জার্মানিতে বকশিস দেয়ার রীতি-নীতি
প্রকাশ : ০৮ জুলাই ২০১৮, ১৭:০৮
জার্মানিতে বকশিস দেয়ার রীতি-নীতি
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

বকশিস বা টিপস দেয়ার রীতি প্রায় সারা বিশ্বেই প্রচলিত, তবে দেশ ও স্থানভেদে পার্থক্য রয়েছে। রেস্তোরাঁ, বিউটি পার্লার কিংবা হোটেলের মতো জায়গায় জার্মানরা কিভাবে বা কোন হারে বকশিস দিয়ে থাকে, আজ তা নিয়েই কথা।


০১. বকশিস দেয়ার প্রচলন যেভাবে শুরু
শোনা যায়, বকশিস প্রথা শুরু হয় ষোড়শ শতকে ; ইংল্যান্ডে। ইংল্যান্ডে হোটেলে রাত কাটানো অতিথিরা মূলত কাজে সন্তুষ্ট হয়ে কিংবা অতিরিক্ত সেবা পেতে কর্মীদের কিছু টাকা দিয়ে যেতেন। এভাবেই সারা বিশ্বে বকশিস দেয়ার প্রথা ছড়িয়ে পড়ে।


০২. মাত্র দুই ইউরো!
রাজনীতিবিদ হলেই যে কিপ্টে হবেন না, তা কিন্তু মোটেই নয়। একবার জার্মান এক রাজনীতিক এক টক শো-তে বলেছিলেন, ডেলিভারি সার্ভিসের কর্মী বাড়িতে পিৎজা নিয়ে এলে তাঁকে তিনি মাত্র দুই ইউরো বকশিস দিয়ে থাকেন। যদিও স্বাভাবিক নিয়মে খাবারের দামের শতকরা ১০ ভাগ বকশিস দেয়ার কথা।


০৩. রেস্তোরাঁয় বকশিস
বকশিস বলতে সাধারণত প্রথমেই যে কোনো রেস্তোরাঁর ওয়েটারদের কথা আসে। হ্যাঁ, সেখানে বিলের শতকরা ১০ ভাগ বকশিস দেয়ার নিয়ম। তবে ওয়েটারের আচার-ব্যবহার বেশি বন্ধুসুলভ হলে কেউ কেউ বেশিও দিয়ে থাকেন।


০৪. সাইকো ট্রিকস
রেস্তোরাঁয় বেশি টিপস পাওয়ার জন্য অনেক নারী ওয়েটার বিলের সাথে লজেন্স দিয়ে থাকেন কিংবা কেউ কেউ আবার বিলের ওপর স্মাইলি এঁকে দেন। এতে কাজও হয়, অর্থাৎ পুরুষদের কাছ থেকে কখনো-কখনো শতকরা পাঁচ ভাগ বেশি টিপস পান তাঁরা।


০৫. হোটেল টিপস
হোটেলে রাতপ্রতি দুই ইউরো, তবে শুধু এক রাত থাকলে পাঁচ ইউরো বকশিস দেয়া উচিত - ইউরোপীয় টুরিস্ট বীমা কম্পানির গ্রাহকসেবা বিভাগের প্রধান বির্গিট ড্রেয়ার এমনটিই মনে করেন। বকশিসের পরিমাণ নির্ভর করে হোটেল ক্যাটাগরি ও রুম সার্ভিসের ওপর। তবে টিপস টেবিল বা বিছানায় না রেখে সরাসরি দেয়াই ভালো।


০৬. সেবিকাদের কপাল মন্দ!
জার্মানির হাসপাতালে কোনো নার্সকে সাধারণত আলাদাভাবে বকশিস দেয়া হয় না। রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি যাওয়ার সময় সকল সেবিকার জন্য কাউন্টারে রাখা ‘কফি তহবিল’ বা কাঁচের ব্যাংকে ইচ্ছেমতো ছোট বা বড় নোট ঢুকিয়ে দেন। অবশ্য অনেকে নার্সকে আলাদাভাবে চকলেটও দিয়ে থাকেন।


০৭. ট্যাক্সিচালকের বকশিস
ট্যাক্সিচালকদের বকশিসের ধরাবাঁধা কোনো নিয়ম নেই। তবে কেউ কেউ রাতের ট্যাক্সিচালককে স্বাভাবিকের চেয়ে একটু বেশিই দিয়ে থাকেন। ছুটি কাটাতে বিমানবন্দরে নিয়ে গেলেও অনেক চালকের ভাগ্যে একটু বেশি বকশি্স জোটে। ট্যাক্সিচালকের আর্থিক অবস্থার কারণে খানিকটা সহানুভূতি থেকেই নাকি জার্মানরা একটু বাড়তি টাকা দিয়ে থাকে।


০৮. পার্লার-কর্মীর বকশিস
সাধারণত পার্লারকর্মীকে পাঁচ ইউরো বকশিস দেয়া হয়। তবে কর্মীর সাথে ব্যক্তিগত বন্ধুত্ব থাকলে বকশিস দেয়া কিছুটা সমস্যার। সেক্ষেত্রে জার্মান এক মনস্তত্ত্ববিদের পরামর্শ, এরকম পরিস্থিতিতে বকশিসটা পকেটে গুঁজে দিয়ে বলুন, ‘‘তুমি না নিলে তোমার ছেলে বা মেয়েকে দিও...।’’ সূত্র : ডিডাব্লিউ


বিবার্তা/হুমায়ুন/মৌসুমী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com