আমাদের পৃথিবী : ১০ বছর পর
প্রকাশ : ২০ জুলাই ২০১৮, ১৭:২০
আমাদের পৃথিবী : ১০ বছর পর
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

কোডাক কম্পানিকে মনে আছে? ১৯৯৮ সালে এ কম্পানিতে প্রায় ১,৭০,০০০ কর্মচারী কাজ করতেন এবং বিশ্বের প্রায় ৮৫% ছবিই কোডাক ক্যামেরায় তোলা হতো। গত কয়েক বছরে মোবাইল ক্যামেরার বাড়বাড়ন্ত হওয়ায় এমন অবস্থা হয় যে, এক পর্যায়ে কম্পানিটাই উঠে যায়।


একই সময়ে আরো কতগুলো বিখ্যাত কম্পানি তাদের ঝাঁপ পাকাপাকিভাবে বন্ধ করতে বাধ্য হয়। যেমন, HMT (ঘড়ি), BAJAJ (স্কুটার), DYANORA (TV) MURPHY (radio) NOKIA (Mobile) RAJDOOT (bike) AMBASSADOR (গাড়ি) প্রভৃতি।


এ কম্পানিগুলোর কোনোটিরই পণ্যের কোয়ালিটি খারাপ ছিল না। তবুও কম্পানিগুলো উঠে গেল কেন? উঠে গেলো কারণ, এরা সময়ের সাথে সাথে নিজেদের বদলাতে পারেনি।


এখনকার সময়ে দাঁড়িয়ে আপনি হয়তো ভাবতেও পারছেন না যে সামনের ১০ বছরে দুনিয়া কতটা পাল্টে যেতে পারে! এমনও সম্ভব যে, আজকের ৭০%-৯০% চাকরিই সামনের ১০ বছরে বিলুপ্ত হয়ে যাবে। কেননা, আমরা ধীরে ধীরে ঢুকে পড়েছি ‘চতুর্থ শিল্প বিপ্লব’-এর যুগে।


আজকের বিখ্যাত কম্পানিগুলোর দিকে তাকান-


ভারতে অনেক জনপ্রিয় উবার আসলে কেবল একটি অ্যাপসের নাম। না, এদের নিজস্ব কোনো গাড়ি নেই। তবু আজ বিশ্বের বৃহত্তম ট্যাক্সি-ভাড়ার কম্পানি হলো উবার।


Airbnb আজকে দুনিয়ার সবচেয়ে বড় হোটেল কম্পানি। মজার ব্যাপার হলো, পৃথিবীর একটি হোটেলও তাদের মালিকানায় নেই।


একইভাবে Paytm, ওলা ক্যাব, Oyo rooms ইত্যাদি অসংখ্য কম্পানির উদাহরণ দেয়া যেতে পারে।


আজকে আমেরিকায় নতুন উকিলদের কোনো কাজ নেই। কারণ, IBM Watson নামে একটি আইনি সফটওয়্যার যে কোনো নতুন উকিলের থেকে অনেক ভালো ওকালতি করতে পারে।


এইভাবে পরের ১০ বছরে প্রায় ৯০% আমেরিকানের চাকরি থাকবে না। বেঁচে থাকবে খালি বাকি ১০%, যারা কিনা বিশেষজ্ঞ।


নতুন ডাক্তারদেরও চাকরি যেতে বসেছে। Watson নামের সফটওয়্যার মানুষের চাইতেও চার গুণ বেশি নিখুঁতভাবে ক্যানসার ও অন্যান্য রোগ শনাক্ত করতে পারে। ২০৩০ সালের মধ্যে কম্পিউটারের বুদ্ধি মানুষের বুদ্ধিকে ছাড়িয়ে যাবে।


২০১৯ সালের মধ্যেই রাস্তায় নামতে চলেছে চালকবিহীন গাড়ি। ২০২০ সালের মধ্যেই কেবল এই একটি বিষয়ই বদলে দিতে পারে দুনিয়ার চালচিত্র। এর ফলে সামনের ১০ বছরে আজকের ৯০% গাড়িকেই আর রাস্তায় দেখা যাবে না। বেঁচে থাকা গাড়িগুলো হয় ইলেক্ট্রিকে চলবে অথবা হাইব্রিড গাড়ি হবে। রাস্তাগুলো ক্রমশ ফাঁকা হতে থাকবে। পেট্রোলের ব্যবহার কমবে এবং পেট্রোল উৎপাদনকারী আরব দেশগুলো ক্রমশ দেউলিয়া হয়ে আসবে।


তখন কারো গাড়ি লাগলে উবারের মতো কোনো অ্যাপসের কাছেই গাড়ি চাইতে হবে। আর চাইবার কিছুক্ষণের মধ্যেই কোনো চালককে ছাড়াই একটা গাড়ি আপনার দরজার সামনে এসে দাঁড়াবে। আপনি যদি অনেকের সাথে ওই একই গাড়িতে যাত্রা করেন, তাহলে মাথাপিছু গাড়িভাড়া বাইকের থেকেও কম হবে।


গাড়িগুলো চালকবিহীন হবার ফলে ৯৯% দুর্ঘটনা কমে যাবে। ফলে গাড়ি-বীমা করানো বন্ধ হবে এবং গাড়ি-বীমার কম্পানিগুলো সব উঠে যাবে।


গাড়ি চালানোর মতো কাজগুলো আর পৃথিবীতে থাকবে না। ৯০% গাড়িই যখন রাস্তা থেকে উধাও হয়ে যাবে, তখন ট্রাফিক পুলিশ এবং পার্কিং-কর্মীদেরও কোনো প্রয়োজন থাকবে না।


ভেবে দেখুন, আজ থেকে ১০-১৫ বছর আগেও রাস্তার মোড়ে মোড়ে এসটিডি বুথ ছিল। দেশে মোবাইল বিপ্লব আসার পর সবক’টা এসটিডি বুথই কিন্তু পাততাড়ি গুটাতে বাধ্য হলো। যেগুলো টিকে রইল, তারা মোবাইল রিচার্জের দোকান হয়ে গেল।


এরপর মোবাইল রিচার্জেও অনলাইন বিপ্লব এল। ঘরে বসেই অনলাইনে লোকে মোবাইল রিচার্জ করা শুরু করল। এই রিচার্জের দোকানগুলোকে তখন আবার বদল আনতে হল। এরা এখন কেবল মোবাইল ফোন কেনা-বেচা ও সারাইয়ের দোকান হয়ে দাঁড়িয়েছে। তবে সেটাও বদলাবে খুব শিগগিরই। Amazon, Flipkart থেকে সরাসরি মোবাইল ফোন বিক্রি বাড়ছে।


টাকার সংজ্ঞাও পাল্টাচ্ছে। একসময়ের নগদ টাকা আজকের যুগে ‘প্লাস্টিক টাকায়’ পরিণত হয়েছে। ক্রেডিট কার্ড, ডেবিট কার্ডের যুগ ছিল ক’দিন আগেও। এখন সেটাও বদলে গিয়ে হয়ে যাচ্ছে মোবাইল ওয়ালেট-এর যুগ। মোবাইল ব্যাংকিং-এর রমরমা বাজার, মোবাইলের এক টিপে টাকা এপার-ওপার।


সাদী খানের ফেসবুক থেকে


বিবার্তা/হুমায়ুন/সোহান

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com