পশ্চিমবঙ্গে রপ্তানি হবে ইলিশ
প্রকাশ : ১৬ আগস্ট ২০১৮, ২২:১৫
পশ্চিমবঙ্গে রপ্তানি হবে ইলিশ
কলকাতা প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

বাধা কাটিয়ে অবশেষে বাংলাদেশ থেকে পশ্চিমবঙ্গে ইলিশ রপ্তানি হতে যাচ্ছে। এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন ভারত-বাংলাদেশ চেম্বার অব কর্মাস অব ইন্ডাস্ট্রিজ’র প্রেসিডেন্ট আবদুল মাতলুব আহমেদ।


বৃহস্পতিবার কলকাতার একটি হোটেল (ওবেরয় গ্র্যান্ড) ‘ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ বিজনেস এক্সলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানে সংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মাতলুব বলেন, ‘ইলিশ মাছ প্রায় তিন চার বছর বন্ধু রয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি যখন বাংলাদেশে গিয়েছিলেন তখন আমি এফবিসিসিআই'র প্রেসিডেন্ট ছিলাম, বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথেও কথা হয়েছে। আমাদের দেশে ইলিশের দামটা হঠাৎ করে বৃদ্ধি পাওয়ায় আমরা ইলিশ রপ্তানিতে বাধা পড়েছিল, কিন্তু বর্তমানে ইলিশের উৎপাদন বেড়ে গেছে। আমরাও আমাদের সংগঠনের তরফে সরকারের কাছে বিষয়টি তুলে ধরেছি যে ইলিশ রপ্তানি শুরু করা হোক। আমরা আশা করবো শিগগিরই ইলিশের ওপর নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবে।’


অনুষ্ঠানে উপস্থিত পশ্চিমবঙ্গের পুর ও নগরায়ন মন্ত্রী ফিরহাদহাকিম জানান, ‘ইলিশ আসলে তো ভালই হয়। আমরা বাংলাদেশের ইলিশ খেতে ভালবাসি। হাসিনার বাড়িতে গিয়ে আমিও ইলিশ খেয়ে এসেছি।’


এদিনের অনুষ্ঠান থেকে বাংলাদেশকে সবচেয়ে কাছের বন্ধু ও স্বাভাবিক বন্ধু হিসাবে আখ্যায়িত করে ফিরহাদ হাকিম বলেন, ‘বাংলাদেশ কেবল প্রতিবেশি দেশই নয়, আমাদের খুব হৃদয়ের কাছে। বাংলাদেশ রাষ্ট্রের সৃষ্টিতে ভারতের গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিল। তাঁদের সংগ্রামই আমাদের সংগ্রাম। বাংলাদেশ সৃষ্টির পর থেকে ওই দেশটির সাথে গভীর সম্পর্ক গড়ে উঠেছে ভারতের। '


দুই বাংলার ভাষা ও সংস্কৃতির মিলের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘দিল্লি ভারতের রাজধানী হলেও বাংলাদেশ থেকে এদেশে ভ্রমণে এসে দিল্লির থেকে কলকাতাকেই তারা বেশি আপন মনে করে। আমরা পশ্চিমবঙ্গবাসীও তাদের এই সঙ্গ দারুভ ভাবে উপভোগ করি।’


ফিরহাদ হাকিম জানান, ‘কিছু মানুষ ধর্ম, জাতি, বর্ণের ভিত্তিতে মানুষের মধ্যে বিভেদ ঘটানোর চেষ্টা করছে কিন্তু যেটা দ্বিপাক্ষিক সম্পকৃ ও বাণিজ্যের ক্ষেত্রে প্রভাব ফেরত পারে। কিন্তু আমরা মানবতায় বিশ্বাসী। লাল ফিতার ফাঁস কাটিয়ে দুই দেশের সীমান্ত বাণিজ্যও দিনের পর দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।


এদিনের অনুষ্ঠানে ভারত-বাংলাদেশ উভয় দেশের দশ জন ব্যক্তিকে দ্য কনফেডারেশন অব ওয়েষ্ট বেঙ্গল ট্রেড অ্যাসোসিয়েশন (সিডব্লিউবিটিএ) ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ বিজনেস এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড ২০১৮ প্রদান করা হয়। যার মধ্যে অন্যতম সাংবাদিক শামিমা আখতার, ভারতের দুরদর্শনের সাংবাদিক স্নেহাশিস সুর, শিল্পপতি হরভজন সিং প্রমুখ।


বিবার্তা/ডিডি/কামরুল

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com