পরমাণু চুক্তি রক্ষায় ইরানের সাথে আলোচনা শুরুর সম্ভাবনা
প্রকাশ : ০৭ জুলাই ২০১৯, ১৪:৩৭
পরমাণু চুক্তি রক্ষায় ইরানের সাথে আলোচনা শুরুর সম্ভাবনা
ফাইল ছবি
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

ইরানের সাথে পারমাণবিক চুক্তি রক্ষায় কি ধরনের শর্ত নিয়ে আবার আলাপ শুরু করা যায়, তা নিয়ে ফ্রান্স ও ইরান একমত হয়েছে বলে জানিয়েছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের ইম্যানুয়েল ম্যাক্রোঁ।


এ বিষয়ে তিনি শনিবার রাতে ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে আধাঘণ্টার বেশি সময় ধরে টেলিফোনে কথা বলেছেন।


এর ফলে তেহরান পারমাণবিক চুক্তি রক্ষায় নতুন করে আলোচনা শুরুর সম্ভাবনা তৈরি হল।


প্রেসিডেন্ট রুহানির সঙ্গে টেলিফোনে এই আলাপের সময় ম্যাক্রোঁ উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, ইরানের সাথে পরমাণু চুক্তিটি পরিত্যক্ত হলে তার অবশ্যই একটি গুরুত্বপূর্ণ পরিণতি তৈরি হবে।


তিনি বলেন, শুরু থেকেই ফ্রান্স সরকার পরমাণু সমঝোতা থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়ার বিরোধিতা করে এসেছে। ইউরোপীয় ইউনিয়ন পরমাণু সমঝোতা রক্ষা করতে চায় এবং প্যারিস এ লক্ষ্যে তার সর্বশক্তি নিয়োগ করেছে।


এ সময় ফরাসি প্রেসিডেন্ট পরমাণু সমঝোতা রক্ষা করার লক্ষ্যে আবার আলোচনায় বসার প্রস্তাব দিলে রুহানি বলেন, ইরানের ওপর থেকে সব নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হলে ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে আবার ইরানের আলোচনা শুরু হওয়ার ক্ষেত্র সৃষ্টি হতে পারে।


তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সর্বাত্মক চাপ, হুমকি ও নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ইরান গত ১৪ মাস ধরে কৌশলগত ধৈর্য অবলম্বন করে একতরফাভাবে পরমাণু সমঝোতা মেনে চলেছে। কিন্তু এখন সে ধৈর্যের সীমা শেষ হয়ে এসেছে।


ইরানের পরমাণু সমঝোতায় ইউরোপের পক্ষ থেকে দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তেহরানের পক্ষ থেকে দেয়া ৬০ দিনের আল্টিমেটাম শেষ হওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগে এ টেলিফোন সংলাপ অনুষ্ঠিত হলো।


টেলিফোন সংলাপের পর ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের ম্যাক্রোরঁ কার্যালয় থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, পারমাণবিক চুক্তিটি রক্ষায় সব পক্ষের সাথে আবার আলাপ শুরু করতে কি ধরনের শর্ত থাকতে পারে সে নিয়ে ১৫ জুলাই তারিখের মধ্যে বিশ্লেষণ শেষ করবে ইরান ও ফ্রান্স। বিষয়টি নিয়ে ম্যাক্রোঁ সব পক্ষের সাথে পরামর্শ করবেন।


২০১৫ সালে ইরানের পরমাণু কর্মসূচি কমিয়ে আনার জন্য বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশগুলোর সাথে একটি চুক্তি হয়েছিল। শর্ত ছিল ইরান তার পরমাণু কর্মসূচি কমিয়ে আনার বিনিময়ে তার উপর দেয়া অবরোধ ধীরে ধীরে তুলে নেয়া হবে।


সেই শর্ত রক্ষা করতে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার জন্য প্রেসিডেন্ট রুহানির ইউরোপের দেশগুলোর প্রতি আহবান জানান।


গত বছর যুক্তরাষ্ট্র এই চুক্তি থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নেয়ার পর থেকে চুক্তিটি পরিত্যক্ত হওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়েছে। চুক্তি থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নেয়ার পর ইরানের উপর কঠোর শাস্তিমূলক অবরোধ আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র।


মে মাসে ইউরেনিয়াম মজুদ বাড়িয়ে ইরান এর জবাব দেয়। ইরান এই ইউরেনিয়াম পারমাণবিক রিঅ্যাক্টরের জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করে। তবে তারা পারমাণবিক বোমা তৈরি করছে বলে সন্দেহ রয়েছে।


চুক্তি অনুযায়ী ইরান পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করা যায় এই মানের সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মজুদ করতে পারবে না। কিন্তু যতটুক ইউরেনিয়াম ইরান মজুদ করতে পারবে তার বেশি ইতোমধ্যেই দেশটির কাছে এখন আছে এবং এর পরিমাণ আরো বাড়ানো হবে বলে ইরানের কাছ থেকে ঘোষণা আসতে পারে। সূত্র: বিবিসি ও পার্সটুডে


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com