সাকিবের নিষেধাজ্ঞা, জাতির আশা ও স্বপ্নের বিপর্যয়
প্রকাশ : ৩০ অক্টোবর ২০১৯, ২১:৪৪
সাকিবের নিষেধাজ্ঞা, জাতির আশা ও স্বপ্নের বিপর্যয়
বিবার্তা ডেস্ক
প্রিন্ট অ-অ+

প্রিয় সাকিব,


তোমার জন্য আমার হৃদয় নি:সৃত গভীর ভালবাসা, স্নেহ ও অভিবাদন। ক্রিকেটের যুবরাজ সৌরভ গাঙ্গুলি বলেছিলেন,' একজন সাকিবের মত ক্রিকেটার যুগে যুগে জন্মায় না। আবার কবে জন্মাবে আমরা তা জানি না। আমি বাঙালি হয়ে যা পারিনি সাকিব আল হাসান তা পেরেছেন। এটা আমার জন্য গৌরবের যে, তিন ক্যাটাগরিতে অর্থাৎ ওয়ানডে, টেস্ট ও টি- টোয়েন্টিতে সাকিব একজন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।'


সৌরভ গাঙ্গুলি আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন যে, তোমার প্রতি যে শাস্তির খড়্গ আইসিসি নামিয়েছে তা পূনর্বিবেচনা করতে পারেন। রাহুল দ্রাবিড়ের মত বিখ্যাত ক্রিকেটারও একই আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।


প্রিয় সাকিব আল হাসান


আমার সন্তানের জীবনে কোনো বড় বিপর্যয় এলে আমার হৃদয় যে বেদনা অনুভব করত তোমার এই বিপর্যয় তার চেয়ে বেশি বেদনাই হয়তো দিয়েছে। তোমার বিপর্যয় এটা কেবল কোনো পারিবারিক বা ব্যক্তির বিপর্যয় নয়, এটা গোটা বাঙালি জাতির আশা ও স্বপ্নের বিপর্যয়। ক্রিকেট নিয়ে আমাদের যে গৌরব ও অহঙ্কারের উচ্চতা সেখানে তোমার অনন্য সাধারণ অবদান ইতিহাসের সোনার হরফে লেখা হয়ে আছে।


বিশ্ব ক্রিকেট দুনিয়ায় তুমি একজন সেরা অলরাউন্ডারের খ্যাতি অর্জন করে ফেলেছো। কিন্তু খেলার মাঠে টাইগারদের হয়ে তুমি লড়াইয়ে নামতে না পারলে আমাদের দর্শক গ্যালারি আনন্দে উদ্বেলিত হয়ে উঠবে না। তুমুল উত্তেজনা নিয়ে গোটা বাংলাদেশ শ্বাসরুদ্ধকর জয়ের আশা আর দেখবে বলে মনে হয় না।


প্রিয় সাকিব আল হাসান


তুমি তো বাংলাদেশের গর্ব। বিশ্ব ক্রিকেটের অহঙ্কার। তোমার এ বিপর্যয় গোটা বাংলাদেশের মানুষের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ ঘটিয়েছে। বিষাদ ছুয়েছে আজ, মন ভাল নেই, মন ভাল নেই ক্রিকেট পাগল বাংলাদেশের মানুষের। সকল মানুষের বুক জুড়ে আজ তোমার জন্য ক্রন্দন। তোমার জন্য হৃদয় উজাড় করা আশির্বাদ। এমন ভালবাসা অর্জন করার নেপথ্যে গভীর দেশপ্রেম ও ক্রিকেটপ্রেম নিয়ে একজন বিশ্ব নন্দিত অলরাউন্ডার হিসেবে তোমার মেধা যোগ্যতা দক্ষতা এবং খেলোয়াড়ি মুন্সিয়ানার কৃতিত্ব । বিশ্ব ক্রিকেটে তুমি আজ এক কিংবদন্তী। এই নক্ষত্রের পতন সহজে হবার নয়।


প্রিয় সাকিব


বিসিবির অনুমতি ছাড়া বহু আগে তুমি যখন ওয়েস্ট ইন্ডিজ খেলতে গিয়েছিলে তখন তোমাকে ছয় মাসের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। সেদিন তোমার জন্য আমি লিখেছিলাম। সেদিনও তোমার পাশে সবাই দাঁড়িয়েছিল। পরবর্তীতে সেই নিষেধাজ্ঞা কর্তৃপক্ষ শিথিল করে তিন মাসে এনেছিল। তারপর তুমি ক্রিকেট দুনিয়ায় বাংলাদেশের মাথা উচু করেই দিয়ে গেছো, তোমার পারফরমেন্স দিয়ে। সর্বশেষ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে তুমি একাই লড়েছ। আত্মবিস্মৃত জাতি আমরা তোমার এই অবদান তবু কোনোদিন ভুলে যেতে পারব না।


প্রিয় অনুজ সাকিব,


দু’বছর আগে দিলীপ আগরওয়াল নামে এক জুয়ারি তোমাকে ঘুষের প্রস্তাব দিয়েছিল। তুমি একজন সৎ ক্রিকেটার হিসেবে সেটি গ্রহণ করোনি। তাই তুমি অপরাধ করোনি। কিন্তু আইসিসির আইন অনুযায়ী তাদের অবহিত না করায় দীর্ঘ দু’বছর পর যখন ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ক্রিকেটযুদ্ধ হবে তখন তারা তদন্ত করে তোমাকে দু’বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে দেয়। তোমার ভুল স্বীকার করার কারণে সেটি এক বছরে নামিয়ে আনে। কতো নারী-পুরুষ জীবনে কত কুপ্রস্তাব পেলেও আইনের আশ্রয় নেন না। কাউকে বলেনও না।


আমি জানিনা অব দ্য রেকর্ডে সেই জুয়াড়ির প্রস্তাব তুমি কারো সাথে সরল মনে আলাপ করেছিলে কিনা, যা সময়মত তোমার বিরুদ্ধে ব্যবহার করা হয়েছে। আইসিসির এই শাস্তি তোমাকে কতটা ব্যথিত, বিপর্যস্ত করেছে জানিনা, তবে গোটা বাংলাদেশের মানুষকে ব্যথিত করেছে। ক্রিকেট পাগল বাংলাদেশের জনগণের হৃদয় ভেঙে দিয়েছে। শাস্তির দণ্ড ঘোষণার আগে বিসিবি কর্তারা জানতেন না এমনটি আমি বিশ্বাস করি না। এর নেপথ্যে কারো ষড়যন্ত্রের হাত রয়েছে কিনা সেটিও আমি জানিনা।


তবে ছোট্ট ভুলে তোমাকে আইনের বিশাল শাস্তি ভোগ করতে হলো।তোমার আইন অনুসারে আইসিসিকে জানানোর প্রয়োজন ছিলো।জানালে কি জুয়ারিদের পক্ষ থেকে প্রাণনাশের হুমকি ছিলো?সেটিও জানিনা।


আমাদের স্নেহের সাকিব


তোমরা তোমাদের ক্রিকেটারদের দাবি-দাওয়া নিয়ে যে আন্দোলন করেছিলে সেই দাবির সঙ্গে আমি সম্পুর্ণরুপে একমত। কিন্তু তোমাদের হঠাৎ আন্দোলনে যাওয়া অনভিজ্ঞতার হঠকারিতা মনে হয়েছে। যেখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তোমাদের জন্য মাতৃস্নেহ নিয়ে দোয়া করেন, মাঠে থেকে আবেগে দাঁড়িয়ে তালি দেন, মায়ের মমতায়ে বুকে টেনে নেন সেখানে তার কাছে গিয়ে চাইলে এর চেয়ে বেশি তোমরা পেতে।


বাংলাদেশের মানুষের জন্য তোমরা গোটা বিশ্বজুড়ে সম্মান বয়ে এনেছো। এই জাতির জন্য তোমরা বীরত্বের গৌরব এনেছো বারবার। তোমাদের অসাধারণ ক্রিকেট লড়াইয়ের নান্দনিক দৃশ্য যে শিল্পের উচ্চতায় নিয়ে গেছো সেখানে নানা রাজনৈতিক সমীকরণে বিভক্ত জাতিকে এক মোহনায় মিলিত করতে পেরেছো। গোটা জাতির ঐক্যের প্রতীক তোমরা।


অন্তর জয় করা সাকিব আমার


ক্রিকেট ময়দানে তোমার বিকল্প তুমি নিজেই। আইসিসি যদি তোমাকে ক্ষমা করে নাও দেয়, তুমি মানসিকভাবে তোমার আত্মবিশ্বাসের জায়গা থেকে সরে দাঁড়াবে না। তোমার মনোবল তুমি হারাবে না। এই আঘাত ও ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে আরো তেজস্বী দুর্দান্ত ও দুর্ধর্ষ খেলোয়াড় হিসেবে এক বছর পর ক্রিকেট দুনিয়াকে কাপিয়ে দিবে। আঘাত ও বিপর্যয় থেকে কখনো হতাশ হতে হয় না। দ্বিগুণ তেজ নিয়ে অপ্রতিরোধ্য হয়ে ঘুরে দাঁড়াতে হয়।


সাকিব


আমার বিশ্বাস তুমি সেটিই করবে। তুমি পারবে। তোমার মত নক্ষত্রের আগামীতে আরো বেশি উজ্বলতা ছড়ানো ছাড়া পতনের সুযোগ নেই। আগামী দিনে তুমি দেশকে এবং ক্রিকেট দুনিয়াকে আরো বেশি উজাড় করে দিয়ে নতুন ইতিহাস গড়বে। এটাই আমাদের তোমার কাছে প্রত্যাশা। এটাই তোমার কাছে আমাদের দোয়া। তোমার পাশে আমাদের ভালবাসার সকল শক্তি নিয়ে যেমন অতীতে ছিলাম, তেমনি এখনও আছি, ভবিষ্যতেও থাকব।


সাকিব আল হাসানের নতুন ইতিহাস গড়ার মুগ্ধকর দৃশ্য উপভোগ করার জন্য ক্রিকেট বিশ্ব অপেক্ষা করবে। বীরের পরাজয় হয় না। ইর্ষাপরায়ণ ও ষড়যন্ত্রকারিরা অভিশপ্ত হয়। একজন সাকিব ভক্ত হিসেবে, একজন বাংলাদেশের সন্তান হিসেবে একজন ক্রিকেটের দর্শক হিসেবে তোমার কাছে এটা আমার সকল আবেগ, ভালবাসা ও স্বপ্ন নিয়ে আত্মবিশ্বাসের ওপর লেখা চিঠি। মনে রাখতে হবে, যত বড় তারকা তত বেশি বিনয়, তত বেশি সতর্ক হতে হবে। তোমার বিজয় অনিবার্য, আমরাও একদিন বিশ্বকাপ জিতবো।


পীর হাবিবুর রহমানের ফেসবুক থেকে পাওয়া


বিবার্তা/জাই

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanews24@gmail.com ​, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com