বঙ্গবন্ধুকন্যার মতো মানুষের ভালোবাসায় বেঁচে থাকতে চাই : শিহাব
প্রকাশ : ২৩ অক্টোবর ২০১৭, ১৭:০৭
বঙ্গবন্ধুকন্যার মতো মানুষের ভালোবাসায় বেঁচে থাকতে চাই : শিহাব
তৌফিক ওরিন
প্রিন্ট অ-অ+

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক এবং বরগুনা জেলা জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মসিউর রহমান শিহাব। জন্ম ও বেড়ে ওঠা বরগুনার একটি রাজনৈতিক পরিবারে। ছোটবেলা থেকেই সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষের জন্য কিছু করার চিন্তা ছিল তার। সে কারণে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র থাকাকালে সক্রিয় হন ছাত্রলীগের রাজনীতিতে। পরবর্তীতে বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য নির্বাচিত হন।


রবিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ইস্কাটনের তার নিজস্ব কার্যালয়ে সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয়ে কথা হয় বিবার্তার সঙ্গে। সাক্ষাতকারটি নিয়েছেন বিবার্তার নিজস্ব প্রতিবেদক তৌফিক ওরিন।


বিবার্তা : আপনার রাজনীতিতে আসার গল্পটা কেমন?


মসিউর রহমান শিহাব : আমি দীর্ঘ সময় ধরে আওয়ামী লীগের সঙ্গে যুক্ত। আওয়ামী লীগের বিরোধী দলে থাকাকালীন বা অন্যান্য সময়ে আন্দোলন-সংগ্রামে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার ডাকে এবং দলের প্রয়োজনে রাজপথে ছিলাম। বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ওতপ্রোতভাবে যেসব পরিবার জড়িয়ে আছে, তাদের মধ্যে আমাদের পরিবার অন্যতম। বীর মুক্তিযোদ্ধা সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম সিদ্দিকুর রহমান বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। তৎকালীন সেই নেতার বড় ভাগ্নের ছেলে হিসেবে তার আদর্শকে বুকে ধারণ করে মানুষের পাশে থেকেছি।


বিবার্তা :বর্তমান আপনার রাজনৈতিক অবস্থানটা কেমন?


মসিউর রহমান শিহাব : আমি বর্তমানে আমি বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন কর্মকাণ্ড জনগণের মাঝে ছড়িয়ে দিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি।



বিবার্তা :শোনা যাচ্ছে আপনি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন?


মসিউর রহমান শিহাব :আমি দীর্ঘ দিন ধরে আওয়ামী লীগের ‍রাজনীতির সাথে জড়িত। মুজিব আদর্শের অনুসারী ও রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার একজন কর্মী হিসেবে বরগুনা-১ অর্থাৎ বরগুনা সদর, আমতলী ও তালতলী উপজেলার মানুষের জন্য শেখ হাসিনার পক্ষে কাজ করতে চাই। আমি গত সংসদ নির্বাচনেও নৌকার মনোনয়ন ফর্ম সংগ্রহ করেছিলাম।


বিবার্তা : আপনি আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে দীর্ঘদিন ধরে যুক্ত। এ হিসেবে আপনি সরকারের কার্যক্রম কিভাবে মূল্যায়ন করবেন?


মসিউর রহমান শিহাব : ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে মহান মুক্তিযুদ্ধ এককথায় দেশের মানুষের অর্থনৈতিক, সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক মুক্তির পাশাপাশি সকল রকম শোষণ, লাঞ্ছনা, বঞ্চনা, অন্যায়, অবিচার, জেল জুলুম হুলিয়ার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যুগে যুগে ভূমিকা রেখে এসেছে। আমার ক্ষুদ্র অভিজ্ঞতা বলে, এই দল যখন ক্ষমতায় থাকে তখন এদেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নতি ঘটে। জন্মলগ্ন থেকে শুরু করে ৬৮ বছরের গৌরবময় ইতিহাস সেই সত্যের স্বাক্ষর বহন করে চলছে। দেশ এখন স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পরিচালিত হচ্ছে আর উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলছে।



বিবার্তা : নির্বাচনকে সামনে রেখে আপনি এলাকায় কেমন ধরণের কাজ পরিচালনা করছেন?


মসিউর রহমান শিহাব : আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য ধীরে ধীরে প্রস্তুতি নিচ্ছি আমি। এ লক্ষ্যে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের চিত্র আমার নির্বাচনী এলাকা বরগুনা-১ সদর আসনের প্রতিটি গ্রামগঞ্জের মানুষের কাছে তুলে ধরতেই বাড়ি-বাড়ি উঠান বৈঠকের পাশাপাশি তাদের সুখে-দুঃখে তাদের পাশে থাকছি। সাধারণ ভোটারদের বোঝাতে চেষ্টা করেছি যে, আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকলে দেশের কি কি উন্নয়ন হয়, আর আওয়ামী লীগ সরকার রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় না থাকলে দেশের ও জনগণের কি কি দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এছাড়া আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকায় সার্বিকভাবে দেশের যে সব উন্নয়ন হয়েছে, তা আমি দেশের গ্রাম-গঞ্জের প্রতিটি মানুষের কাছে তুলে ধরার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি দিনরাত।


এছাড়া ব্যক্তিগতভাবে আমি বিভিন্ন সামজিক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত। আমার এলাকায় স্কুল, কলেজ বা মাদ্রাসায় পড়ালেখা করে এমন শিক্ষার্থী রয়েছে যারা আর্থিক সংকটে তাদের পাঠ কার্যক্রম নিয়মিত পরিচালনা করতে পারে না, তাদের ব্যক্তি উদ্যোগে সহায়তা করি।


বিবার্তা : সম্প্রতি আওয়ামী লীগ উঠান বৈঠকের উপর বেশ জোর দিচ্ছে। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাও উঠান বৈঠকের বিষয়ে খোঁজখবর নিচ্ছেন বলে গণমাধ্যমে খবর এসছে। উঠান বৈঠক আগামী নির্বাচনে কেমন প্রভাব ফেলবে বলে আপনি মনে করেন?


মসিউর রহমান শিহাব : সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের খবর সাধারণ মানুষের মাঝে পৌঁছে দিতে সভা-সমাবেশের চেয়ে উঠান বৈঠক বেশি কার্যকর। এর মাধ্যমে নিজের নির্বাচনী এলাকায় প্রচার প্রচারণায়ও এগিয়ে থাকা যাবে। এতে করে নৌকার পক্ষে নির্বাচনের প্রচারণা যেমন হবে, তেমনি সরকারের উন্নয়ন চিত্রও সাধারণ ও খেটে খাওয়া মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়া যাবে। বর্তমানে ভোটের রাজনীতিতে অনলাইন ও নির্বাচনী এলাকায় উঠান বৈঠক অনেক বেশি কার্যকর ও ফলপ্রসূ বলে আমি মনে করি।


বিবার্তা : বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতা বিভিন্নভাবে নিজেকে জনগণের সামনে উপস্থাপন করেন। আপনি নিজেকে কেমনভাবে জনগণের কাছে উপস্থাপন করছেন?


মসিউর রহমান শিহাব : সবাই রাজনীতির মাধ্যমে সুবিধা গ্রহণ করে, কিন্তু আমি রাজনীতির মাধ্যমে মানুষের সুবিধা প্রদান করতে চাই। ভোগে নয়, আমি ত্যাগে বিশ্বাসী। অসহায় মানুষদের পাশে থাকাই আমার কাজ। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে নিজেকে গড়ে তুলেছি। যতদিন বেঁচে আছি বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার মতো মানুষের ভালোবাসায় বেঁচে থাকতে চাই।


বরগুনা-১’র মাটি ও মানুষ আমার প্রাণ। প্রতিটি মূহুর্তেই আমার চিন্তা ও স্বপ্ন বরগুনার উন্নয়ন, বরগুনার অবহেলিত মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন। আমার যতই বিপদ আসুক না কেন, দক্ষিণবঙ্গের অবহেলিত এই আসনটির উন্নয়নের জন্য আমি চেষ্টা করে যাবো জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে। মানুষের ভালোবাসা ও দোয়াই আমার পথ চলার শক্তি।


বিবার্তা/ওরিন/হুমায়ুন/মৌসুমী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com