ব্যক্তিগত ও পরিবেশগত স্বাচ্ছন্দ্যেই পুরুষের পোষাক
প্রকাশ : ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২০:১২
ব্যক্তিগত ও পরিবেশগত স্বাচ্ছন্দ্যেই পুরুষের পোষাক
মডেল : আমির পারভেজ
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

বর্তমান যুগে শুধুমাত্র মেয়েরাই ফ্যাশন সচেতন নন। ছেলেরাও বেশ ফ্যাশন সচেতন হয়ে উঠেছেন। তবে ফ্যাশন সচেতন ছেলে বলতে এটা বুঝায় না যে তারা ব্র্যান্ডের পোশাক ছাড়া কাপড় এবং ব্র্যান্ডের এক্সেসরিজ ব্যতিত কিছু ব্যবহার করতে চান না। একটু বুদ্ধি খাটিয়ে হাতের কাছে পাওয়া নানা জিনিস এবং কম খরচেও অনেক ফ্যাশনেবল হয়ে ওঠা যায়। তাই পয়সা খরচ করে নয় মাথা খাটিয়ে ফ্যাশনেবল হয়ে উঠুন।


পুরুষের ফ্যাশন কীভাবে হয়? ৬ ফুট উচ্চতা, সিক্স প্যাক বডি দিয়ে। নাকি স্বাচ্ছন্দ্যে? উত্তরটা আসলে আপনার কাছেই। নারী- পুরুষের সৌন্দর্যের সংজ্ঞা এখন বেঁধে দিয়েছে বাজার। বাজারে চলতি ট্রেন্ড ঠিক করে দেয় কেমন দেখাবে আপনাকে। তবে পুরুষের সৌন্দর্য ও ফ্যাশন নির্ভর করে নিজের ওপরই।



কোন পুরুষ যদি ফ্যাশনেবল হতে চায়, তাহলে তাকে কিছু বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে। যেমন, কোন জিনিসগুলো তার সাথে মানায় কিংবা কোন ধরণের পোষাক পরলে তাকে ভালো দেখাবে এই বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে। অনেক ছেলেই মনে করে দামী পোষাক কিংবা দামী পারফিউম তার ব্যক্তিত্বকে আরো ধারালো করে তোলে, যা সম্পূর্ণই ভুল ধারণা।


আপনার ব্যক্তিত্বের সঙ্গে যায়, এমন পোষাক নির্বাচন করুন। পোষাকটি যেন আপনার মাপমতো এবং আরামদায়ক হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন। আপনার বয়স কম নাকি বেশি সেটি এখানে কোন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নয়।



কেবলমাত্র ফ্যাশন করার জন্য কোন পোষাক পরবেন না, যে পোষাকটি আপনাকে মানায় সেই পোষাকটিই পরুন। ফ্যাশনের ক্ষেত্রে ২টি বিষয়ে লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন। একটি ব্যক্তিগত স্বাচ্ছন্দ্য, অন্যটি পরিবেশগত স্বাচ্ছন্দ্য। আপনার ফ্যাশন এমন হওয়া উচিত যা আপনার আশপাশের মানুষের চোখে বিরক্তির সৃষ্টি না করে।


রবীন্দ্রসঙ্গীতের অনুষ্ঠানে যেমন ডিজে পার্টির পোশাক পরে যেতে পারবেন না। তেমন বিয়ের পোশাক পরে অফিসেও যাওয়া যাবে না। পেশা, শিক্ষা ও মানে ফ্যাশন ভাগ হবে। ব্যবসায়ী হলে একরকম পোশাক। কর্পোরেট কর্মকর্তা হলে একরকম আবার যখন সে কবি সাহিত্যিক তখন আরেকরকম।


পুরুষের ফ্যাশন কেমন হতে পারে নিচের উল্লেখ্য বিষয়গুলো দেখে নিতে পারেন।



আপনাকে যে পোশাকে বা লুকে মানাচ্ছে সেটিই আপনার ফ্যাশন। বাজার চলতি ট্রেন্ডে গা ভাসাবেন না। ট্রেন্ড বদল করে যদি আপনাকে মানায় তাহলেই সেই ফ্যাশন আপনার।


ফ্যাশনের ধরাবাঁধা কোনো নিয়ম নেই। ফ্যাশন শুধু পোশাকে নয়, ফ্যাশন রয়েছে ব্যক্তিত্বেও। আপনি সুন্দর পরিপাটি করে পোশাক পড়ে আজেবাজে কথা বলছেন, গালিগালাজ করছেন, সেক্ষেত্রে ফ্যাশন ওখানেই শেষ। আপনার ব্যক্তিত্বই আপনাকে করে তুলবে সুন্দর পুরুষ।


পরিপাটি থাকাটা ফ্যাশনের আওতায় পড়ে না। সুন্দর করে চুল আঁচড়ানো, নিজের ত্বকের যত্ন নেওয়া, শেভ করা এগুলো ব্যক্তিগত পরিচ্ছন্নতার বিষয়। সুস্থ থাকতে এগুলো করতেই হবে।


পুরুষের সৌন্দর্য পুরুষালি আচরণে। পুরুষ হয়ে সিগারেট, মদ খাওয়া ও নারীর সঙ্গে দুর্ব্যবহার কিন্তু পুরুষালি আচরণ নয়। পুরুষের সৌন্দর্য মানে একজন পুরুষের সুস্থ শরীর, ইতিবাচক আচরণ এবং তার ব্যক্তিত্ব।


তবে নিজেই একবার বিবেচনা করে দেখতে পারেন। কেমন হতে পারে আপনার ফ্যাশন ও সৌন্দর্য।


ফ্যাশনের জগৎটা কেবলমাত্র মেয়েদের জন্যেই তা কিন্তু নয়। সময়ের সাথে সাথে সবকিছুই বদলায়। এখনকার দিনে ছেলেরাও মেয়েদের সাথে পাল্লা দিয়ে ফ্যাশনের ব্যাপারে সচেতন হয়ে উঠছে এবং এগিয়ে চলছে সামনের দিকে চুলের স্টাইল, পোষাক, জুতো, রোদচশমা ইত্যাদি সব ব্যাপারেই ছেলেরা এখন আগের চাইতে অনেক বেশি সচেতন। ছেলেদের ফ্যাশনও এখন সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।


বিবার্তা/শারমিন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com