হাতের পরিচর্যা
প্রকাশ : ১২ নভেম্বর ২০১৭, ১৮:১০
হাতের পরিচর্যা
লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

মুখের মতো হাতের ত্বকও অনেক স্পর্শকাতর। রুক্ষতার এই সময়টাতে হাতের চাই বাড়তি যত্ন। শুধু মুখের ত্বক সুন্দর করতেই আমরা ব্যস্ত। মনে রাখবেন, হাতের থেকে মুখের ত্বক আলাদা হলে দেখতে বেমানান লাগে। প্রতিদিনের পরিচর্যা হাতের ত্বককে সুন্দর রাখতে সাহায্য করে।


দিনের একদম শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ছোট থেকে বড় সকল কাজের জন্য আমরা প্রতিনিয়ত ব্যবহার করছি আমাদের দুটি হাত। যে কারণে প্রয়োজন নিয়মিতভাবে হাতের সঠিক পরিচর্যা ও যত্ন।


চুল কিংবা মুখের যত্ন তো প্রতিনিয়তই নেওয়া হচ্ছে। এর মাঝে হাত দুইটির যত্ন নেওয়ার কথা ভুলে যাচ্ছি না তো আমরা সবাই? জেনে নিন তাহলে কীভাবে নিয়মিত ঝামেলা ছাড়াই হাতের যত্ন নেওয়া যায়!


ময়েশ্চারাইজার


ভালো মানের একটি ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম প্রতিদিনে তিনবার ব্যবহার করতে হবে। গরমের সময়ে হালকা ধাঁচের ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করলেও শীতকালে একটু ভারী ঘরানার ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে।


মেনিকিউর


মুখের ত্বকের মতো হাতের ত্বকেও মরা চামড়া জমে থাকে। তাই প্রতি মাসে অন্তত একবারের জন্য মেনিকিউর করে ফেলুন পরিচিত ভালো কোন পার্লার থেকে। এতে করে হাতের ত্বক পরিষ্কার হবে এবং উজ্জ্বল হবে।


কুসুম গরম পানি


শুধুমাত্র শীতকালেই নয়, সারা বছর ধরেই হাত ধোয়ার সময়ে কুসুম গরম পানি ব্যবহার করার চেষ্টা করতে হবে। কারণ অতিরিক্ত গরম পানি কিংবা অতিরিক্ত ঠাণ্ডা পানি হাতের ত্বকের উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে দেয়।


স্ক্রাব করুন


প্রতি সপ্তাহে অন্তত একবার হাতের ত্বক স্ক্রাব করলে খুব সহজেই হাতের ত্বকের পরিষ্কার উজ্জ্বলভাব খেয়াল করতে পারবেন। দোকানের কোন স্ক্রাব ব্যবহার করার প্রয়োজন নেই একেবারেই। ঘরেই তৈরি করে নিন হাতের জন্য স্ক্রাব। এর জন্য আপনার প্রয়োজন হবে এক চিমটি চিনি, এক চামচ অলিভ অয়েল এবং আধা চামচ লেবুর রস। তিনটি উপাদান একসঙ্গে মিশিয়ে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে হাতের জন্য চমৎকার স্ক্রাব।


ম্যাসাজ


রাতে ঘুমানোর সঙ্গে যখন ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম হাতে ব্যবহার করবেন তখন পাঁচ মিনিট সময় নিয়ে হাতে ম্যাসাজ করুন। এতে করে ত্বকে রক্ত চলাচল ভালো হয়। ময়েশ্চারাইজিং ক্রিমের পরিবর্তে ভ্যাসলিনও ব্যবহার করা যাবে স্বাচ্ছন্দ্যে।


হাতকে সুরক্ষিত রাখুন


থালাবাসন ধোয়ার সময়ে অবশ্যই হাতে গ্লাভস পরে নিতে হবে। যদিও এই প্রথা এখনও আমাদের দেশে প্রচলিত নয়, তবে অনেকেই ব্যবহার করা শুরু করেছে। ডিশ ওয়াশার প্রচণ্ড ক্ষারীয় পদার্থ বলে সেটা হাতের ত্বক ও নখের ওপরে মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে দেয়।


নখের আশেপাশের চামড়ার খেয়াল


অনেক সময় নখের আশেপাশের চামড়া অতিরিক্ত শুকিয়ে উঠে যায়। যার ফলে প্রচুর ব্যথার সৃষ্টি হয়। শীতকালে সাধারণত এর প্রাদুর্ভাব বেশী দেখা দেয়। এর থেকে পরিত্রান পাওয়ার জন্য কয়েক ফোঁটা গ্লিসারিন মোলায়েমভাবে নখের চারপাশে লাগিয়ে ঘুমিয়ে যেতে হবে। সকালে উঠে কুসুম গরম পানি দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলার পর দেখা যাবে চামড়া একদম নরম হয়ে গিয়েছে।


সঠিক খাদ্যাভাস


সকল পরিচর্যার পাশাপাশি শরীর যদি ভেতর থেকে পুষ্টি না পায়, তবে সকল প্রচেষ্টাই বৃথা। সে কারণে প্রোটিন, ভিটামিন-বি, ই যুক্ত খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে এবং সবজী জাতীয় খাদ্য প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় যোগ করতে হবে।



বিবার্তা/শারমিন

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com