সিরিয়ায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৫০, জাতিসংঘের উদ্বেগ
প্রকাশ : ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১৫:১৯
সিরিয়ায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৫০, জাতিসংঘের উদ্বেগ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস বলেছেন, সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কের উপকণ্ঠে পূর্ব গৌটায় সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ায় তিনি ‘গভীরভাবে শঙ্কিত’। সেখানে সরকারি বাহিনীর বিমান হামলায় অন্তত ২৫০ জন নিহত হওয়ার পর তিনি এ শঙ্কা প্রকাশ করলেন।


কয়েকদিনের বিমান হামলায় নিহতদের মধ্যে অন্তত ৫০ শিশু রয়েছে এবং আহত হয়েছে অন্তত এক হাজার ২০০ জন।


এদিকে সিরিয়ায় নিযুক্ত জাতিসংঘের সমন্বয়ক প্যানোস মোমতাজিস বলেছেন, সিরীয় বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এই এলাকাটির অবস্থা কল্পনার বাইরে। সরকারি বাহিনীর বিমান হামলায় এলাকাটিতে চরম ভোগান্তির সৃষ্টি হয়েছে।


সিরিয়ার সেনাবাহিনী বলেছে, তারা এলাকাটি সন্ত্রাসীদের কাছ থেকে মুক্ত করার চেষ্টা করছে।


গুতেরেস বেসামরিক নাগরিক রক্ষাসহ মানবিক আইনের মূল নীতি সমুন্নত রাখতে সকল পক্ষের প্রতি আহবান জানান।


জাতিসংঘ মুখপাত্র স্টিফান দুজারিক বলেন, পূর্ব গৌটায় সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ায় এবং বেসামরিক নাগরিকদের ওপর এর ভয়াবহ প্রভাব পড়ায় জাতিসংঘ মহাসচিব গভীরভাবে শঙ্কিত।



মানবাধিকার বিষয়ক সিরীয় পর্যবেক্ষণ সংস্থা জানায়, মঙ্গলবার বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত পূর্ব গৌটায় সিরিয়া ও রাশিয়ার ব্যাপক বিমান হামলায় কমপক্ষে ১০৬ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে ১৯ শিশু রয়েছে। সেখানে এরআগের দিন সোমবারের বিমান হামলায় সিরিয়ার ১২৭ নাগরিক নিহত হয়।


দুজারিক বলেন, পূর্ব গৌটায় বিমান হামলা ও গোলা বর্ষণের কারণে সেখানকার প্রায় চার লাখ লোক আতংকের মধ্যে রয়েছে। সিরিয়ার সরকারি বাহিনীর অবরোধের কারণে পূর্ব গৌটার বাসিন্দারা অপুষ্টিসহ চরম দূরাবস্থার মধ্যে বসবাস করছে।


গুতেরেস স্মরণ করিয়ে দেন যে পূর্ব গৌটা রাশিয়া, ইরান, তুরস্ক ঘোষিত একটি অস্ত্রবিরতি অঞ্চল হিসেবে আখ্যায়িত। এ ব্যাপারে তিনি সকল পক্ষকে তাদের প্রতিশ্রুতির বিষয়টি মনে করিয়ে দেন।


এদিকে জরুরি মানবিক সাহায্য সরবরাহ ও চিকিৎসার সুযোগ দিতে ৩০ দিনের অস্ত্রবিরতি দাবির খসড়া প্রস্তাবের বিষয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে আলোচনা অব্যাহত রয়েছে।


বিদ্রোহীদের দখলে থাকা সর্বশেষ ঘাঁটিটির নিয়ন্ত্রণ নিতে রাশিয়ার সমর্থনে সিরীয় সরকারপন্থি বাহিনী রবিবার থেকে তাদের অভিযান জোরদার করেছে।


ফিরাস আব্দুল্লাহ নামে এক বাসিন্দা বলেন, ক্ষেপণাস্ত্র ও কামানের গোলা আমাদের উপর বৃষ্টির মতো পড়ছে। লুকিয়ে থাকার কোনো জায়গা নেই এবং এই বোমাবৃষ্টি শেষও হচ্ছে না। আমরা সারাক্ষণ নারী ও শিশুদের চিৎকার ও কান্নার শব্দ শুনতে পাই। সূত্র: এএফপি ও বিবিসি


বিবার্তা/জাকিয়া


>>সিরিয়ায় বিমান হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৯৪

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com