বৃষ্টির অজুহাতে মৌলভীবাজারে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি
প্রকাশ : ১৯ জুন ২০১৭, ২২:৫২
বৃষ্টির অজুহাতে মৌলভীবাজারে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি
তানভীর আঞ্জুম আরিফ
প্রিন্ট অ-অ+

কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে মৌলভীবাজারের নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রীর মূল্য ঊর্ধ্বমুখী হয়ে পড়েছে। রমজান উপলক্ষে ত্রমনিতেই সবাই নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের চাহিদা একটু বেশি থাকে। ফলে বাজারে বিক্রির চাপও থাকে বেশি। নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী সঠিক সময় ও চাহিদা অনুযায়ী বাজারে না আসা এবং টানা বৃষ্টির ফলে মালামাল বেশি দামে ক্রয় করার অযুহাতে বাজার দর বেড়েছে বলে জানিয়েছে ব্যবসায়ীরা। বৃষ্টির কারণে গত সপ্তাহের তুলনায় এ সপ্তাহে বিশেষ করে সব ধরনের মাংস, সবজি, কাঁচা মরিচ, বেগুনের দাম ত্রকটু বেশিই বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়াও সব ধরনের শাকের দাম দ্বিগুণ হারে বৃদ্ধি পেয়েছে।


মৌলভীবাজারের একমাত্র কাঁচাবাজার পশ্চিমবাজার ঘুরে দেখা গেছে- প্রতি কেজি আদা ৬০ থেকে ৮০ টাকা, পিয়াজ ২৫ থেকে ৪০ টাকা, রসুন ১২৫ থেকে ১৩০ টাকা, টমেটো বিক্রি ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, কাঁচা মরিচ ৫৫ থেকে ৬০ টাকা, ছোলা ৯০ থেকে ১০০ টাকা, সোয়াবিন তেল ৫ লিটার ৪৩৬ টাকা, এক লিটার ৯০ টাকা ও দুই লিটার ১৭৬ টাকা ধরে বিক্রি করা হচ্ছে।


এ ছাড়া পেঁপে ৪০ টাকা, বরবটি ৪০ টাকা, বেগুন ৭০ টাকা, করলা ৩০ টাকা, লতা ৩০ টাকা, জিঙা ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, গাজর ৭০ থেকে ৮০ টাকা, লাউ ৩০ থেকে ৫০ টাকা, লাল শাক প্রতি আঁটি ২৫ থেকে ৩০ টাকা, পুঁইশাক প্রতি আঁটি ৩০ টাকা, আলু ৩০ টাকা, লেবু প্রতি হালি ৩০ থেকে ৩৫ টাকা বিক্রি হচ্ছে।


কিন্তু এক সপ্তাহ আগে টমেটো বিক্রি হয়েছিলো কেজি ৩০ টাকা, কাঁচা মরিচ ৫০ টাকা, পেঁপে ১৫ টাকা, বরবটি ২৫ টাকা, বেগুন ২০ টাকা, করলা ২০ টাকা, লতা ১৫ টাকা, জিঙা ২০ থেকে ২৫ টাকা, গাজর ৪০ থেকে ৫০ টাকা, লাউ ২০ থেকে ৪০ টাকা, আদা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, পিয়াজ ২২ থেকে ২৫ টাকা, রসুন ৮০ থেকে ১০০ টাকা, লাল শাক প্রতি আঁটি ১০ থেকে ১৫ টাকা, পুঁইশাক ১০ টাকা।


এদিকে, বাজারে গরু, খাসি ও মুরগির মাংসের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৪০০ টাকা। এছাড়া হাড় ছাড়া প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৫০০ থেকে ৫২০ টাকা ধরে। কিন্তু গত কয়েক দিন আগেই মৌলভীবাজারের গরুর মাংসের কেজি ৩৫০ টাকা থেকে ৩৭০ টাকায় পাওয়া যেতো। তাছাড়া হাড় ছাড়া মাংসের দাম ছিলো ৪০০ টাকা থেকে ৪২০ টাকা। গরুর মাংসের ন্যায় খাসির মাংসেরও দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। সোমবার মৌলভীবাজারে প্রতি কেজি খাসির মাংস বিক্রি হয়েছে ৫০০ থেকে ৫২০ টাকা ধরে। কিন্তু গত এক সপ্তাহ আগে প্রতি কেজি খাসির মাংস ৪২০ থেকে ৪৫০ টাকা ধরে বিক্রি হয়েছিলো। মাংসের পাশাপাশি ডিমের দামও বাড়ানো হয়েছে। মৌলভীবাজারের বাজারগুলো প্রতি হালি ডিম ৩০ থেকে ৩৫ টাকা ধরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া দেশি মসুর ডাল প্রতি কেজি ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা, ভারতীয় ১০০ টাকা, মুগ ডাল ১২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। ছোলার তৈরি বেসন বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা।


মৌলভীবাজার পশ্চিমবাজারের ব্যবসায়ী নাহিদ মিয়া জানান, রমজানে পণ্য সামগ্রী বেশি বিক্রি হয়। তাছাড়া টানা বৃষ্টিতে বাজারে সব রকম সবজিসহ অন্যান্য পণ্যের চাহিদা তুলনায় সরবারাহ কম হচ্ছে। তাই বাধ্য হয়েই বেশি দামে ক্রয় করে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। তবে বৃষ্টিপাত কমে গেলে বাজার পূর্বের স্থানে ফিরে যাবে বলেও জানান তিনি।


নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী ক্রয় করতে আসা শাহজাহান আহমদ জানান, বৃষ্টির অযুহাত দেখিয়ে ব্যবসায়ীরা সব সবজির দাম বাড়িয়ে বিক্রি করছে। নিত্যপণ্যের দাম বাড়াতে বিপাকে পড়তে হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, রমজান আসলে এমনিতেই বাজারে নিত্য পণ্যের দাম বৃদ্ধি করেন ব্যবসায়ীরা। আর এখন বৃষ্টির অযুহাত দেখাচ্ছেন। সঠিক বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা থাকলে ব্যবসায়ীরা অযুহাত দেখিয়ে দাম বৃদ্ধি করতে পারতো না বলেও জানান তিনি।


বিবার্তা/আরিফ/মোয়াজ্জেম

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (২য় তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com