চুলায় যখন গ্যাস থাকে না
প্রকাশ : ০৭ নভেম্বর ২০১৮, ১৮:১৪
চুলায় যখন গ্যাস থাকে না
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

গ্যাস না থাকায় রান্না করা সম্ভব হচ্ছে না - এমন সমস্যা বাংলাদেশে নতুন নয়। কিন্তু চুলায় গ্যাস না থাকলেও পরিবারের প্রতিদিনের রান্না তো করতেই হবে। তাই বিভিন্ন উপায়ে গ্যাসসঙ্কটের সমাধান খোঁজার চেষ্টা করেছেন রাজধানী ঢাকার বাসিন্দারা।


১. কেরোসিনের চুলা
গ্যাসসঙ্কটে পড়া অনেকে কোরোসিনের চুলা ব্যবহার করছেন। ঢাকার লালবাগের বাসিন্দা সাদিয়া আরমান নিজের ব্যবহারের কেরোসিনের চুলার ছবি দিয়েছেন তাঁর ফেসবুক অ্যাকাউন্টে আর মন্তব্য করেছেন, "লালবাগে এখন সবাই কিনছে। দুদিন ধরে গ্যাস নেই।"


২. গ্যাস সিলিন্ডার
রাজধানী ঢাকাসহ অনেক জায়গাতেই ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য গ্যাস সিলিন্ডারের জনপ্রিয়তা বেড়েছে।


রাজধানীর কিছু এলাকায় গ্যাসসংযোগ না থাকায় বাসাবাড়িতে বহনযোগ্য গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহার করে রান্না করতে হয় ওসব এলাকার বাসিন্দাদের। তবে অনেক বাসাতে গ্যাস সংযোগ থাকলেও জরুরি প্রয়োজনের কথা মাথায় রেখে গ্যাস সিলিন্ডার রাখেন অনেকেই।


ঢাকার গোরান এলাকার একজন গৃহিণী নুসরাত শিখা বলেন, "কখন গ্যাস থাকবে আর কখন থাকবে না, সেই অনিশ্চয়তায় যেন দৈনন্দিন রান্নাবান্নার কাজ ব্যাহত না হয়, তাই একটি গ্যাস সিলিন্ডার সবসময় বাসায় রাখি।"


৩. বৈদ্যুতিক চুলা
দেশের বিভিন্ন এলাকায় একসময় রান্নার কাজে ব্যবহার করা হতো ইলেকট্রিক হিটার। বর্তমানে সেসব ইলেকট্রিক হিটার দেখা না গেলেও তার জায়গা নিয়েছে বিদ্যুত চালিত ইন্ডাকশন বা ইনফ্রারেড চুলা।


অবশ্য বিদ্যুতের ওপর বাড়তি চাপ সৃষ্টি করায় বাসাবাড়িতে এই ধরনের চুলা ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল বিদ্যুত বিভাগ।


তবে গ্যাসসঙ্কট মোকাবেলা করতে বাধ্য হয়েই ঘরে বৈদ্যুতিক চুলা রাখেন অনেকেই। যেমন, বাড্ডার বাসিন্দা প্রত্যয় সাহা। বাসায় অনেক সময়ই গ্যাস থাকে না বিধায় একটি বৈদ্যুতিক চুলা কিনে রেখেছেন। তিনি জানান, "সাধারণত সকাল ৬টার মধ্যেই সব রান্না করে রাখার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু নানা কাজে থাকায় তা সবসময় সম্ভব হয়ে ওঠে না। তাই প্রয়োজনে ছোটখাটো রান্নাগুলো বৈদ্যুতিক চুলায় করে থাকি।"


৪. নির্দিষ্ট সময়ে রান্না
ঢাকার বসুন্ধরা এলাকার বাসিন্দা আসমা উল হুসনা একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী। তিনি জানান, "সবসময় গ্যাস পাওয়া যায় না বলে নির্দিষ্ট সময়ে রান্নাবান্নার কাজ শেষ করে রাখার চেষ্টা করি আমরা। এলাকায় আগে থেকে ঘোষণা করে দেয়া হয় কখন গ্যাস থাকবে না। সেই অনুযায়ী রান্নাবান্না শেষ করে রাখি আমরা।''


তবে কোন সময়ে গ্যাস পাওয়া যাবে তা আগে থেকে জানিয়ে রাখলেও অনেক পরিবারের পক্ষেই সেসময় রান্না করা সম্ভব হয়ে ওঠে না। যেরকম বলছিলেন রাজধানীর খিলগাঁও এলাকার বাসিন্দা লাইলি বেগম -"চাকরিজীবি গৃহিণী হওয়ায় গ্যাস পাওয়া যাওয়ার সময়ের সাথে মিলিয়ে রান্না করতে পারি না অনেকসময়ই। কখনো কখনো এমনও হয়েছে মাঝরাতে ঘুম থেকে উঠে রান্না শেষ করে রাখতে হয়েছে।"


৫. আর কোনে উপায় না থাকলে...সবাই মিলে পিকনিক!
ঢাকায় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরিরত জুনায়েদ পাইকার ঢাকার খিলক্ষেতে কনকর্ড লেক সিটি কমপ্লেক্সে থাকেন। মঙ্গলবার রাতে বাসায় পৌঁছে তিনি আবিষ্কার করেন যে বাসায় গ্যাস নেই। তার কয়েকজন আত্মীয় থাকেন ঐ কমপ্লেক্সেরই কয়েকটি বাসায়। কাজেই সবাইকে নিয়ে একসাথে ঘরোয়া পিকনিক আয়োজন করার পরিকল্পনা করেন তিনি।


জুনায়েদ বলেন, "কাজ থেকে বাসায় ফিরে যখন দেখি যে গ্যাস নেই, তখন সবার সাথে আলোচনা করে লাকড়ি যোগাড় করে বাসার সামনে নিজেরাই রান্নার ব্যবস্থা করে ফেলি; অনেকটা পিকনিকের মতো।"


তিনি মনে করেন, তাদের এই আয়োজন প্রতিবেশীদের মধ্যেও আগ্রহ তৈরি করেছে।


তাদের এই আয়োজনে উদ্বুদ্ধ হয়ে গ্যাস সঙ্কট চলাকালীন সময় এমন পিকনিক আয়োজন করতে পারেন আপনিও। সূত্র : বিবিসি


বিবার্তা/হুমায়ুন/মৌসুমী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com