‘সেই একই জায়গা, একই কুমির’
প্রকাশ : ০৬ জুলাই ২০১৯, ১০:২৭
‘সেই একই জায়গা, একই কুমির’
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

একই জায়গা, একই কুমির। মাঝে দেড় দশকের ব্যবধান। ১৫ বছর আগে কুমিরের পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন বাবা। আর এখন ছেলে। বাবার মত‌োই পোশাক। বাবার মতোই শরীরী ভাষা। নস্টালজিয়া ফিরিয়ে আনলেন রবার্ট আরউইন।


মাত্র দু বছর বয়সে তিনি হারিয়েছিলেন বাবাকে। আর পৃথিবী হারিয়েছিল স্টিভ আরউইনকে। শঙ্করমাছের (ইংরাজী নাম Batoids বা Ray) আক্রমণে প্রাণ হারিয়েছিলেন এই নিখাদ বন্যপ্রাণপ্রেমী। স্টিভপুত্র রবার্ট ফিরিয়ে দিলেন নস্ট্যালজিয়া। ইনস্টাগ্রামে তার ছবি মনে করিয়ে দিল তিনি আদপে বাপ কা বেটা !


বুধবার কুমিরের সাথে নিজের ছবি শেয়ার করেন রবার্ট। পরনে সেই চিড়িয়াখানার কর্মীর পোশাক। ডান হাতে মাংসখণ্ড। তা খাওয়ার জন্য হাঁ করে আছে করালকুম্ভীর, মারে।


সোশ্যাল মিডিয়ায় ছবি পোস্ট করে রবার্ট লিখেছেন, বাবা এবং আমি মারেকে খাওয়াচ্ছি। সেই একই জায়গা, একই কুমির। মাঝে কেটে গিয়েছে ১৫ বছর।


রবার্টের ছবিটি নেয়া হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার চিড়িয়াখানায়। ১৯৭০ সালে যা তৈরি করেছিলেন স্টিভের মা-বাবা। এখানে একইভাবে কুমিরকে খাওয়ানোর সময় ছবি তোলা হয়েছিল স্টিভের, ২০০৪ সালে। সেই পথেই হাঁটলেন তার কিশোরপুত্র।


সোশ্যাল মিডিয়ায় রবার্টের ছবি দেখে আবেগপ্রবণ নেটিজেনরা। স্বভাবতই সবার মনে পড়ছে স্টিভের কথা। রবার্টকে অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি অনেকেই লিখেছেন তাকে দেখে খুশি হবেন স্টিভ।


বন্যপ্রাণীঅন্ত প্রাণ মানুষটির অকালমৃত্যুর কারণও ছিল তার প্যাশন। কাজের মধ্যেই শঙ্করমাছের লেজের মারণ-ঝাপটায় লুটিয়ে পড়েছিলেন স্টিভ। রেখে যাওয়া কাজ সম্পূর্ণ করার দায়িত্ব তুলে নিয়েছে তার পরিবার। ছেলে রবার্ট, মেয়ে বিন্দি দু’জনেই বন্যপ্রাণ নিয়ে কাজ করছেন তাদের মায়ের সঙ্গে।


সরীসৃপ প্রজাতির অন্যতম ত্রাস হলো কুমির। কিন্তু এই কুমিরের প্রতিও যে কারও ভালোবাসা থাকতে পারে, সেটা বিশ্ববাসীকে বুঝিয়েছিলেন স্টিভ আরউইন। কুমিরের প্রতি তার প্যাশন দেখে চমকে উঠেছিল গোটা দুনিয়া। কী ভাবে যেন কুমির শব্দের সমার্থক হয়ে গিয়েছিলেন স্টিভ আরউইন।


স্টিভ আরউইনের বিখ্যাত টেলিভিশন শো, ‘ক্রোকোডাইল হান্টার’-এর প্রথম পর্বের বিষয়ই ছিল স্টিভ ও তাঁর স্ত্রী তেরির হানিমুনে তোলা কুমিরদের একটি ভিডিও ফুটেজ। স্টিভ আরউইন এবং তেরি আরউইন একসঙ্গেই এই অনুষ্ঠান হোস্ট করতেন। পরে অবশ্য তাঁদের দুই সন্তান রবার্ট এবং বিন্দিও নিয়মিত এই শোয়ের অংশ হয়ে উঠেছিলেন। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

বি-৮, ইউরেকা হোমস, ২/এফ/১, 

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com