একে রাস্তা বলে!
প্রকাশ : ১০ নভেম্বর ২০১৭, ১৫:৫৪
একে রাস্তা বলে!
তানভীর আঞ্জুম আরিফ , মৌলভীবাজার
প্রিন্ট অ-অ+

মৌলভীবাজার-শমশেরনগর-চাতলাপুর সড়কটি কমলগঞ্জ ও কুলাউড়া উপজেলার লোক চলাচলের একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষ মৌলভীবাজার জেলা সদরের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে থাকে। কিন্তু দীর্ঘদিন যাবৎ রাস্থাটি সংস্কার না করায় যান চলাচলের অনুপযুক্ত হয়ে পড়েছে।


মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর থেকে মৌলভীবাজার জেলা সদরের ২০ কিলোমিটার সড়কের অধিকাংশই খানাখন্দে ভরপুর। পিচ উঠে ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। গর্তে ভরা এ সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল এখন অসহনীয় পর্যায়ে।


সরেজমিনে গিয়ে সড়ক ঘুরে এমন চিত্রই পাওয়া গেছে। কুলাউড়ার চাতলাপুর চেকপোস্ট থেকে শমশেরনগর হয়ে মৌলভীবাজার জেলা সদর পর্যন্ত সড়কটি যাতায়াত ও মালামাল পরিবহনে গুরুত্বপূর্ণ। বর্তমানে চলাচলের ক্ষেত্রে সড়কটি অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। জেলার সাথে সংযোগ রক্ষাকারী অন্যতম এ সড়ক দিয়ে কমলগঞ্জ ও কুলাউড়া উপজেলার প্রায় ১২/১৩ ইউনিয়নের অধিকাংশ মানুষ জেলায় যাতায়াত করছে।



গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি বেহাল দশায় পরিণত হওয়ায় কয়েক লক্ষাধিক মানুষকে পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ।


শমশেরনগর-মৌলভীবাজার সড়কে চলাচলকারী কলেজ ছাত্র নাহিদ হোসাইন, কলেজ ছাত্রী নাজিয়া আহমেদ, ব্যবসায়ী আশরাফ হোসেন বিবার্তাকে জানান, এই সড়কটির পিচ উঠে বড় বড় খানা-খন্দে রূপ নিয়েছে। সিএনজি অটোরিক্সায় চলাচল করলে শরীরে প্রচণ্ড ব্যাথা লাগে। সড়কটি দ্রুত সংস্কার করা না হলে জনসাধারণের চলাচল জন্য আরো অযোগ্য হয়ে পড়বে। বেহাল এই সড়ক দিয়ে যানবাহন গুলো ও অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। এজন্য এই সড়কে যাতায়াতকারী যাত্রীদের ও পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ। তাই সড়কটি সংস্কারের জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি ।



সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক জায়েদ আহমদ বিবার্তাকে জানান, ভাঙা রাস্তায় গাড়ি চালাইতে গিয়া কষ্ট হয়। প্যাসেঞ্জার বিরক্ত হয়। নিজে একবার গাড়ি চালাইয়া গেলে আর মনে চায় না গাড়ি চালাইতাম। খুব খারাপ লাগে। গাড়ির বিভিন্ন জিনিসপত্র নষ্ট অয়। খালি ইট আর বালি দেওয়া অয় রাস্তাত। কোনদিন যে রাস্তা ঠিক অইবো?
এই সড়কের নিয়মিত যাত্রী স্পৃহা চৌধুরী বিবার্তাকে জানান, গত প্রায় পাঁচ মাস থেকে এই সড়কে দুর্ভোগ চলছে। সীমাহীন কষ্ট হচ্ছে। এখন এটাকে সড়ক মনে হয়না।
সিএনজি চালক রনি মিয়া, আব্দুল মালিক, সুলতান মিয়া, ট্রাক চালক শাহাজান মিয়া বিবার্তাকে জানান, রাস্তার এই বেহাল অবস্থার কারণে যানবাহনের যন্ত্রাংশ বিকল হয়ে পড়ে। তাছাড়া যে কোন সময় এই সড়কে বড় ধরনের দুর্ঘটনাও ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন।


সড়ক ও জনপথের মৌলভীবাজার এর নির্বাহী প্রকৌশলী মিন্টু রঞ্জন দেবনাথ বিষয়টি স্বীকার করে বিবার্তাকে জানান, অব্যাহতভাবে যানবাহন চলাচলে ফলে বর্তমানের সড়কটির বেহাল দশা,সড়কের পিচ ঢালাই উঠে গেছে এবং মাঝে মধ্যে গর্তের ও সৃষ্টি হয়েছে। তিনি আশা করেন অতি শিগগিরই বরাদ্দ আসলে সড়কটির উন্নয়ন কাজ করা হবে। ফলে তখন আর জনসাধারনকে দুর্ভোগ পোহাতে হবে না।


বিবার্তা/আরিফ/ইমদাদ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com