ডিজিটাল নবজাগরণে ‘দ্বীপবন্ধু’র অবদান
প্রকাশ : ১৩ জানুয়ারি ২০১৮, ২২:১২
ডিজিটাল নবজাগরণে ‘দ্বীপবন্ধু’র অবদান
সাদির হোসেন রাহিম
প্রিন্ট অ-অ+

‘তরুণেরাই গড়বে নতুন দেশ, ডিজিটাল হবে বাংলাদেশ’ এই স্লোগান সামনে রেখে দ্বীপবন্ধু হিসেবে পরিচিত ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন তার নির্বাচনী এলাকায় ডিজিটাল নব জাগরণে আইসিটি উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রেখে চলেছেন। এখানকার সকল স্তরের মানুষকে তথ্য প্রযুক্তির আওতায় আনার জন্য নির্লসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।


তিনি লালমোহনে সজীব ওয়াজেদ জয় ডিজিটাল পার্ক নির্মাণ করে সর্ব মহলে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছেন। এ পার্কটি স শ্রেণিপেশার মানুষের জন্য বিনোদনের অনন্য একটি মাধ্যম। পার্ক এরিয়ার মধ্যে বিনামূল্যে ওয়াইফাই সেবা প্রদান করা হয়েছে।


বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে সরকার গঠিত হওয়ার পর ডিজিটাল বাংলাদেশের বাস্তবায়ন শুরু হয় ২০০৯ সালে। বিগত আট বছরে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের অভিযাত্রায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির অভূতপূর্ব সম্প্রসারণ ঘটেছে।


এ ধারাকে অব্যাহত রাখতে প্রযুক্তি ভিত্তিক সব তথ্যসেবা লালমোহন-তজুমদ্দিনের সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিয়েছেন সংসদ সদস্য শাওন। তিনি এখানকার মানুষকে তথ্য প্রযুক্তির শিক্ষায় শিক্ষিত করার লক্ষ্যে নিজস্ব অর্থায়নে দুই উপজেলায় দুইটি আইসিটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেছেন। প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের নামকরণ করা হয়েছে ‘নূরুন্নবী চৌধুরী শাওন ফ্রি আইসিটি প্রশিক্ষণ প্রোগ্রাম’।


এই প্রশিক্ষণ কেন্দ্রগুলোতে বিনামূল্যে ১মাস মেয়াদি কম্পিউটার প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। প্রশিক্ষণ শেষে সনদও দেয়া হয়। এছাড়াও অর্থনৈতিকভাবে লালমোহন তজুমদ্দিনকে আরো এক ধাপ এগিয়ে নিতে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন লার্নিং অ্যান্ড আর্নিংয়ের আলোকে ‘ফ্রি আউটসোর্সিং আইসিটি প্রশিক্ষণ প্রোগ্রাম’।


এখান থেকে শিক্ষার্থীরা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ৩ মাস মেয়াদী ডিজিটাল মার্কেটিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইনসহ আরো অনেকগুলো কোর্সের উপর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে স্বাবলম্বী হচ্ছেন। তারা ঘরে বসে পড়ালেখার পাশাপাশি তাদের নিজেদের কর্মসংস্থান নিজেরাই তৈরি করে নিচ্ছে।


এ সকল ডিজিটাল কর্মকান্ডের সুফল স্বরূপ লালমোহন-তজুমদ্দিনের প্রায় ৭৫ ভাগ মানুষ ফেসবুকে একাউন্ট খুলে ফেসবুকের সাথে যুক্ত হয়েছেন। তারা এখন অন্যান্য উপজেলার মানুষের চাইতে অনেক বেশি সচেতন। তাদের এলাকার কোথাও কোনো সমস্যা বা অনিয়ম দেখলে তারা বিষয়টি তাৎক্ষণিক ফেসবুকের মাধ্যমে সংসদ সদস্য শাওনকে জানান।


ভোলা-৩ আসনে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে যে সব উন্নয়ন হয়েছে বা চলমান রয়েছে এ সব উন্নয়ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করার জন্য এবং নারীদেরকে অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে নেয়ার লক্ষ্যে এমপি শাওনের পৃষ্ঠপোষকতায় তার সহধর্মীনি ফারজানা চৌধুরী রত্না প্রতিষ্ঠা করেন ‘ভোলা-৩ দ্বীপবন্ধু মহিলা সাইবার ফোরাম’ নামের সংগঠন।


এ সংগঠনের মাধ্যমে লালমোহন তজুমদ্দিনের ১৩৬ জন মহিলার কর্মসংস্থানের ব্যাবস্থা করা হয়। সংগঠনের সদস্যদের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণ করা হয় এইচটিসি ব্রান্ডের স্মার্ট ফোন। তারা বর্তমান সরকারের সব উন্নয়নের সংবাদ ফেসবুকের মাধ্যমে প্রচার করেন।


এছাড়াও নির্বাচনী এলাকার জনগণের কাছে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে এমপি শাওন সাধারণ মানুষের সব প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন। তিনি জনগণের কাছে জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে ‘আমার এমপি ডট কম’ নামক একটি স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক ওয়েবসাইটের সাথে কানেক্ট হয়েছেন। এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সাধারণ জনগণ এমপি শাওনকে সরাসরি যেকোনো বিষয়ে প্রশ্ন করার সুযোগ পাচ্ছে।


এই ওয়েবসাইটের জরিপ অনুযায়ী জনগণের কাছে জবাবদিহিতায় তাদের প্রশ্নের উত্তর দেয়ার পাশাপাশি সমস্যাগুলোর সমাধান করে বাংলাদেশের সব এমপির মধ্যে ১ম স্থানে রয়েছে এমপি শাওন। এছাড়াও তিনি প্রতি মাসে একবার ফেসবুক লাইভে জনগণের প্রশ্নের মুখোমুখি হন ও সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিয়ে থাকেন।


বিশেষজ্ঞদের মতে ভোলা-৩ আসনে এমপি শাওনের তথ্য প্রযুক্তিভিত্তিক এ সব অবিস্মরণীয় উন্নয়ন ও অগ্রগতি এক সময় ডিজিটাল রেনেসাঁ বা ডিজিটাল নবজাগরণের প্রতীক হিসেবে পরিচিত লাভ করবে।


বিবার্তা/সাদির/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com