অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার আপিল
দুদকের শুনানি শেষ, খালেদার আইনজীবীর আদালত বর্জন
প্রকাশ : ২৩ অক্টোবর ২০১৮, ১৪:৪৫
দুদকের শুনানি শেষ, খালেদার আইনজীবীর আদালত বর্জন
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিচারিক আদালতের দণ্ডের বিরুদ্ধে আসামিদের করা আপিল ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজা বৃদ্ধি চেয়ে করা আবেদনের ওপর দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষের শুনানি শেষ হয়েছে।


বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে মঙ্গলবার এ শুনানি হয়।


রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। দুদকের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।


এদিকে এ মামলায় খালাস চেয়ে করা খালেদা জিয়ার আপিলের শুনানি করতে গিয়ে আদালত বর্জন করেছেন তার আইনজীবীরা। নথিপত্র নিয়ে সম্পূরক আবেদনের বিষয়ে বিচারক আদেশ না দেয়ায় তারা আদালত বর্জন করেন। এ সময় খালেদা জিয়ার পক্ষে আদালতে উপস্থিত ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী।


শুনানি মেষে খুরশীদ আলম খান জানান, দুদক ও রাষ্ট্রপক্ষ শুনানি শেষ করেছে। আসামিপক্ষে সময় চেয়েছেন আইনজীবীরা। কিন্তু আদালত সময় দেননি। এরপর তারা আদালত কক্ষ থেকে চলে যান। পরে আদালত আদেশের জন্য বুধবার দিন রেখেছেন।


তিনি বলেন, এ মামলায় সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন। আমরা খালেদা জিয়ার সাজা বাড়াতে আবেদন করেছি। তাই শুনানিতেও সর্বোচ্চ সাজা চেয়েছি।
এ মামলায় ছয় আসামির মধ্যে খালেদা জিয়াসহ তিনজন কারাবন্দি। বাকি তিন আসামি পলাতক। খালেদা জিয়া ছাড়া মামলার বাকি দুই আসামি হলেন- মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) কাজী সালিমুল হক কামাল ওরফে ইকোনো কামাল ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ।


পলাতক তিনজন হলেন- বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান, সাবেক মুখ্য সচিব ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান।


গত ৮ ফেব্রুয়ারি বকশীবাজারে কারা অধিদফতরের প্যারেড গ্রাউন্ডে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান মামলাটিতে খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন।


একই সঙ্গে খালেদার ছেলে ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান, মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, ড. কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও মমিনুর রহমানকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দেন আদালত।


এ মামলায় অর্থের উৎসের বিষয়ে একটি প্রতিবেদন সোমবার আদালতে জমা দিয়ে, এ বিষয়ে একটি আদেশ চান খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। কিন্তু আদালত জানায়, এ মামলায় যুক্তি উপস্থাপন শেষে ওই আবেদনটির ওপর আদেশ দেবেন আদালত। তবে এরপরও এ বিষয়ে গতকাল খালেদা জিয়ার আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী তাদের দাখিল করা প্রতিবেদনের বিষয়ে আদেশ চান। তখন আদালত আবেদনটি ‘কিপ টু দ্য রেকর্ড (নথিভুক্তি)’ আদেশ দেন।


এরপর মঙ্গলবার মামলার আপিল শুনানির পূর্বে ট্রাস্টের অর্থের উৎসের বিষয়ে দেয়া প্রতিবেদনের ওপর আদালতের কাছে আদেশ প্রার্থনা করেন আইনজীবী মোহাম্মদ আলী। কিন্তু আদালত আদেশ না দেয়ায় এ বিষয়ে আপিল বিভাগে যাওয়ার হবে বলে আদালতকে জানানো হয়। সে কারণে আজকের মতো মামলাটির আপিল শুনানি মুলতবি করতে আদালতের কাছে আরজি জানানো হয়।


কিন্তু আদালত মামলাটির আপিল শুনানি মুলতবি না করায় খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আদালত বর্জন করেন এবং মামলার শুনানি না করেই বেরিয়ে আসেন।


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com