জামায়াত প্রার্থীদের প্রার্থিতা বাতিলের দাবিতে পদযাত্রা ও ইসিকে চিঠি
প্রকাশ : ২২ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৪:২৭
জামায়াত প্রার্থীদের প্রার্থিতা বাতিলের দাবিতে পদযাত্রা ও ইসিকে চিঠি
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

একাদশ জাতীয় সংসদ নিবাচনে যুদ্ধাপরাধী সংগঠন জামায়াতে ইসলামের প্রার্থীদের প্রার্থিতা বাতিলের দাবিতে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) অভিমুখে অভিযাত্রা কর্মসুচি পালন করছে গৌরব ৭১।


পরে সংগঠনের একটি প্রতিনিধি দল ইসির কাছে একটি চিঠি প্রদান করেছে। এতে তারা জামায়াতের ২৫ প্রার্থীকে আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণের অযোগ্য ঘোষণা করার দাবি জানিয়েছে।


শনিবার সকাল সোয়া ১১টায় জাতীয় সংসদ ভবনের সামনে মানিক মিয়া অ্যাভিনিউয়ে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করা হয়। গৌরব ৭১’এর সভাপতি এস এম মনিরুল ইসলাম মনিরে সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এফএম শাহিনের সঞ্চালনায় পদযাত্রা পূর্ব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন শহীদ সাংবাদিক সিরাজুদ্দীন হোসেনের ছেলে তৌহিদ রেজা নূর, শহীদ ডা. আলীম চৌধুরীর মেয়ে ডা. নূজহাত চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা রুহুল আমিন মজুমদারসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা।


এ সময় উপস্থিত ছিলেন দেশের জনপ্রিয় নিউজ পোটাল বিবার্তা২৪ডটনেটের সম্পাদক বাণী ইয়াসমিন হাসি। সমাবেশ শেষে নির্বাচন কমিশন বরাবর পদযাত্রা শুরু করে ‘গৌরব ৭১’সহ বেশ কয়েকটি সংগঠন।



পদযাত্রা শুরুর কিছুক্ষণের মধ্যে পুলিশি বাধার মুখে পড়ে তারা। এরপর সবাই একসঙ্গে না গিয়ে, প্রতিনিধি দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেন সংগঠনের নেতারা।


দুপুরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বরাবর স্মারক লিপি জমা দেয়া হয়েছে।


চিঠিতে বলা হয়েছে, সংবিধানের সঙ্গে জামায়াতের দলীয় গঠনতন্ত্র সাংঘর্ষিক হওয়ায় হাইকোর্ট দলটির নিবন্ধন অবৈধ ও বাতিল করেছে। এছাড়া একাত্তরের ভূমিকার জন্য দলটিকে ‘ক্রিমিনাল দল’ আখ্যায়িত করে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল জানিয়েছে- এই দলটির শীর্ষ পদে স্বাধীনতা বিরোধীদের থাকা উচিত নয়।


এর আগে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে শহীদ সন্তান ডা. নুজহাত চৌধুরী বলেন, জিয়া জামায়াতকে পুনর্বাসিত করেছিলেন। দলটি যুদ্ধাপরাধী দল হিসেবে আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালে প্রমাণিত। এরপরও তাদের রাজনীতিতে সুযোগ দিয়েছে বিএনপি। ধানের শীষ তুলে দিয়েছে তাদের হাতে। এমনকি চিহ্নিত যুদ্ধাপরাধীদের সন্তানদেরও সুযোগ দিচ্ছে বিএনপি। এটা চিরদিনের জন্য বিহিত হওয়া উচিত।


তিনি বলেন, আইনগতভাবে জামায়াতের প্রার্থীদের নির্বাচন বন্ধ করা উচিত। বিশ্বাস করি নির্বাচন কমিশন শহীদ সন্তানদের আকুতি শুনবে। তাদের মনোনয়ন বাতিল করবে।



শহীদ সন্তান তৌহিদ রেজা নূর বলেন, জামায়াত প্রার্থীদের মনোনয়ন বাতিল করা বিশেষ কোনো ব্যক্তির দাবি নয়, আপামর জনতার দাবি। শহীদ সন্তানরা মনে করি, এর একটি বিধান হওয়া উচিত। প্রজন্ম একাত্তরের পক্ষে বিকেল ৩টায় ইসিতে যাবো। যুদ্ধাপরাধীদের সন্তানরাও একই রাজনৈতিক মতাদর্শ বিস্তারের চেষ্টা করছে। এটা মেনে নেয়া যায় না। নির্বাচন কমিশনকে আমরা এগুলো বলব।


প্রধান নির্বাচন কমিশন বরাবর পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, বিশ্ব ইতিহাসের দিকে তাকালে আমরা দেখতে পাব যে, যেসব সংগঠন গণহত্যা পরিচালনা করেছিল সেগুলো যুদ্ধাপরাধী হিসেবে গণ্য হয়েছে। আর প্রমাণিত যুদ্ধাপরাধী কোনো সংগঠন এমনিতেই অবৈধ হয়ে যায়। যুদ্ধাপরাধের দায়ে জার্মানিতে নাৎসি পার্টিকে এবং বর্ণবাদী কাজের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে ক্লু-ক্লাক্স-ক্লান নামে একটি পার্টিকে অনন্তকালের জন্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বাংলাদেশেও সন্ত্রাসী কাজকর্ম পরিচালনার জন্য চিরতরে নিষিদ্ধ হয়েছে হিজবুত তাহরির ও হরকাতুল জিহাদের মতো সংগঠন।


এতে আরো বলা হয়, জামায়তে ইসলামী কোনও রাজনৈতিক দল নয়, এটি একটি সন্ত্রাসী সংগঠন। যদি আল কায়েদা বা তালেবানের মতো সন্ত্রাসী সংগঠনকে বিশ্বজুড়ে নিষিদ্ধ করা হয়, তবে জামায়াত কেন নয়?


কোনো যুদ্ধাপরাধী সংগঠনের নেতাকর্মী বাংলাদেশের কোনো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করুক, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী তরুণ প্রজন্ম সেটা চায় না বলেও আবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।


বিবার্তা/খলিল/জাকিয়া


>>জামায়াত প্রার্থীদের প্রার্থিতা বাতিলের দাবিতে পদযাত্রা

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

বি-৮, ইউরেকা হোমস, ২/এফ/১, 

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com