কক্সবাজারে মোবাইল ব্যাংকিং বন্ধ রাখার অনুরোধ র‌্যাবের
প্রকাশ : ২২ জুলাই ২০১৮, ২২:০৯
কক্সবাজারে মোবাইল ব্যাংকিং বন্ধ রাখার অনুরোধ র‌্যাবের
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ বলেছেন, মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে প্রতি মাসে কক্সবাজারে শতকোটি টাকার অবৈধ লেনদেনের হচ্ছে। তাই দুই মাসের জন্য কক্সবাজারমুখী সব ধরনের মোবাইল ব্যাংকিং সুবিধা বন্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।


রবিবার বিকেলে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত মাদকবিরোধী বিজ্ঞাপন (টিভিসি) 'চলো যাই যুদ্ধে, মাদকের বিরুদ্ধে’র প্রচারমূলক উদ্বোধন অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে তিনি এই অনুরোধ জানান।


অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল ছাড়াও পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বিশেষ অতিথি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণের মহাপরিচালক (ডিজি) মো. জামাল উদ্দীন আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


কক্সবাজারে মাত্র ২৩ লাখ লোকের বসবাস করে জানিয়ে র‌্যাবের ডিজি বলেন, সেখানে কোনো কল-কারখানা নেই। তাহলে প্রতিমাসে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে শতকোটি টাকার লেনদেন যায় কোথায়?


তিনি আরো বলেন, আমরা সন্দেহ করছি, এটা অবৈধ ও মাদক সংশ্লিষ্ট লেনদেন। অন্তত ২ মাসের জন্য কক্সবাজারমুখী সব ধরনের মোবাইল ব্যাংকিং বন্ধ রাখুন। আমরা বিষয়টি দেখতে চাই।


বেনজীর আহমেদ বলেন, গত ১৪ বছরে ৮০ হাজার মাদকসেবী ও মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই বছরের ৩ মে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মাদকবিরোধী বিশেষ অভিযান শুরু হয়। গত ৮০ দিনে ১০২ কোটি টাকার মাদকদ্রব্য জব্দসহ প্রায় ১০ হাজার লোককে মাদক সংশ্লিষ্টতায় গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।


তিনি বলেন, এ সময়ে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ৫ হাজার ৮৭৭ জনকে সাজা দেয়া হয়েছে। এর বাইরে ১ হাজার ৭১৩টি নিয়মিত মামলায় ২ হাজার ৯৫৯ জনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া, ১ হাজার ৩৮ জনকে ৪০ লাখ ৭২ হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।


এই বছরের মাদকবিরোধী অভিযানে আসামি গ্রেফতারের বিষয়ে র‌্যাবের ডিজি বলেন, মাদকবিরোধী অভিযানে গত ৮০ দিনে ১ হাজার ৭৯১টি অপারেশন করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩৭টি ছিল ঝুঁকিপূর্ণ। এ অপারেশনে ৪৭ জন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ও মাদকব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।


অভিযান পরিচালনার পরও মিলছে মাদক উল্লেখ করে বেনজীর আহমেদ বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধারাবাহিক অভিযানের পরও মাদক আসছে। গত ১ সপ্তাহে ১১টি দূরপাল্লার বাস জব্দ করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩টি বিলাসবহুল গাড়ি। এ ক্ষেত্রে বাস মালিকদেরও দায়িত্ব রয়েছে। আমরা শিগগিরই বাস মালিকদের সঙ্গে বসবো। সেখানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানাবো।


প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, দেশ যখন উন্নয়নের মহাসড়কে তখন জঙ্গিবাদী অপতৎপরতা শুরু হয়। সব আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী মিলে জঙ্গিবাদ মোকাবেলা করেছে। জঙ্গিবাদ নির্মূলের ন্যায় মাদককেও নির্মূল করব। সে লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মাদকবিরোধী যুদ্ধ শুরু হয়েছে। এ যুদ্ধে আমাদের জিততেই হবে।


স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যেখানেই অবৈধ ব্যবসা সেখানেই অবৈধ অর্থ, অবৈধ অস্ত্র। সুতরাং মাদক আগে নির্মূল জরুরি। সারা পৃথিবীতে দেখবেন মাদক নির্মূলে সর্বাত্মক যুদ্ধেই নামতে হয়েছে। কলম্বিয়া আর সেই কলম্বিয়া নেই। আমরাও সেই জায়গাটিতেই যাবো। আমরা যেমন করে জঙ্গিবাদ দমন করেছি তেমনিভাবে মাদকও দমন করা হবে।



অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. জাভেদ পাটোয়ারী বলেন, শুধু অভিযান নয়, মাদকবিরোধী প্রচার আরো বেশি দরকার। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর প্রতিষ্ঠার আগে পুলিশ এককভাবে মাদকবিরোধী ভূমিকা পালন করেছে। মাদককে শুধুমাত্র পুলিশি সমস্যা ধরে নিলে চলবে না। এটা সামাজিক সমস্যা, ব্যাধি। মাদকবিরোধী ভূমিকায় সব শ্রেণির পেশার মানুষকে সম্পৃক্ত হতে হবে।


বিবার্তা/খলিল/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com