সাগরের পানিতে লাখ লাখ জীবাণু!
প্রকাশ : ২৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:০৬
সাগরের পানিতে লাখ লাখ জীবাণু!
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

সমুদ্রে প্রায় দুই লাখ বিভিন্ন জাতের জীবাণু পাওয়া গেছে বলে সাম্প্রতিক এক গবেষণায় জানা গেছে। মাত্র এক লিটার পরিমাণ সামুদ্রিক পানিতেও লাখ-লাখ জীবাণু থাকে। তবে এসবের বেশিরভাগ জীবাণুই এখনো শনাক্ত করা হয়নি।


সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে শুরু করে সাগরের ৪ হাজার মিটার বা ১২ হাজার ফুট গভীরেও জীবাণুর সন্ধান মিলেছে। উত্তর মেরু থেকে দক্ষিণ মেরু - সর্বত্রই এসব জীবাণুর উপস্থিতি বিরাজমান।


তবে এসব জীবাণুর বেশিরভাগই মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর নয়। এগুলো মূলত সামুদ্রিক প্রাণের জন্য ক্ষতিকারক।


তিমি থেকে শুরু করে সমুদ্রের অন্যান্য প্রাণী বিশেষ করে ক্রাস্টিসিন বা খোলযুক্ত প্রাণী যেমন কাঁকড়া, লবস্টার, চিংড়ি ও শামুক জাতীয় প্রাণীরা জীবাণু দ্বারা সংক্রমিত হয়।


অতি ক্ষুদ্র এসব জীবাণু সামুদ্রিক প্রাণীদের জীবনে ও সাগরের রসায়নে কীভাবে ভূমিকা রাখে সেই বিষয়টিই গবেষকরা জানার চেষ্টা করছেন। সারা পৃথিবীর ৮০টি ভিন্ন ভিন্ন স্থান থেকে সাগরের পানির নমুনা সংগ্রহ করে বৈশ্বিক দৃষ্টিকোণ থেকে সামুদ্রিক জীবাণুর সামগ্রিক চিত্র আঁকার চেষ্টা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ওহাইয়ো স্টেট ইউনিভার্সিটির গবেষকেরা।


নতুন এই গবেষণা থেকে জীবাণুর যে খতিয়ান বিজ্ঞানীরা বের করেছেন তা আগের হিসেবের চেয়ে প্রায় ১২গুণ বেশি।


তবে গবেষণার একটি তথ্য থেকে গবেষকেরা সবচেয়ে বেশি বিস্মিত হয়েছেন। আর সেটি হচ্ছে, যতরকমের জীবাণু পাওয়া গেছে সেগুলোর প্রাপ্তিস্থান ও পানির গভীরতা অনুযায়ী সকল জীবাণুকে মাত্র পাঁচটি ভাগেই ভাগ করা যায়।


এই গবেষণার অন্যতম গবেষক এন গ্রেগরি বলেছেন, জীবাণুগুলোর জিন পরীক্ষা করার সময় আমরা লক্ষ্য করেছি যে, সাগরের বিভিন্ন অংশের জীবাণুর মধ্যে জিনগত অভিযোজন ঘটেছে।


তার মতে, এই গবেষণার দ্বিতীয় বিস্ময়টি হচ্ছে, আর্কটিক সমুদ্রে প্রচুর মাত্রায় জীবাণুর উপস্থিতি পাওয়া।


পৃথিবীর মহাসাগরগুলো ভাইরাস বা জীবাণুতে পরিপূর্ণ। কিন্তু সাগরের প্রাণীদের স্বাস্থ্য ও সাগরের সামগ্রিক রসায়নে এই জীবাণু কীভাবে প্রভাব ফেলে - তা নিয়ে খুব অল্পই জানা গেছে। পূর্বের যেসব আবিষ্কার ছিল তার মধ্যে এক ধরণের সামুদ্রিক জীবাণুর সন্ধান পাওয়া গিয়েছিল যেটি সবুজ শ্যাওলাকে সংক্রমণ করতে পারে।


আর সর্বশেষ তথ্য বলছে, সাগরে ৯০ শতাংশ প্রাণীকেই এখনো শ্রেণীভুক্ত করা যায়নি। তাই সাগরের জীবাণু নিয়ে আরো গভীরভাবে জানাটা প্রয়োজনীয় বলে মনে করা হচ্ছে। সূত্র: বিবিসি


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

বি-৮, ইউরেকা হোমস, ২/এফ/১, 

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com