যুবলীগ নেতা খুনে আরেক রোহিঙ্গা ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত
প্রকাশ : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:২২
যুবলীগ নেতা খুনে আরেক রোহিঙ্গা ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত
নিহত যুবলীগ নেতা ফারুক
কক্সবাজার প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

কক্সবাজারের টেকনাফে যুবলীগ নেতা হত্যায় অভিযুক্ত আরো একরোহিঙ্গা পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়েছে। তার নাম হাবিবুল্লাহ (৪০)। রবিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ভোররাতে টেকনাফের হ্নীলার নয়াপাড়া মুচনী রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।


পুলিশ জানায়, নিহত হাবিবুল্লাহ ডাকাত এবং যুবলীগ নেতা ফারুক হত্যায় অভিযুক্ত ছিল। ঘটনাস্থল থেকে দুটি আগ্নেয়াস্ত্র ও কার্তুজ উদ্ধার হয়েছে। হাবিবুল্লাহ টেকনাফের হ্নীলার মুচনী ২৬ নম্বর ক্যাম্পের মৃত আলী আহমদের ছেলে। সেও যুবলীগ সভাপতি ফারুক হত্যায় অভিযুক্ত ছিল।


টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, গোপন সূত্রে খবর পাই যুবলীগ নেতা ফারুক হত্যাসহ নানা অপরাধে অভিযুক্ত পলাতক আসামিসহ একটি ডাকাতদল হ্নীলার নয়াপাড়া মুচনী পাহাড়ে অবস্থান করছে। পরে ওই এলাকায় অভিযান চালানো হয়।


এ সময় পুলিশের উপস্থিত টের পেয়ে দৃষ্কৃতিকারীরা গুলি ছুড়তে থাকে। এতে কয়েক পুলিশ সদস্য আহত হন। তখন পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে এগিয়ে এলে আমরা গুলি বন্ধ করি। তখন অস্ত্রধারী দৃষ্কৃতিকারীরা পাহাড়ের দিকে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলে একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থা পাওয়া যায়। উপস্থিত জনতার মাঝে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাঝি ও সাধারণ রোহিঙ্গারা তাকে হাবিবুল্লাহ বলে শনাক্ত করেন।


ওসি বলেন, পরে তাকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়া গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠান। ভোরে সেখানে পৌঁছালে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা হাবিবুল্লাহকে মৃত ঘোষণা করেন।


তিনি জানান, ময়নাতদন্তের জন্য তার মরদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় পৃথক আইনে মামলা হচ্ছে।


গত ২২ আগস্ট রাতে একদল রোহিঙ্গা অস্ত্রধারী টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমুরা এলাকায় নিজ বাড়ির সামনে থেকে ৯ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ওমর ফারুককে তুলে পাহাড়ের কাছে নিয়ে গুলি করে হত্যা করে।


এ ঘটনার পরদিন ২৩ আগস্ট মুহাম্মদ শাহ ও আব্দুস শুক্কুর নামে দুই রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী একই এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়। এরপর নিহত হয় আরও এক অভিযুক্ত।


গত ১ সেপ্টেম্বর ভোরে ফারুক হত্যা মামলার প্রধান আসামি রোহিঙ্গা ডাকাত সর্দার নুর মোহাম্মদ পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হয়। ১৩ সেপ্টেম্বর একইভাবে নিহত হয় নেছার ও করিম নামে আরো দুইজন।


বিবার্তা/রবি

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanews24@gmail.com ​, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com