ধর্ষণ এড়াতে মেয়েকে নিয়ে চলন্ত ট্রেন থেকে ঝাঁপ দিলেন মা!
প্রকাশ : ১৪ নভেম্বর ২০১৭, ০৩:৪৬
ধর্ষণ এড়াতে মেয়েকে নিয়ে চলন্ত ট্রেন থেকে ঝাঁপ দিলেন মা!
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

নারীর সম্ভ্রম জীবনের চেয়ে কম কিছু নয়। কখনো কখনো সম্ভ্রম বাঁচাতে জীবনটাও তুচ্ছ জ্ঞান করে সে। এমনি এক ঘটনা ঘটলো ভারতের কানপুর স্টেশনের কাছে। ধর্ষকদের হাত থেকে বাঁচতে চলন্ত ট্রেন থেকে ঝাঁপ দিলেন মেয়ে ও তার মা।


নির্যাতিতা ৪০ বছর বয়সী সেই মা জানান, তারা কলকাতার বাসিন্দা। শনিবার হাওড়া-যোধপুর এক্সপ্রেসে হাওড়া থেকে দিল্লি যাচ্ছিলেন। সেদিন ট্রেনের অসংরক্ষিত কামরায় ১৫ বছরের কিশোরী মেয়েকে নিয়ে উঠেছিলেন তিনি। দিল্লিতে একটি বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত স্বামীর কাছে যাচ্ছিলেন তারা।


তিনি আরও বলেন, ট্রেন হাওড়া ছাড়ার পর থেকেই তার মেয়েকে উত্ত্যক্ত করতে থাকে ১০-‌১৫ জন যুবক। বিষয়টি দু'‌বার ট্রেনে থাকা আরপিএফ কর্মীদের জানিয়েছিলেন তিনি। প্রথমবার এলাহাবাদের আগে এবং পরেরবার এলাহাবাদ পেরোনোর পর।


এরপর এক কনস্টেবল সেই দলের ৩ জনকে ধরেও নিয়ে যায়। কিন্তু আধ ঘণ্টার মাথায় ফিরে আসে ওরা। সম্ভবত পুলিশকে ঘুষ দিয়েই ছাড়া পায় বলে মায়ের অনুমান।


ওদিকে নির্যাতনের শিকার সেই কিশোরী বলেন, এলাহাবাদ ছাড়ার পরেই যুবকরা ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে। তাকে অপহরণ করে বিক্রির হুমকিও দেয় তারা। ‌ রাত ১০টা নাগাদ মেয়েটি শৌচালয় যাওয়ার পথে তার পিছু ধাওয়া করে ৪-‌৫ জন। তার পোশাক ছিঁড়ে ফেলে। ‌ এ সময় মেয়ের আর্তনাদ শুনে ছুটে যান মা। যুবকদের সঙ্গে হাতাহাতি বাধে। কিন্তু যুবকদের সাথে মোটেও সুবিধা করতে পারছিলেন না। শেষে আর কোনো পথ না পেয়ে কানপুর থেকে চান্দেরি স্টেশনের মাঝে মেয়েকে নিয়ে চলন্ত ট্রেন থেকে ঝাঁপ দেন তিনি।


এরপর প্রায় দু'‌ঘণ্টা রেল লাইনের ধারে অচেতন অবস্থায় পড়েছিলেন তারা। জ্ঞান ফেরার পর কোনোমতে হেঁটে চান্দেরি স্টেশনে আসেন। সেখানকার বাসিন্দাদের ঘটনার কথা জানালে তারাই মা-‌মেয়েকে স্থানীয় লালা লাজপত রায় হাসপাতালে পাঠান। শারীরিকভাবে ঝুঁকিমুক্ত হলেও ঘটনার আতঙ্ক কাটিয়ে উঠতে পারেননি মা ও মেয়ে।


নির্যাতিতাদের পক্ষে রবিবার মামলা দায়ের করেছে কানপুর রেল পুলিশ।


বিবার্তা/শাহনেওয়াজ

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com