ফুলবাড়ীতে পিডিসি পরীক্ষা দিচ্ছে ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা
প্রকাশ : ২৪ নভেম্বর ২০১৭, ২১:৫৩
ফুলবাড়ীতে পিডিসি পরীক্ষা দিচ্ছে ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে সুজনের কুটি রুহুল আমিন দাখিল মাদ্রাসার এবতেদায়ী শাখার সুপারের বিরুদ্ধে (পিডিসি) পরীক্ষায় ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের দিয়ে পরীক্ষা সম্পন্ন করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনাটি ঘটেছে ফুলবাড়ী উপজেলার রাবাইতারী এস. বি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় পিএসসি ও পিডিসি পরীক্ষা কেন্দ্রের ১৩ নং কক্ষে।


পরীক্ষা কেন্দ্রের ১৩ নং কক্ষে পিডিসি পরীক্ষা দেয় সুজনের কুটি রুহুল আমিন দাখিল মাদ্রাসার এবতেদায়ী শাখার হয়ে ওই মাদ্রসার ৬ষ্ঠ শ্রেণির ৭জন শিক্ষার্থী। মোট ৯ জন পিডিসি পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৬ষ্ঠ শ্রেণিরই ৭ জন। এরা হলো- সারমিন, আদুরী, মমতাজ, রায়হান, জাহিদ, মুসা, আরিফা।


শিক্ষার্থীরা এভাবেই ২৩ নভেম্বর পর্যন্ত ৫টি বিষয়ের পরীক্ষা ইতোমধ্যে সম্পন্ন করেছে। ২৬ নভেম্বর রবিবার শেষ হবে তাদের পিডিসি পরীক্ষা। অনৈতিক ও নিয়ম বর্হিভূতভাবে এসব পরীক্ষার্থী দিয়ে পরীক্ষা চললেও সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বিভাগ তা আমলে না নেয়ায় জনমনে প্রশ্ন উঠেছে।


মাদ্রাসার বেতন ভাতা রক্ষা ও পাশের হার দেখানোর জন্যই এই অনৈতিক কাজ করা হচ্ছে বলে মনে করছেন এলাকার সচেতন মানুষজন। অভিযুক্ত সুপারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ ও রবিবারের পিডিসি পরীক্ষায় ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ বন্ধ করতে সংশ্লিষ্ট বিভাগের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন এলাকাবসী।


এ বিষয়ে সুজনের কুটি রুহুল আমিন দাখিল মাদ্রাসার এবতেদায়ী শাখার সুপার বক্তার আলী এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ১০ জনের মধ্যে থেকে ১ জন অনুপস্থিত থেকে ৯ জন পরীক্ষার্থী পিডিসি পরীক্ষা দিচ্ছে। মাদ্রাসা টিকিয়ে রাখার জন্য তারা ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীকে দিয়ে পরীক্ষা নিচ্ছেন। এরপর তিনি আর কথা না বলে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ করে দেন।


এ বিষয়ে জানতে সুজনের কুটি রুহুল আমিন দাখিল মাদ্রাসার সুপার মিজানুর রহমানের মোবাইলে ফোন দেয়া হলে তার নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।


রাবাইতারী এস.বি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফুলবাড়ী উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার রাশেদুজ্জামান জানান, শিক্ষার্থীদের রোল নম্বর ও প্রবেশ পত্র দেখে তাদের পিডিসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের অনুমতি দেয়া হয়েছে। একই কথা জানিয়েছেন পরীক্ষা কেন্দ্রের সচিব ও রাবাইতারী এস.বি বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজাউর রহমান শেখ। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে এমন কথা জানান তারা।


এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অঃ দাঃ) এস.এইচ.এম মাগ্ফুরুল হাসান আব্বাসী জানান, ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের দিয়ে পরীক্ষা সম্পন্ন করার এ বিষয়টি তিনি অবগত হলেন। এ ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে মাদ্রাসা সুপারসহ পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


বিবার্তা/সৌরভ/সোহাগ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com