মা-ছেলে হত্যায় ৩ জনের ফাঁসি
প্রকাশ : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:৫৯
মা-ছেলে হত্যায় ৩ জনের ফাঁসি
রাজশাহী প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

রাজশাহীর বাগমারার দেউলা গ্রামে মা ও ছেলে হত্যা মামলায় তিনজনকে ফাঁসি এবং চারজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।


একইসঙ্গে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত চার আসামির প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।


বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক অনুপ কুমার এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় মামলার সব আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। পরে আদালতের নির্দেশে তাদের রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।


রায়ে ফাঁসির আদেশপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও দেউলা রানী রিভারভিউ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেন মাস্টার (৫২), রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার আলীপুর গ্রামের হাবিবুর রহমান হাবিব (৪০) ও রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার দেবীপুর গ্রামের চাকরিচ্যুত বিজিবি সদস্য আবদুর রাজ্জাক (৩৫)।


যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার শ্যামপুর গ্রামের আব্দুল্লাহ আল কাফি (২২), একই গ্রামের রুহুল আমিন (৩০), দুর্গাপুরের খিদ্রকাশিপুর গ্রামের রুস্তম আলী (২৬) এবং খিদ্রলক্ষ্মীপুর গ্রামের ওরফে মনির (২৩)।


রায়ের পর রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এন্তাজুল হক বাবু জানান, দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য এ বছরের এপ্রিলেই মামলাটি জেলা জজ আদালত থেকে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়। মামলাটিতে মোট ৫১ জন সাক্ষী ছিলেন। আদালত ৪৭ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেছেন। এরপর গত ১১ সেপ্টেম্বর উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আজ এ মামলার রায় ঘোষণা করা হলো।


জানা যায়, রাজশাহীর বাগমারার দেউলা গ্রামের নিজ বাড়িতে ২০১৪ সালের ২৪ নভেম্বর রাতে আকলিমা বেগম (৪৫) ও তার ছেলে জাহিদ হাসানকে (২৫) গলাকেটে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহত আকলিমা বেগমের বড় ছেলে দুলাল হোসেন বাদী হয়ে অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে বাগমারা থানায় হত্যা মামলা করেন। এরপর থেকে বিভিন্ন সময় নাটকীয় মোড় নেয় এ জোড়া খুনের তদন্ত। তিন দফা বদল করা হয় তদন্ত কর্মকর্তা।


সর্বশেষ পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) মামলাটির তদন্ত করে। এরপর এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য বেরিয়ে আসে। ২০১৮ সালের ৩১ মে আদালতে পিবিআইয়ের পরিদর্শক আলমগীর হোসেন এ মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এতে সাতজনকে অভিযুক্ত করা হয়। এ হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী দুজন। এরা হলেন- নিহত আকলিমা বেগমের দেবর আবুল হোসেন মাস্টার (৫২) এবং হাবিবুর রহমান হাবিব (৪০)।


মামলায় অভিযুক্ত অন্য পাঁচজন হলেন- বিজিবির চাকরিচ্যুত সদস্য রাজশাহীর দুর্গাপুর উপজেলার দেবীপুর গ্রামের আবদুর রাজ্জাক (৩৫), একই উপজেলার শ্যামপুর গ্রামের আব্দুল্লাহ আল কাফি (২২), একই গ্রামের রুহুল আমিন (৩০), দুর্গাপুরের খিদ্রকাশিপুর গ্রামের রুস্তম আলী (২৬) এবং খিদ্রলক্ষ্মীপুর গ্রামের মনিরুল ইসলাম ওরফে মনির (২৩)।


তারা ভাড়াটে খুনি হিসেবে হত্যাকাণ্ডে অংশ নেন। এর মধ্যে গ্রেফতারের পর তিনজন হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা উল্লেখ করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।


বিবার্তা/এরশাদ/রবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanews24@gmail.com ​, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com