শরতের স্নিগ্ধতায় পূজার সাজ
প্রকাশ : ১৪ অক্টোবর ২০১৮, ১২:৪২
শরতের স্নিগ্ধতায় পূজার সাজ
মডেল: জাকিয়া ইমি
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

কোখনো গাঢ় নীল আকাশ, খানিকটা পরে আবার সোনা ঝরা রোদ, এরকমি পালাক্রমে রোদ্রু ছায়ার খেলা। দক্ষিণ দিক হতে উত্তরে শিমুলের তুলোর মতো ভেসে চলা সাদা মেঘের ভেলা, নদীর দুধারে মৃদু মৃদু প্রিয়ার গন্ধমাখা বাতাসে দোল খাওয়া সাদা সাদা কাশফুল, দুর আকাশে সাদা বকের সাড়ি, হাজারো পাখ-পাখালির অসংখ্য দল, আনন্দে ডানা মেলে আকাশের উজ্জ্বল নীলিমার হারিয়ে যাওয়া।শামুক ভাঙা পাখির ডানায় সোনালী রোদের মায়াবী খেলা।


এমন মনমাতানো দৃশ্য শুধু এক ঋতুতেই চোখে পড়ে। সে হল ঋতুর রাণী শরৎ। বর্ষাকন্যা অশ্রু চোখে বিদায় নেয় শ্রাবণের আগমনে। ভাদ্রের চোখে সূর্য মিষ্টি আলোর স্পর্শ নিয়ে প্রকৃতির কানে ঘোষণা করে দেয় শরতের আগমনী বার্তা। প্রেম পূজারী ঋতু I ভালোবাসার প্রতিক ঋতু ।


এক কথায় বলতে গেলে শরতের স্নিগ্ধতা অসাধারণ। জলশূন্য শুভ্র মেঘের ভেলা যখন নীল আকাশে নির্জন পদসঞ্চার করে তখন বুঝাযায় শরৎ এসেছে। শরতকালে নদীর কূলঘেষে ফুটে থাকা কাশফুলে মুগ্ধ হয় না, এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া খুবি দুষ্কর। শরৎ মানেই কাশফুল আর কাশফুল মানেই নদীর বুকে অজশ্র ঢেউয়ের খেলা। গাছে শাখায় শিউলির মন-ভোলানো সুবাসে প্রকৃতি হয়ে উঠে লাবন্যময়।শিউলি তলায় শিশিরে ভেজা ফুল ,দূর্বাঘাসের ওপর চাদরের মত বিছিয়ে থাকে সাদা আর জাফরন রং মেশানো রাশি রাশি শিউলিফুল। শরৎকে পেয়ে প্রকৃতিযেন ফিরেপায় নতুন যৌবন। তাইতো নদীর বুকে ভেষে চলা নৌকার মাঝি গেয়ে ওঠে ভাওয়াইয়া, ভাটিয়ালি মুর্শিদি গান।


আর বছর ঘুরে এসে গেছে দুর্গা পূজা। মহাসমারোহে চলছে পূজার আয়োজন। কেনাকাটাও প্রায় শেষের দিকে। এবার বাকি শুধু সাজসজ্জা। নিজেকে কীভাবে সাজাবেন পূজার পাঁচ দিন সেটা ভেবেছেন তো?


এই স্নিগ্ধতা ছড়িয়ে পরে মনে, পোশাকে ও সাজে। স্নিগ্ধ সাজেই শুরু হোক শরতের দিনগুলো। পোশাকে সাদার ছোঁয়া আর সাজে চাই পরিপাটি ভাব। হালকা মেকআপের এই লুকে আপনি হয়ে উঠবেন অসাধারণ।



শরতের স্নিগ্ধতা ফুটিয়ে তুলতে পারেন পোশাকেও। পূজার সাজ শাড়ি ছাড়া অপূর্ণ থেকে যায়। তাই সকালের সাজে সাদা কিংবা অন্য যে কোনো প্যাস্টেল শেড বেছে নিতে পারেন। এক্ষেত্রে সুতি অথবা জামদানি শাড়িতেই বেশি আরাম পাওয়া যাবে। রাতের জন্য বেছে নিতে পারেন হাফ-সিল্ক, সিল্ক বা কাতান। রাতের পোশাকের রঙটা কিন্তু উজ্জ্বল হওয়া চাই। গাঢ় নীল, মেরুন, লাল, কফি, বেগুনী, কমলা ইত্যাদি রঙ বেছে নিতে পারেন রাতের জন্য। তবে দশমীর জন্য লাল পাড়ের সাদা শাড়িতে নিজেকে ট্র্যাডিশনাল সাজে সাজিয়ে তুলতে পারেন। শাড়িটা জরি পাড়ের হলে আরও জমকালো দেখাবে। যারা শাড়িতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন না তারা বৈচিত্র্যময় কাটের টপস কিংবা গাউন বেছে নিতে পারেন।


পোশাকের সঙ্গে মেকআপটাও মানানসই হওয়া চাই। দিনের সাজটা হালকা রাখুন। ভারী ফাউন্ডেশন ব্যবহার না করাই ভালো দিনের বেলা। গরমে মেকআপ নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে এতে। তাই হালকা পাউডার বেজড মেকআপ ব্যবহার করুন দিনে। কন্ট্যুরিং করতে ভুলে গেলে চলবে না। চোখের মেকআপ হালকা রেখে লিপস্টিকটা একটু উজ্জ্বল শেডের ব্যবহার করতে পারেন। সকালের মেকআপে হাইলাইটার কিংবা ব্লাশন ব্যবহারের প্রয়োজন নেই। তবে রাতের সাজে ফাউন্ডেশন দিয়ে বেজ মেকআপ করুন। চোখের মেকআপটাও একটু জমকালো হওয়া চাই। সাথে অবশ্যই হাইলাইটার ও ব্লাশন থাকবে। পূজার সাজে টিপ দিতে ভুলে গেলে কিন্তু চলবে না।


সাজের সঙ্গে গহনা না পরলে চলে? পূজার সাজে দিনের মেলা শাড়ির সঙ্গে লম্বা চেইন বা মালা পরতে পারেন। গলায় হালকা গহনা পরলে কানে ছোট ঝুমকা মানিয়ে যাবে। সাথে কাঁচের চুড়ি পরলে দারুণ লাগবে দেখতে। আর রাতের সাজে একটু জমকালো গহনা পরুন। গলায় চিক পরলে স্টাইলিশ দেখাবে। হাত ভরে মেটালের চুড়ি পরতে পারেন। এতে সাজে আভিজাত্য ফুটে উঠবে। নানান ডিজাইনের নথ পাওয়া যায় এখন। দশমীর দিন নাকে একটি নথ পরে ফেলতে পারেন। সাজে বৈচিত্র্য আসবে এবং প্রশংসাও পাবেন।


পূজার পোশাকের সঙ্গে জুতা বাছাই করার সময় আরামের কথাও ভাবতে হবে। পূজা মণ্ডপে যাওয়ার জন্য যদি অনেকটা হাটার প্রয়োজন হয়, তাহলে হিল এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। রাতের দাওয়াতে যাওয়ার জন্য বেছে নিতে পারেন মানানসই হিল জুতা।


তবে পূজা ছাড়াও শরতের আছে নিজস্ব বর্ণ আর গন্ধ। বেছে নিতে পারেন সাদা, নীল, সবুজ আর সোনালি রং। শরত যেন আবার নানান রংয়ের ছড়াছড়ি। শরতের আবহাওয়াতে চলে লুকোচুরি খেলা। এই গরম, যে কোনো মুহূর্তেই শুরু হয় ঝমঝম বৃষ্টি। তাই পোশাকের রঙের ক্ষেত্রে নীল এবং সবুজ রংয়ের কম্বিনেশনও দারুণ মানাবে। পাশাপাশি লাল আর কমলার ব্যবহার তো সর্বত্রই গ্রহণযোগ্য। অনেকের কাছেই, রংয়ের ক্ষেত্রে শরৎ মানেই হালকা কিছু। আর তাই শরতের নীল এবং বেগুনির পাশাপাশি সাদা, সবুজ, টিয়া, কমলা, হালকা কালো প্রভৃতি রঙের পোশাকও দারুণ মানানসই।


বিবার্তা/শারমিন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com