জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে চায় জাতীয় পার্টি
প্রকাশ : ২২ ডিসেম্বর ২০১৭, ১৭:৪৩
জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে চায় জাতীয় পার্টি
জাহিদ বিপ্লব
প্রিন্ট অ-অ+

রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বড় জয়ে উচ্ছ্বসিত জাপা নেতাকর্মীরা। বৃহস্পতিবার রাত থেকেই দলের কাকরাইল কার্যালয়সহ সারাদেশে জাপা নেতাকর্মীরা একে অপরকে মিষ্টি মুখ করাচ্ছেন। আর নির্বাচনের জয়ের এ ধারা অব্যাহত রাখতে চায় দলটি। তার অংশ হিসেবে আসন্ন গাইবান্ধা-১ সুন্দরগঞ্জ আসনকে টার্গেট করেছেন দলের নীতি-নির্ধারকরা।


বাংলাদেশে দীর্ঘ ২৭ বছর ধারাবাহিকভাবে আওয়ামী লীগ-বিএনপি দেশ শাসন করে আসছে, যার কারণে ডাক্তার, আইনজীবী, পেশাজীবী, সংস্কৃতিকর্মী, সাংবাদিক থেকে শুরু করে সর্বক্ষেত্রেই দুটি ভাগে ভাগ হয়ে যায়। এমতাবস্থায় দুই বলয়ের মাঝখানে এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি একাধিকবার নিজেদের অবস্থান জানান দেয়ার চেষ্টা করলেও এরশাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রধান প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়ায়। এ কারণে নব্বইয়ের পর থেকে মুক্তভাবে রাজনীতি করতে পারেননি এরশাদ, যা বিভিন্ন বক্তব্যে এরশাদ নিজেও স্বীকার করেছেন।


দেশে বর্তমানে এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাপা ছাড়াও আরো কয়েকটি জাতীয় পার্টি রয়েছে। তারা সকলেই এক সময় এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাপায় ছিলেন। দল থেকে চলে গেছেন সিংহভাগ হেভিওয়েট নেতা। তারপরও নব্বইয়ের পর থেকে প্রতিটি নির্বাচনেই এরশাদ নিয়ামক শক্তি হয়ে দাঁড়ান।


যেকোনো দেশের রাজনীতিতে পজিশন-অপজিশনের বাইরে তৃতীয় একটি দল রাজনীতিতে টিকে থাকা কষ্টের। তা সত্ত্বেও বিএনপি-আওয়ামী লীগের বাইরে এদলটি প্রায় সব নির্বাচনেই বৃহত্তর রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সম্মানজনক আসন পায়। বর্তমানে জাতীয় পার্টি দেশের প্রধান বিরোধীদল হলেও সরকারে তাদের মন্ত্রী থাকায় সাধারণ জনগণ থেকে শুরু করে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরাও সমালোচনা করে আসছেন। আবার অনেকে সরকারের আজ্ঞাবহ বিরোধীদল হিসেবেও টিপ্পনি কাটেন। এমন একটি সময়ে রংপুরে দলের এ বিপুল বিজয় আগামী নির্বাচনী রাজনীতিতে আবারও নিজেদের শক্ত অবস্থান জানান দিলো এ দলটি।


জাতীয় পার্টির শীর্ষ নেতাদের মতে দলের এ বিজয় ঘুমিয়ে থাকা কর্মীদের আবার জাগিয়ে তুলবে। উর্বর জমিতে আবারও লাঙ্গলের চাষাবাদ শুরু হবে। আর এজন্য তারা দলীয় ঐক্যকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন।


জাপা সূত্রে জানা যায়, জয়ের এ ধারা অব্যাহত রাখতে আসন্ন বৃহত্তর রংপুরের গাইবান্ধা-১, সুন্দরগঞ্জ উপ-নির্বাচনের ফলাফলও নিজেদের ঘরে আবার আনতে যায় জাপা। রসিক নির্বাচনের এ বড় জয় নির্বাচনকে নিজেদের আয়ত্তে আনতে ভূমিকা রাখবে বলে জাপা নেতাদের অভিমত। দলের কর্মীদের মতে রসিক নির্বাচনের মতো এ উপনির্বাচনকেও যদি চ্যালেঞ্জ হিসেবে নেয় যায় তাহলে আবারও একটি বড় জয় আসন্ন।



রসিক নির্বাচনে দলের এ বড় জয় সম্পর্কে জাপা কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের বিবার্তাকে বলেন, মানুষ এখন অনেক সচেতন। ভোটারদের মাঝে উপলদ্ধি হয়েছে, দেশ কার শাসনামলে ভালো চলেছে। আমি বিশ্বাস করি, রংপুরবাসীর এ ভোট জাতির জন্য মেসেজ। দেশবাসী পরিবর্তন চায়, হিংসা বা প্রতিহিংসার রাজনীতি দেখতে চায় না। তারা উন্নয়ন ও সহনশীল রাষ্ট্র কামনা করে, এর জন্য এরশাদের জাতীয় পার্টি ছাড়া বিকল্প নেই। লাঙ্গলের এ বড় বিজয় নেতাকর্মীদের উৎসাহ বাড়িয়ে দিয়েছে। আমরা এ ধারা অব্যাহত রাখতে চাই।


তিনি বলেন, রসিক নির্বাচনের মতো গাইবান্ধা উপ-নির্বাচনও যদি অবাধ ও নিরপেক্ষ হয়, তাহলে অবশ্যই জাতীয় পার্টি সেখানেও জয়লাভ করবে।


জাপা মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি বিবার্তাকে বলেন, আমরা রংপুরবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞ। পল্লীবন্ধু এরশাদকে যেদিন বিনা দোষে বন্দী করা হয়েছিলো, সেদিন এই রংপুরবাসীই নিজেদের জীবন বাজি রেখে তাদের ছাওয়াল এরশাদকে মুক্ত করার জন্য আন্দোলন করেছিলো। এরশাদকে উন্নয়নের সিংহপুরুষ বলা হয়, আর সে এরশাদ রংপুরের সন্তান। সন্তান বিপদগ্রস্ত হলে মা ঘরে বসে থাকতে পারে না। তেমনি পল্লীবন্ধুর প্রতিটি দুঃসময়ে রংপুরবাসী মায়ের মতো সন্তানের পাশে এসে দাঁড়ায়।


তিনি বলেন, আমাদের দলে সবাই ঐক্যবদ্ধ, তার প্রমাণ রসিক নির্বাচন। এ নির্বাচনে দলের সকল শীর্ষনেতা এমনকি তৃণমূলের কয়েক সহস্রাধিক নেতাকর্মী দলের প্রার্থীকে জয়ী করার জন্য নিজের অর্থ খরচ করে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিয়েছেন। দলের প্রতি নেতাকর্মীদের এ কমিটমেন্ট বাংলাদেশের অন্য কোনো দলে আছে বলে আমার জানা নেই।


তিনি বলেন, আসন্ন গাইবান্ধা-১ আসনের উপনির্বাচনেও দলের প্রার্থীকে জয়ী করার জন্য আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাবো। একতাই সব। তার ওপর আমাদের পুঁজি আছে, সে পুঁজি বা মূলধন হচ্ছেন পল্লীবন্ধু এরশাদ। উন্নয়নের কথা ভাবলে, শান্তির কথা ভাবলে, নিরাপত্তার কথা ভাবলে মানুষ আমাদের অবশ্যই সকল নির্বাচনে জয়ী করবে। রসিক নির্বাচনের মাধ্যমে এ জয়ের ধারা শুরু হয়েছে।


দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি বলেন, রসিকে এ বিপুল জয়ের মাধ্যমে প্রমাণ হলো, দেশবাসী এরশাদকে ক্ষমতায় দেখতে চায়। রসিকে এ জয়ে সারাদেশে দলীয় নেতাদের মাঝে ব্যাপক উচ্ছ্বাস লক্ষ্য করা গেছে। আমরা কর্মীদের উচ্ছ্বাস ধরে রাখতে জয়ের এ ধারা অব্যাহত রাখতে চাই।


বিবার্তা/বিপ্লব/হুমায়ুন/সোহাগ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com