যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের বাণিজ্য যুদ্ধে উদ্বিগ্ন বিশ্বব্যাংক-আইএমএফ
প্রকাশ : ১১ অক্টোবর ২০১৮, ১৩:৩৮
যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের বাণিজ্য যুদ্ধে উদ্বিগ্ন বিশ্বব্যাংক-আইএমএফ
আবুল কাশেম, বালি (ইন্দোনেশিয়া) থেকে
প্রিন্ট অ-অ+

বিশ্বের সবচেয়ে বড় অর্থনীতির দেশ যুক্তরাষ্ট্রের সাথে দ্রুত বর্ধনশীল দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতি চীনের চলমান বাণিজ্য যুদ্ধ সহসাবন্ধ না হলে বিশ্ব অর্থনীতি বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখিন হবে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বিশ্বের আর্থিক খাতের বড় দুই মোড়ল আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল ( আইএমএফ) ও বিশ্বব্যাংক।


বৃহস্পতিবার ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপের নুসা দুয়ায় ওয়েস্টিন-বালি ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ দুই সংস্থার শীর্ষ নির্বাহীরা উদ্বেগের কথা জানান।


আইএমএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টিনা ল্যাগার্ড বলেন, বিশ্ব অর্থনীতির বড় দুই দেশ যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে অনাকাঙ্খিত বাণিজ্য যুদ্ধ শুরু হয়েছে। এক দেশ আরেক দেশের পণ্য প্রবেশের ক্ষেত্রে শুল্ক বাড়নো নিয়ে এই যুদ্ধ শুরু করেছে। এ যু্দ্ধ চলতে থাকলে বিশ্ব অর্থনীতি দীর্ঘমেয়াদে বড় ক্ষতির মুখে পড়বে।


তিনি বলেন, যার মাশুল দিতে হতে পারে ছোট-বড় অনেক দেশকে। বিশ্ব অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি যদি অন্তর্ভূক্তিমূলক এবং টেকসই না হয় তাহলে তার সুফল বিশ্ববাসী পাবে না।


তিনি আরো বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে ব্যবসায় নীতি নিয়ে উত্তেজনা ও আমদানি শুল্ক আরোপের কারণে বাণিজ্য ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধি বাধাগ্রস্ত হবে। নিজেদের স্বার্থ রক্ষার জন্য এই দুই পরাশক্তি একটি খারাপ উদাহরণ তৈরি করছে। আর সেটা হবে বিশ্ব অর্থনীতির জন্য বড় ধাক্কা।


ল্যাগার্ড বলেন, বিশ্ব অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি যদি অন্তর্ভূক্তিমূলক এবং টেকসই না হয় তাহলে তার সুফল বিশ্ববাসী পাবে না। বিশ্বে বেকারত্বের হার কমছে। প্রবৃদ্ধিও ভালো। চলমান বাণিজ্য যুদ্ধ দূর হলে এই প্রবৃদ্ধি আরো ভালো হবে।


বিশ্বব্যাংক প্রেসিডেন্ট জিম ইয়ং কিম বলেন, বর্তমানে বিশ্ব অর্থনীতি বেশ ভালো এবং নিরাপদ অবস্থানে রয়েছে। বৈশিক প্রবৃদ্ধির হার এখন ৩ দশমিক ৭ শতাংশ। তবে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের চলমান এই বাণিজ্য যুদ্ধের মতো কিছু বাধার কারণে বিশ্ব অর্থীতিতে ঝুঁকি দেখা দিয়েছে।


কিমের সংবাদ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় বৃহস্পতিবারের কার্যক্রম। এরপর সংবাদ সম্মেলনে আসেন ল্যাগার্ড।


সংবাদ সম্মেলনে বিশ্বব্যাংক প্রধান বলেন, বিশ্ব অর্থনীতি ভালোই প্রবৃদ্ধি অর্জন করছে। কিন্তু প্রবৃদ্ধির সুফল যাতে পৃথিবীর সব মানুষ পায় সেটা নিশ্চিত করতে হবে এবং এই বিষয়টিকেই বিশ্বনেতাদের সবচেয়ে বেশি জোর দিতে হবে।


বুধবার থেকে সম্মেলন শুরু হলেও এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হবে ১২ অক্টোবর। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জিম ইয়ং কিম, ক্রিস্টিনা ল্যাগার্ডসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অর্থমন্ত্রীরা বক্তব্য রাখবেন। বিশ্বের ১৮৯টি দেশের অর্থমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর এবং সরকারি-বেসরকারি খাতের প্রতিনিধিদের অংশগ্রহণে শুরু হওয়া এ সম্মেলন শেষ হবে ১৪ অক্টোবর।


এবারের সম্মেলনে মোট ১৫ হাজার প্রতিনিধি অংশ নিচ্ছেন। এরমধ্যে গণমাধ্যমের প্রতিনিধি এক হাজারের বেশি। সম্মেলনে অংশ নিতে আসা বিদেশিদের পদচারণায় মুখরিত এখন বালি দ্বীপ। কড়া নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে ইন্দানেশিয়ার ‘সাগড় কন্যা’ নামে পরিচিত এই পর্যটন দ্বীপকে।


বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের নেতৃত্বে ২৭ সদস্যের প্রতিনিদিল এখন বালিতে অবস্থান করছেন। সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে বাংলাদেশের অর্থমন্ত্রী ইন্দোনেশিয়ার অর্থমন্ত্রী মলিয়ানি ইন্দ্রাবতির (Mulyani Indrawati) সঙ্গে বৈঠক করেন।


বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, ওয়াশিংটনে বিশ্বব্যাংকের বিকল্প নির্বাহী মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, অর্থসচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব কাজী শফিকুল আযম এই প্রতিনিধি দলে রয়েছেন।


বিশ্বব্যাংক-আইএমএফের সবচেয়ে বড় এই সম্মেলনে এ দুই উন্নয়ন সংস্থার সদস্য দেশের অর্থমন্ত্রী এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর ছাড়াও বেসরকারি খাতের নির্বাহী এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা অংশ নেবেন।


প্রতি বছর অক্টোবর মাসের প্রথম ভাগে বিশ্ব ব্যাংক-আইএমএফের এই সভা হয়। পর পর দুটি বৈঠক যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে সংস্থা দুটির সদরদফতরে হওয়ার পর তৃতীয় সভাটি হয় যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে সদস্যভূক্ত অন্য কোনো দেশে।


বিবার্তা/কাশেম/জাকিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com