'সচেতনতাই হতে পারে জঙ্গীবাদ দমনের হাতিয়ার'
প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর ২০১৭, ১৯:৫৩
'সচেতনতাই হতে পারে জঙ্গীবাদ দমনের হাতিয়ার'
বিবার্তা প্রতিবেদক
প্রিন্ট অ-অ+

‘তরুণ প্রজন্মের খুব ছোট একটি অংশ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে দেশে জঙ্গীবাদ প্রচার করছে। বিবিসি, আলজাজিরাসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো তা ফলাও করে প্রচার করছে, যাতে আন্তর্জাতিকভাবে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে।’


মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর কারওয়ান বাজার এলাকায় অনলাইন নিউজপোর্টাল বিবার্তার কার্যালয়ে ‘ইউজিং সোস্যাল মিডিয়া টু কাউন্টার রেডিক্যালাইজেশন’ শীর্ষক এক সেমিনারে কী-নোট স্পিকার হিসেবে এ কথা বলেন এনএসআইয়ের সহকারী পরিচালক লতিফা আহমেদ।


তিনি বলেন, ‘আমরা এনএসআইয়ের পক্ষ থেকে দেশে জঙ্গীবাদ দমনের জন্য বিভিন্ন পর্যায়ে নানা ধরনের কার্যক্রম পরিচালনা করছি। জঙ্গীবাদ দমনের একটি বড় হাতিয়ার হতে পারে দেশের অনলাইন সংবাদমাধ্যম। তাই এর অংশ হিসেবে আজ বিবার্তা পরিবারের সঙ্গে বসা।'


জঙ্গীবাদ কার্যক্রম সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরালের বিষয়ে লতিফা আহমেদ বলেন, ‘দেশে ১৮-৩০ বছরের বয়সীদের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেশি। তারা যে কোনো নাশকতার ঘটনা ঘটলেই সাথে সাথেই ফেসবুকে ছড়িয়ে দিচ্ছে। এসব স্ট্যাটাসের সূত্র ধরে ওই ঘটনার বিস্তারিত বিষয় পরে স্থান পায় আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোতে। ওই সব মিডিয়া সব সময়ই ওঁত পেতে থাকে বাংলাদেশের নেতিবাচক খবরের জন্য। এতে করে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়।’


আমাদের তরুণ প্রজন্ম কেন জঙ্গী হয়, কি বিষয়গুলো তাদেরকে জঙ্গী হতে অনুপ্রেরণা দিচ্ছে এসব বিষয় নিয়ে অনুসন্ধান করে অনলাইন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ করার জন্য সাংবাদিকদের প্রতি আহ্বান জানান লতিফা।


তিনি বলেন, ‘দেশের যেসব তরুণ এই অপকর্মে যুক্ত হচ্ছেন তাদেরকে এ পথ থেকে ফিরিয়ে আনার জন্য আমাদের পরিবার বিশেষ ভূমিকা পালন করতে পারে। পরিবারের নৈতিক শিক্ষা, ধর্মীয় নিয়ম-কানুন একজন সন্তানকে সুপথে পরিচালিত করতে পারে।’



তথ্যপ্রযুক্তির যুগে সবাই কমবেশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে থাকেন। সবাই নিজ নিজ জায়গা থেকে সচেতন হলে এসব অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড আস্তে আস্তে কমে আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন লতিফা।


সেমিনারে জঙ্গীবাদ দমনের বিষয়ে বিবার্তা২৪ডটনেটের সম্পাদক বাণী ইয়াসমিন হাসি বলেন, ‘আমাদের মাদ্রাসাগুলোতে আরবি শিক্ষার পাশাপাশি অংক, বাংলা, ইংরেজি বিষয়গুলো যোগ করে যথাযথভাবে নজরদারি করা যেতে পারে। মাদ্রাসায় ধর্মীয় শিক্ষা ও মানবিক মূল্যবোধগুলো সঠিকভাবে চর্চার মাধ্যমে ছেলে-মেয়েদের ছোটবেলা থেকেই সঠিক পথে পরিচালনা করা সম্ভব। শৈশব থেকে তাদের মাথায় জঙ্গীবাদ সম্পর্কে সঠিক ও স্পষ্ট ধারণা দিলে তারা সুস্থ মানসিকতা নিয়ে বেড়ে উঠবে।’ এক্ষেত্রে তিনি মসজিদের ইমামদের ভূমিকার কথাও উল্লেখ করেন।


বিবার্তা২৪ডটনেটের বার্তা সম্পাদক হুমায়ুন সাদেক চৌধুরী বলেন, ‘প্রযুক্তির যুগে এখন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের প্রভাব অনেক বেশি। তবে সারাদেশের পরিবার থেকে শুরু করে রাষ্ট্রীয় সব স্তরে সচেতনতামূলক কার্যক্রম ও প্রচার-প্রচারণার মাধ্যমে জঙ্গীবাদমূলক কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব। তরুণ প্রজন্মের মধ্যে তৃণমূল পর্যায়ে সচেতনতা পৌছানো ছাড়া দেশ থেকে জঙ্গীবাদ দমন সম্ভব নয়।’


তিনি বলেন, ‘জঙ্গীবাদবিরোধী কার্যক্রমে অবশ্যই ধর্মকে যুক্ত করতে হবে। কেননা যারা বলেন যে, যুদ্ধ করে মানুষ মেরে শান্তি স্থাপন করবো। আসলে নাশকতা করে কখনো ধর্ম পালন করা হয় না। কোনো ধর্মই মানুষ হত্যাকে সমর্থন করে না। ধর্ম মানুষের নৈতিক জীবনকে নিয়ন্ত্রণ করে।’


বিবার্তা/উজ্জল/হুমায়ুন/মৌসুমী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com