মিসরের পরাজয় ঠেকাতে পারলেন না সালাহ
প্রকাশ : ২০ জুন ২০১৮, ০২:৩৪
মিসরের পরাজয় ঠেকাতে পারলেন না সালাহ
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

পারলেন না সালাহ দলের ত্রাতা হতে। মাঠে থেকেও দলকে কাঙ্ক্ষিত জয় উপহার দিতে। আর এতে করেই বিদায় ঘণ্টা বাজলো ফারাও খ্যাত মিসরের। উদ্বোধনী ম্যাচে সৌদি আরবকে ৫-০ গোলে বিধ্বস্ত করার পর এবার মিশরকে ৩-১ গোলে পরাজিত করে সবার আগে রাশিয়া বিশ্বকাপের নক আউট পর্বে পা রাখলো স্বাগতিকরা।


১৯৬৬ বিশ্বকাপের পর প্রথম কোনো বিশ্বমঞ্চে এমন কীর্তি দেখালো দলটি। যদিও তখন ছিল সোভিয়েত ইউনিয়ন। আর রাশিয়া হিসেবে ১৯৮২ সালের আসরের পর বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে জিতল রাশিয়া। এই জয়ে ১৯৮৬ সালের আসরের পর প্রথমবারের মতো গ্রুপ পর্ব পার হল দলটি।


আজও ম্যাচের আগে প্রশ্ন ছিল মিসরের হয়ে মাঠে নামবেন তো মোহামেদ সালাহ? এ প্রশ্নের উত্তরের পাওয়া গেছে ম্যাচ শুরুর মাত্র এক ঘণ্টা আগে। আজকের ম্যাচে মিসরের জন্য সমীকরণ ছিলো এমন যে হারলেই বিদায় নিতে হবে তাদের। ডু অর ডাই ম্যাচে তাই দলের হয়ে মাঠে নামেন সালাহ। কিন্তু ১৯৯০ সালের পর বিশ্বকাপে খেলতে এসে কার্যত দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়ার সম্ভাবনা শেষ হয়ে গেছে। যদিও অংকের মারপ্যাচে টিকে রয়েছে দ্বিতীয় রাউন্ডে যাওয়া।


এদিন ম্যাচের ৬ মিনিটেই সামেদভের ক্রস থেকে ইগনাশেভিচ হেড করলে সেটি তালুবন্দী করেন মিসর গোলকিপার এল শেনাউই। ১৬ মিনিটে ত্রেজিগেতের দূরপাল্লার শট গোলবারের উপর দিয়ে চলে যায়। ম্যাচে রাশিয়ানদের আক্রমণে একদম কোণঠাসা হয়ে পড়ে মিসর।



মাঝের সময়টা সুযোগ তৈরি করলেও তা কাজে লাগাতে পারেনি রাশিয়া। ৩৫ মিনিটে গোল পেয়ে যেতে পারতো মিসর। কিন্তু মহসিনের হেড গোলবারের সামান্য উপর দিয়ে চলে গেলে গোল বঞ্চিত হয় তারা। ৪২ মিনিটে ডি বক্সের সামান্য বাইরে থেকে মোহামেদ সালাহর বাকানো শট গোলবারের বাইরে দিয়ে চলে যায়। গোলশূন্য অবস্থাতেই বিরতিতে যায় দু’দল।


দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই এগিয়ে যায় রাশিয়া। ৪৭তম মিনিটে গোলোভিনের ক্রস বিপদমুক্ত করতে গিয়ে উল্টো নিজেদের জালে পাঠিয়ে দেন আহমেদ ফাতহি। চলতি আসরে এটি পঞ্চম আত্মঘাতী গোল। কেবলমাত্র ১৯৯৮ বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ৬ টি আত্মঘাতী গোল হয়েছিল।


৬১ মিনিটে মিসরের গোলমুখে আরেকটি পেরেক ঢুকিয়ে দেন প্রথম ম্যাচের জয়ের নায়ক চেরিশভ। ডি বক্সের বাইরে থেকে ফার্নান্দেজের দুর্দান্ত ক্রসে ডি বক্সের ভেতর দুর্দান্ত শটে গোল করেন চেরিশভ। টুর্নামেন্ট ৩ গোল করে যুগ্মভাবে রোনালদোর সঙ্গে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে উঠে আসলেন তিনি।


এই গোলের রেশ কাটতে না কাটতে আবারো গোল করে রাশিয়া। ঘরের মাঠে খেলার পুরোপুরি ফায়দা তুলে ৬৪ মিনিটে কুতপভের সঙ্গে দারুণ বোঝাপড়ায় ডি বক্সের ভেতর এক ডিফেন্ডারকে পরাস্ত করে ডান পায়ের গোলবার ঘেষা শটে রাশিয়াকে ৩-০ গোলে এগিয়ে দেন জিউবা। প্রথম ম্যাচেও গোল করেছিলেন এই স্ট্রাইকার। অবিশ্বাস্যভাবে, বিশ্বকাপে দুই ম্যাচেই ৮ গোল করলো রাশিয়া।



তিন গোলে পিছিয়ে থেকে টিকে থাকতে আক্রমণের ধার বাড়ায় মিসর। ৭৩ মিনিটে সালাহকে ডি বক্সের ভেতর ফাউল করে রেফারি পেনাল্টি সিদ্ধান্ত দেন। ভিএআরের মাধ্যমে এটি নিশ্চিত করা হয়। স্পট কিক থেকে বিশ্বকাপে মিসরের হয়ে প্রথম গোলটি করেন মোহামেদ সালাহ। তৃতীয় মিসরীয় ফুটবলার হিসেবে বিশ্বকাপে গোল করার কৃতিত্ব দেখালেন সালাহ।


এক গোল শোধ দিলেও রাশিয়ার আক্রমণে রীতিমত পরাস্ত হয় মিসর। শেষ দিকে কয়েকটি বিক্ষিপ্ত আক্রমণ করলেও গোলের দেখা পায়নি মিসর। রক্ষণে মনোযোগ বাড়ানোয় শেষের দিকে আর সেভাবে আক্রমণ করতে পারেনি রাশিয়া।


গ্রুপ পর্বে স্বাগতিকরা তাদের শেষ ম্যাচটি খেলবে উরুগুয়ের বিপক্ষে। এই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৫ জুন। আর গ্রুপ পর্বে মিসর তাদের বাকি ম্যাচটি খেলবে সৌদি আরবের বিপক্ষে। এই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২৫ জুন। গত ১৫ জুন উরুগুয়ের বিপক্ষে ১-০ গোলে হেরেছিল মিসর।


বিবার্তা/শাহনাজ/শারমিন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com