্রামীণ অবকাঠোমোরও চরম ক্ষতি হচ্ছে। ফলে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধসহ বিভিন্ন অবকাঠোমো ভেঙে যাচ্ছে বলে জানান স্থানীয়রা। সেখানকার জানিপুর বাঁধ সংলগ্ন যমুনা নদীর তীর ঘেঁষে বিশাল গর্ত করে বালু উত্তোলন করায় হুমকির মুখে পড়েছে বাঁধটি।


উপজেলা ভূমি অফিস সূত্রে জানা গেছে, শিবনগর ইউনিয়নের ছোট যমুনা নদীর তীরবর্তী বেলতলী ও গোপালপুর নামক দুটি স্থান বালু মহালের জন্য নির্দিষ্ট করে আতিয়ার রহমান মিন্টুকে সরকারিভাবে ঘাট ইজারা প্রদান করা হয়েছে। শর্তানুযায়ী ইজারাকৃত নির্দিষ্ট ঘাট ব্যতীত অন্য স্থানে বালু উত্তোলন সম্পূর্ণ অবৈধ।


অভিযোগ উঠেছে, সরকারি নিয়ম তোয়াক্কা না করে ইজারাদার আতিয়ার নির্দিষ্ট স্থান থেকে বালু উত্তোলনের পাশাপাশি দৌলতপুর, খয়েরবাড়ী ইউনিয়নসহ ছোট যমুনা নদীর বিভিন্ন স্থানে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছেন। এমনকি খোদ ইজারাদার কর্তৃক সরকারি ডাককৃত ঘাট থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়েও বালু তোলার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।


খয়েরবাড়ী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের সভাপতি এনামুল হক ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে তা বিক্রি করছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া, বারাই পাড়া গ্রামের মতি ও তোজাম্মেল হাজী নামে দুইজনও বারাইপাড়া ঘাট থেকে অব্যইধ ভাবে বালু তুলছেন।


এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে বারাই পাড়া গ্রামের মতি বলেন, শুধু আমরাই নয়; আরো অনেকেই এভাবে বালু তোলে।


ঘাট মালিক আতিয়ার রহমান মিন্টু জানান, কন্ট্রাকের মাধ্যমে বালু তুলছি। তিনি আমাদেরকে বালুতোলার বিষয়ে কমপ্রমাইস করেছেন।


অপরদিকে বালু ইজারাদার আতিয়ার রহমান মিন্টুর সাথে কথা বললে তিনি জানান, নদীতে পানি থাকায় বালু তোলা সম্ভব হচ্ছে না সে কারণেই মেশিন দিয়ে বালু তোলা হচ্ছে। তবে সারা দেশেই মেশিন দিয়ে বালু তোলা হচ্ছে, তাহলে আমরা কেন পারবো না? নির্দিষ্ট ঘাট ছাড়া অন্য কোথাও যারা বালু তুলছে তারা মিথ্যা কথা বলেছে। তাদের সাথে কোনো যোগাযোগ নেই বলে দাবি তার।


এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম চৌধুরীর জানান, ইজারাকৃত নির্দিষ্ট ঘাট ব্যাতীত অন্য জায়গা থেকে বালু উত্তোলন সম্পূর্ণ অবৈধ। এ নিয়ে তারা কার‌্যকরী ব্যবস্থা নেয়ার চেষ্টা করছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, সেখানে পুলিশ পাঠানো হচ্ছে।


বিবার্তা/শাহী/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com