কৃতজ্ঞতা জানাতে জেলা নেতাদের ডেকেছেন এরশাদ
প্রকাশ : ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ১৬:৫৪
কৃতজ্ঞতা জানাতে জেলা নেতাদের ডেকেছেন এরশাদ
জাহিদ বিপ্লব
প্রিন্ট অ-অ+

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাবাষির্কীর দিন ১ জানুয়ারির সফল মহাসমাবেশের পর থেকেই উৎফুল্ল দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ থেকে শুরু করে পার্টির শীর্ষ পর্যায়ের নেতারা।


বৃহৎ এই সমাবেশ সফল করার জন্য দলের নেতাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে বৃহস্পতিবার জেলা ও উপজেলা নেতাদের ঢাকায় ডেকেছেন এরশাদ। কাকরাইল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইউনিস্টিউট মিলনায়তনে তাদের মধ্যাহ্ন ভোজে অ্যাপায়িত করবেন তিনি।


সফল ওই সমাবেশের পরদিনই দলের কেন্দ্রীয় নেতা থেকে শুরু করে দেশের সব জেলা ও উপজেলা নেতাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তাদেরকে ঢাকায় ডেকে এ মধ্যাহ্ন ভোজে অ্যাপায়িত করার ইচ্ছা ব্যক্ত করেন দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।


জাপা মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপিও কর্মীদের এই উদ্দীপনা ধরে রাখতে প্রায় সকল জেলা নেতাকেই টেলিফোনে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।


রুহুল আমিন হাওলাদার জানুয়ারির মাঝখানেই জেলা নেতাদের নিয়ে ঢাকায় এই কৃতজ্ঞতা সভা বা মধ্যাহ্ন ভোজের ব্যবস্থা করতে ইচ্ছা ব্যক্ত করলেও হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ রুটিন চেকআপ করাতে সিঙ্গাপুর গেলে তিনি এই সভা পিছিয়ে ৯ ফেব্রুয়ারি নির্ধারণ করেন। এরশাদ সে সময় সিঙ্গাপুর গেলে মহাসচিব হাওলাদারও তার সফরসঙ্গী হন।


দলীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রায় দেড় হাজার নেতাকে অ্যাপায়িত করা হবে। এর সব ব্যয় দলের মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার বহন করছেন বলে জানা গেছে।


জেলা পর্যায়ের নেতারাও এই স্বীকৃতি পেয়ে যারপরনাই খুশি। এ বিষয়ে নরসিংদী জেলা জাপার সভাপতি শফিকুল ইসলাম সফিক বিবার্তাকে বলেন, আমরা যারা জেলায় রাজনীতি করি, তাদের সম্মানে যদি দলের চেয়ারম্যান ও মহাসচিব কৃতজ্ঞতা সভা বা মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করেন, তাতে তৃণমূল পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা আরো উজ্জীবিত হবে। ভবিষ্যতে দলীয় কর্মকাণ্ডে আরো বেশি গতি আসবে।


মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার সভাপতি নোমান মিয়া বিবার্তাকে বলেন, আমরা তৃণমূলে যারা আছি, তারা পদ চাই না। আমরা পল্লীবন্ধু এরশাদকে ভালোবাসি। আর উনি যখন আমাদের সম্মানে মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করেছেন বলে শুনেছি, তখন আমিসহ এই উপজেলার সব নেতাই অভিভূত। এই মহৎ উদ্যোগের জন্য পল্লীবন্ধু এরশাদ এবং মহাসচিবের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ।


দলের মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি বিবার্তাকে জানান, কর্মীরাই দলের প্রাণ। দীর্ঘ ২৬টি বছর ক্ষমতার বাইরে থেকে এরশাদ মুক্তি আন্দোলন থেকে শুরু করে দলকে ক্ষমতায় নিয়ে যাওয়ার জন্য সংগ্রাম করে যাচ্ছেন তারা। আমরা তাদের কিছুই দিতে পারেনি।


তিনি বলেন, অনেক লোভী নেতা আমাদের ছেড়ে চলে গেলেও মাঠ পর্যায়ের কোনো নেতাকর্মী এরশাদকে ছেড়ে যায়নি। আমার নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের নির্দেশে দেশের সব জেলা ও উপজেলা নেতাদের আমরা ঢাকায় ডেকেছি। তারা আমাদের মহাসমাবেশ সফল করতে যে কষ্ট ও পরিশ্রম করেছেন, তার জন্য সবার প্রতি কৃতজ্ঞা জানান জাপা মহাসচিব।


বিবার্তা/বিপ্লব/হুমায়ুন/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com