‘৭ মার্চের ভাষণ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভাষণ’
প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ১২:১১
‘৭ মার্চের ভাষণ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভাষণ’
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভাষণ, আজ তা প্রমাণিত। বাঙালির দীর্ঘ দিনের প্রত্যাশা ছিল এটি। আমরা বিশ্বাস করতাম একদিন এ ভাষণ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাবে। বঙ্গবন্ধুর অলিখিত ১৮ মিনিটের এ ভাষণে বাঙালি জাতিকে জাতীয় মুক্তির মোহনায় দাঁড় করিয়েছিলেন। পৃথিবীতে অন্য কোনো ভাষণ এতবার উচ্চারিত হয়নি।


১৩ ই নভেম্বর বিকালে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সম্মুখে ‘৭ ই মার্চ উদযাপন কমিটি’ কর্তৃক আয়োজিত সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।


বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, সেদিন রেসকোর্স ময়দান মানুষে কানায় কানায় পূর্ণ ছিল। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর প্রস্তুতি ছিল, বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা ঘোষণা করলেই এ সমাবেশে হামলা চালাবে। বঙ্গবন্ধু এ ভাষণের মাধ্যমে একদিকে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন, অন্যদিকে পাকিস্তান ভাঙার দায়িত্ব নেননি। ফলে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর কিছুই করার ছিল না।


তিনি আরো বলেন, ‘পরদিন পাকিস্তান সেনাবাহিনী এক গোয়েন্দা প্রতিবেদনে বলেছিল, চতুর মুজিব আমাদের সামনে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে গেলেন, আমরা কিছুই করতে পারলাম না। বঙ্গবন্ধুর কৌশল ছিল বিচ্ছিন্নতাবাদী না হয়ে বাংলাদেশকে স্বাধীন করা। সেদিন তিনি সফল হয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু দূরদর্শী ছিলেন, ভাষণে তিনি একদিকে স্বাধীনতার ডাক দিলেন, অন্যদিকে সুকৌশলে চারটি শর্তের বেড়াজালে শাসকের চক্রান্তকে আটকে দিলেন এবং সামরিক শাসকদের বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা হিসেবে চিহ্নিত করার পাতানো ফাঁদেও পা দিলেন না।’


বাণিজ্যমন্ত্রী সেই ভাষণের স্মৃতি টেনে বলেন, ‘একদিকে ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম’ যেমন বললেন, তেমনি চার শর্তের জালে ফেললেন শাসকদের ষড়যন্ত্রের দাবার ঘুঁটি। তিনি বললেন, সামরিক শাসন তুলে নিতে হবে, সেনাবাহিনীকে ব্যারাকে ফিরিয়ে নিতে হবে,নির্বাচিত প্রতিনিধির কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে এবং আন্দোলনে নিহতদের বিষয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্ত করতে হবে। একই সাথে তিনি বাঙালি জাতিকে বলেছিলেন, ‘আমি যদি হুকুম দিবার নাও পারি, তোমাদের যার যা কিছু আছে, তাই দিয়ে শত্রুর মোকাবেলা কর। মনে রাখবা- রক্ত যখন দিয়েছি আরো রক্ত দিবো, এ দেশের মানুষকে মুক্ত করে ছাড়বো ইনশাআল্লাহ।’


তোফায়েল আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণে মহান মুক্তিযুদ্ধের সুস্পষ্ট দিক নিদের্শনা ছিল। সে মোতাবেক আমরা কাজ করেছি। বঙ্গবন্ধু এমন একজন নেতা ছিলেন, তিনি অন্তরের গভীরে যা বিশ্বাস করতেন, বক্তৃতায় তাই ব্যক্ত করতেন। ফাঁসির মঞ্চে গিয়েও তিনি তা থেকে বিরত হননি।


বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণ অলিখিত ছিল। এই ভাষণ একটি নিরস্ত্র জাতিকে স্বাধীনতার জন্য উদ্বুদ্ধ করেছিল। ১৮ মিনিটের ওই ভাষণ ছিল অলিখিত। তিনি সারাজীবন যা বিশ্বাস করতেন, সেই বিশ্বাসের ওপর ভিত্তি করেই ওই ভাষণ দিয়েছিলেন।’


তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘পাকিস্তানের ইয়াহিয়া খান তো দূরের কথা, ১৯৬৯ সালে জিয়াউর রহমান নামে যেকোনো ব্যক্তি আছে, তা আমি তোফায়েল আহমেদও জানতাম না। একদিনের ঘোষণায় বাংলাদেশের স্বাধীনতা আসেনি। তিল তিল করে বঙ্গবন্ধু তার সারাটা জীবন দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রেক্ষাপট তৈরি করেন। আজ যারা বলছেন জিয়াউর রহমানের ঘোষণায় দেশ স্বাধীন হয়েছে, তারা অজ্ঞ। বিশ্বাসের সঙ্গে তারা প্রতারণা করেন। পাকিস্তান আজ একটি অকার্যকর দেশ।’


সবশেষে এ অনষ্ঠান আয়োজন করার জন্য ‘৭ই মার্চ উদযাপন কমিটি’কে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।


অনুষ্ঠানে সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজেন্দ্র মজুমদার। আরো উপস্থিত ছিলেন প্রেস ক্লাব সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মোঃ শফিকুর রহমান, মানবতাবিরোধী আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্র্যাইবুনালের অন্যতম সদস্য ব্যরিস্টার তুরিন আফরোজ সহ মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ।


ব্যরিস্টার তুরিন আফরোজ তার বক্তব্যে বলেন, ‘৭ মার্চের ভাষণ-ই ছিল মূলত বাঙালির স্বাধীনতার ঘোষণা।এ ভাষণের ভিত্তিতে বাংলাদেশ নামক একটি দেশের জন্ম পৃথিবীতে হয়েছে।মুক্তিযুদ্ধের সময় যারা এদেশের বিরোধিতা করেছিল, তাদের বিচার এদেশে হয়েছে এবং যারা বাকী আছে তাদের ও রেইাই দেয়া হবে না।’


অনুষ্ঠানের শুরুতে তাৎক্ষণিকভাবে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি এঁকে সবাইকে দেখিয়েছেন চিত্রশিল্পী কামাল পাশা চৌধুরী ও চিত্রশিল্পী কীতি রঞ্জন বিশ্বাস। প্রধান অতিথির বক্তব্যের পর আমন্ত্রিত অতিথিগণ মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করে চিত্রশিল্পীদের দ্বারা অঙ্কিত প্রতিকৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।


বিবার্তা/রাসেল/ইমদাদ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com