ক্ষুরা রোগের কার্যকর টিকা আবিষ্কার বাংলাদেশে
প্রকাশ : ১৭ অক্টোবর ২০১৮, ১৩:৪২
ক্ষুরা রোগের কার্যকর টিকা আবিষ্কার বাংলাদেশে
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

বাংলাদেশে একদল গবেষক গবাদি পশুর জন্য সবচাইতে ভয়াবহ সংক্রামক খুরা রোগের টিকা আবিষ্কার করেছেন।


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মো. আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্ব ১৭ সদস্যের একটি গবেষক দল ছয় বছরের বেশি সময় নিয়ে এই টিকা আবিষ্কার করেন।


এই টিকার পেটেন্ট পেতে গত ১ অক্টোবর বাংলাদেশের পেটেন্টস, ডিজাইনস ও ট্রেডমার্কস অধিদফতরে আবেদন করা হয়েছে এবং ভারতে আবেদন দাখিলের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ মঙ্গলবার ঢাকায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।


ক্ষুরা রোগ গবাদি পশুর একটি অন্যতম প্রধান সংক্রামক রোগ, যাতে গরু, মহিষ, ছাগল, ভেড়া, শুকরসহ অন্যান্য প্রাণী আক্রান্ত হয়ে থাকে। প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের ২০১৭ সালের হিসেব অনুযায়ী, বাংলাদেশে ক্ষুরা রোগের প্রতি সংবেদনশীল গৃহপালিত প্রাণীর সংখ্যা প্রায় ৫ কোটি ৫১ লাখ।


আনোয়ার হোসেন বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, এই টিকা যে প্রক্রিয়ায় আমরা আবিষ্কার করেছি সেটাই ইউনিক। এর আগেও বাংলাদেশে টিকা তৈরি করা হয়েছে কিন্তু সেটা গবাদি পশুর এই রোগ সারাতে কাজ করে না। আর সেজন্যেই নতুন টিকা তৈরির উদ্যোগ নেয়া হয় বলে তিনি দাবি করেন।


বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এই টিকা বিদেশ থেকে আমদানি করা হয়। এই রোগ হলে পশুর শুকিয়ে যায়, পর্যাপ্ত দুধ হয় না এবং মুখ থেকে লালা পরতে পারে। গবাদি পশুর বাচ্চা যদি এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয় তাহলে সাধারণত মারা যায়।



অধ্যাপক আনোয়ার বলেন, কোন কোন ভাইরাসের কারণে এই রোগ হয়, তার প্রতিটি ভাইরাস তারা চিহ্নিত করেছেন। এমনকি প্রতিটির জীবনবৃত্তান্ত তারা বের করেছেন। এরপরেই এর প্রতিকার হিসেবে তারা এই ভ্যাকসিন বা টিকার আবিষ্কার করেছেন।


তিনি বলেন, এই টিকা খামারিদের কাছে সহজলভ্য হবে। এখন যে দামে তারা কিনছেন তার চেয়ে অন্তত ৩০% থেকে ৪০% কম দামে তারা পাবেন এবং পরবর্তীতে এর দাম আরো কমবে। তবে বাজারজাতকরণ বা খামারিদের কাছে এই টিকা পৌঁছাতে এখনো দেড় বছর সময় লাগবে।


তিনি আরো বলেন, আমরা আন্তর্জাতিক মানের ভ্যাকসিন তৈরি করার জন্য যেসব পদক্ষেপ অনুসরণ করতে হয় তার সবগুলো অনুসরণ করে এই ভ্যাকসিন আবিষ্কার করেছি।


বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের উচ্চ শিক্ষা মানোন্নয়ন প্রকল্পের (হেকেপ) আওতায় এই টিকা উদ্ভাবনে গবেষণা হয়। এজন্য ল্যাব স্থাপনসহ আনুষঙ্গিক ব্যয় মেটাতে অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগকে দুটি উপ-প্রকল্পের আওতায় হেকেপ ১০ কোটি ৪৫ লাখ টাকা দেয়।


বিবার্তা/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com