হাড় কাঁপানো শীতে বিপর্যস্ত রোহিঙ্গারা
প্রকাশ : ১০ জানুয়ারি ২০১৮, ২১:১৬
হাড় কাঁপানো শীতে বিপর্যস্ত রোহিঙ্গারা
উখিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

হাড় কাঁপানো শীতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জীবন যাপন। শীতের তীব্রতার সঙ্গে পাল্লাদিয়ে বাড়ছে শীতজনিত বিভিন্ন রোগ। আক্রান্তদের মধ্যে শিশু ও বয়োবৃদ্ধের সংখ্যাই বেশি।


বুধবার সকালে উখিয়ার কুতুপালং শরনার্থী ক্যাম্প ঘুরে দেখা যায়, শিশু, কিশোররা খালি গায়ে খেলাধুলা করছে। এদের মধ্যে অনেকেই পানিতে নেমে পানি ছিটাছিটি করছে। কুতুপালং এ ব্লকের কয়েকটি কক্ষ ঘুরে দেখা যায়, শিশু বুকে নিয়ে মা বসে আছেন। জানতে চাওয়া হলে রোজিনা বেগম নামের এক রোহিঙ্গা বিধবা জানান, রাতের বেলায় পড়া কোয়াশা পলিথিনের ভেতর দিয়ে টিপ টিপ করে পড়ার কারণে কাপড় ভিজে যায়। সকালে রোদ না ওঠা পর্যন্ত বাইরে বের হওয়া যায় না। প্রচন্ড ঠান্ডায় ছেলেটির গায়ে জ্বর উঠেছে। এভাবে অধিকাংশ ক্যাম্পের ঝুপড়িতে দেখা গেছে বয়োবৃদ্ধ ও শিশুরা বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত।


ব্র্যাকের চিকিৎসা সেবা কেন্দ্রে কর্মরত স্বাস্থ্যকর্মী ছেনুয়ারা জানান, ঠান্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত হয়েছে অধিকাংশ রোহিঙ্গা শিশু ও বয়োবৃদ্ধরা। এখানে চিকিৎসা সেবার দিতে না পারায় আক্রান্তদের বেশির ভাগকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।


হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, বারান্দার মেঝেতে কম্বল বিছিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে শতাধিক শিশু রোগী।


এদিকে স্থানীয় রোগীদের অভিযোগ, হাসপাতালে কর্মরত ডাক্তাররা রোহিঙ্গাদের অগ্রাধিকার ভিত্তিক চিকিৎসা দেয়ার কারণে স্থানীয়রা চিকিৎসা পাচ্ছে না।


হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাক্তার রবিউর রহমান রবি জানান, ঠান্ডাজনিত রোগীর চিকিৎসা দিতে গিয়ে চিকিৎসকদের বিরামহীন দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে। তারপরও রোগীদের যথাযথ চিকিৎসা সেবা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না।


উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ জানান, রোহিঙ্গা ও স্থানীয় রোগীর সংখ্যা অত্যধিক হারে বেড়ে গেছে। যে কারণে ২৪ ঘন্টা হাসপাতালে চিকিৎসকদের দায়িত্বপালন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।


চিকিৎসকরা বলেন, শীতকালে স্বাভাবিক তাপমাত্রায় বিভিন্ন ধরনের রোগব্যধি দেখা দেয়। তারমধ্যে সর্দি, কাশি, নিউমোনিয়া, ডায়রিয়া, হাপানি, টনসিল্যাটাইসিস, ব্রংকিওলাইটিস, বাত, আর্থ্রোইটিস, ও চামড়ার শুষ্কতা অন্যতম। এসব রোগ থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে সবসময় গরম কাপড় পরিধান অথবা বাসা-বাড়িতে অবস্থান করতে হবে।


বিবার্তা/শফিক/নুর/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com