‘দোয়া করবেন, যেন জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করতে পারি’
প্রকাশ : ১৯ মে ২০১৯, ২১:৪৩
‘দোয়া করবেন, যেন জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করতে পারি’
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রমজান মাস হচ্ছে দোয়া কবুলের মাস। আপনারা সবাই দোয়া করবেন বাংলাদেশের জন্য, দেশের জনগণের জন্য। আমরা যেন জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করতে পারি, বাংলাদেশকে যেন সেই সম্মানজনক জায়গায় নিয়ে যেতে পারি।


রবিবার গণভবনে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, আলেম-ওলামা, এতিম, প্রতিবন্ধী শিশু, ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় আহতসহ আত্মীয়-পরিজনদের নিয়ে আয়োজিত ইফতার অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনারা সবাই বাংলাদেশ ও দেশের জনগণের জন্য দোয়া করবেন। বাংলাদেশ যেন জঙ্গি, সন্ত্রাস, মাদক, দুর্নীতিমুক্ত একটি দেশ হিসাবে বিশ্বে মর্যাদা পায় এবং উন্নত সমৃদ্ধ ক্ষুধামুক্ত দারিদ্রমুক্ত সোনার বাংলাদেশ যেন গড়তে পারি, সেই দোয়া চাই।


তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিয়ে গেছেন। তিনি স্বপ্ন দেখেছিলেন ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশের। তিনি চেয়েছিলেন বাংলাদেশ যেন বিশ্ব দরবারে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারে।


শেখ হাসিনা বলেন, রমজান মাস হচ্ছে দোয়া কবুলের মাস। আপনারা সবাই দোয়া করবেন বাংলাদেশের জন্য, দেশের জনগণের জন্য। আমরা যেন জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করতে পারি, বাংলাদেশকে যেন সেই সম্মানজনক জায়গায় নিয়ে যেতে পারি।


এসময় প্রধানমন্ত্রী উপস্থিত সবাইকে রমজানের মোবারকবাদ জানান। একইসঙ্গে চোখের অপারেশন হওয়ায় চিকিৎসকের বারণ থাকায় প্রথম রোজায় সবার সঙ্গে ইফতারে অংশ নিতে না পারায় দুঃখপ্রকাশ করেন।


শেখ হাসিনা বলেন, আমি খুব দুঃখিত। ঘুরে ঘুরে সবসময় আমার সবার সঙ্গে কথা হয়। মাত্র কয়েকদিন আগে আমার চোখের অপারেশন হয়েছে। স্বাভাবিকভাবে বয়স হয়ে গেছে, ছানি পড়ে গেছে। এখন সেই ছানি অপারেশন করতে হলো। এজন্য আমার নিষেধ আছে বেশি মানুষের ভেতরে যাওয়া বা বাইরে যাওয়া। আজই প্রথম এখানে সমবেত হলাম। আমার আরো একটা মিটিং ছিল। সে কারণে কিছুটা দেরি হলো।



ইফতার মাহফিলে উপস্থিত সবাই এবং দেশে-বিদেশে যারা অবস্থান করছেন তাদেরকেও পবিত্র মাহে রমজানের আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান শেখ হাসিনা।


ইফতার মাহফিলে আগত অতিথিদের ব্যাপারে শেখ হাসিনা বলেন, এখানে আমার স্কুলের বান্ধবীরা আছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধারা আছেন; সবাইকে আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ। আপনারা এসেছেন গণভবনের মাটি ধন্য হয়েছে।


এরপর দোয়া ও মোনাজত অনুষ্ঠিত হয়। গণভবনের খোলা মাঠে শামিয়ানা টাঙ্গিয়ে বিশাল প্যান্ডেল করা হয়। ইফতার মাহফিলে কয়েক পদের ইফতার ছিল।


এর আগে, গণভবনে সংসদীয় ও স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।


বিবার্তা/শান্ত/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com