খোলা আকাশের নিচে ২০০ পরিবার
প্রকাশ : ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ২০:৫৭
খোলা আকাশের নিচে ২০০ পরিবার
খলিলুর রহমান
প্রিন্ট অ-অ+

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে একটি বস্তিতে আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে ২০০ থেকে ২৫০টি ঘর। ফলে এসব বাড়ির বাসিন্দাদের স্থান হয়েছে খোলা আকাশের নিচে।


বৃহস্পতিবার বিকালে মোহাম্মদপুরের চাঁন মিয়া হাউজিং বস্তিতে গিয়ে এমনটাই দেখা গেছে।


চাঁন মিয়া বস্তির অবস্থান ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩৩ নং ওয়ার্ডের মোহাম্মদপুরে বাঁশবাড়ি এলাকায়। ওই বস্তিতে ২০০ থেকে ২৫০ পরিবার বসবাস করে। তাদের কেউ রিকশাচালক, কেউ সবজি ব্যবসায়ী, কেউ নির্মাণশ্রমিক আবার কেউ ভ্যানচালক।


বৃহস্পতিবার ভোররাতে আগুন লেগে পুরো বস্তিই পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। তাই বস্তিতে বসবাসকারী মানুষগুলোকে এখন খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করতে হচ্ছে।


বস্তিতে বসবাসকারী মিন্টু বেপারী বিবার্তাকে জানান, বৃহস্পতিবার ভোররাতে আগুন লাগে। অল্পক্ষণের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ে এবং সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়।


আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ার কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, ওই বস্তিতে সবগুওলো ঘর ছিল টিন, কাঠ ও বাঁশ দিয়ে তৈরী। তাই আগুন লাগার সাথে সাথে পুরো বস্তি পুড়ে গেছে।


নিজেকে একজন নির্মাণশ্রমিক পরিচয় দিয়ে তিনি জানান, তার ঘরে থাকা টাকা-পয়সা ও মালামাল পুড়ে গেছে। কিছুই তিনি বের করতে পারেনি।


এমন অবস্থা শুধু মিন্টু বেপারীর নয়, ওই বস্তির প্রায় সবারই একই অবস্থা।


কথা হয় মো. সেলিম নামের এক ব্যক্তির সাথে। তিনি নিজেকে সবজি ব্যবসায়ী পরিচয় দিয়ে বলেন, আমি দীর্ঘ ২৪ বছর থেকে ওই বস্তিতে বসবাস করে আসছি। ওই বস্তিতে অতীতে আরো তিনবার আগুন লেগেছিল। তবে এবার আগুনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে।


তিনি জানান, ২৩টি পরিবার দিয়ে ওই বস্তির যাত্রা শুরু হয়েছিল। কিন্তু বতর্মানে সেখানে ২০০ থেকে ২৫০টি পরিবার বসবাস করে। টিন, বাঁশ ও কাঠ দিয়ে তিন তলাবিশিষ্ট ঘরও নির্মাণ করা হয়েছিল সেখানে।


সরেমজিন ঘুরে দেখা গেছে, বস্তিবাসী খোলা আকাশের নিয়ে অবস্থান নিয়েছেন। তবে তাদের জন্য সাময়িকভাবে বস্তির পাশের বাশঁবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয় খুলে দেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে অনেকেই সেখানে অবস্থান নিয়েছেন। তবে সেখানেও সবার স্থান হয়নি।


হাওয়া বিবি (৫৫) নামের এক নারী কাঁদতে কাঁদতে বলেন, আগুন লাগার পর কিছুই বের করতে পারি নাই। নিজের জান নিয়ে কিভাবে বের হয়েছি তাও বলতে পারবো না।


এদিকে, বস্তিবাসীর কাছ থেকে ২০০ থেকে ২৫০ পরিবারের খবর জানা গেলেও ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সেখানে মাত্র ১৫০ ঘর পুড়ে গেছে। সেটা নাশকতা না দুর্ঘটনা, তা দেখতে তদন্ত করা হচ্ছে।


এ ব্যাপারে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক মাসুদুর রহমান জানান, ক্ষতিগ্রস্তদের স্কুলে আশ্রয় আশ্রয় নিতে বলা হয়েছে। তবে অগ্নিকাণ্ডের কারণ এখনো জানা যায়নি।


এদিকে, আগুন লাগার খবর পেয়ে বহস্পতিবার ভোরেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক। এ সময় তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, সরকার ও আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহয্য প্রদান করা হবে।


বিবার্তা/খলিল/মৌসুমী/হুমায়ুন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com