জাবিতে অপরিকল্পিত হল নির্মাণ, শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন
প্রকাশ : ১৫ জুলাই ২০১৯, ২০:১৪
জাবিতে অপরিকল্পিত হল নির্মাণ, শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন
জাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রাকৃতিক পরিবেশ ধ্বংস করে ও খেলার মাঠে অপরিকল্পিত ভবন নির্মাণ বন্ধের দাবিতে মৌন মিছিল ও মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীরা।


সোমবার দুপুর ১২টায় বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হল থেকে মৌন মিছিল বের হয়। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলা, নতুন প্রশাসনিক ভবন সংলগ্ন রাস্তা হয়ে পুরাতন প্রশাসনিক ভবনে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে মানববন্ধন করে শিক্ষার্থীরা।


মানববন্ধনে ইংরেজি বিভাগের ৪২তম ব্যাচের শিক্ষার্থী অলিউর রহমান সান বলেন, ধর তক্তা মার পেরেক নীতিতে প্রশাসন অপরিকল্পিতভাবে প্রাকৃতিক পরিবেশ ধ্বংস করে ও জীব বৈচিত্র নষ্ট করে হল নির্মাণ করছে। সেখানে সহস্রাধিক গাছ কেটে হল নির্মাণের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। যার ফলে পরিবেশ হুমকির সম্মুখীন হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের যেকোনো স্থানে অপরিকল্পিত ভবন নির্মাণ বন্ধ করতে হবে।


বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী ওদুদ বলেন, ভিসি ম্যাম বলেছেন জাহাঙ্গীরনগর হবে একটি নগর। যা সম্পূর্ণ প্রকৃতি ও পরিবেশবিরোধী বক্তব্য। আমরা এর প্রতি ধিক্কার জানাই।


দর্শন বিভাগের ৪৬তম আবর্তনের শিক্ষার্থী মাহফুজুর রহমান বলেন, অপরিকল্পিতভাবে দশতলা হল নির্মাণ হলে রবীন্দ্রনাথ হলে কোনো প্রকার আলো বাতাস ঢুকবে না। এতে আবাসিক শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যগত নানা সমস্যার মুখোমুখি হবে। রবীন্দ্রনাথ, রফিক-জব্বার ও ভাসানী হলের শিক্ষার্থীদের খেলার মাঠ না থাকায় বিনোদনের অভাবে শিক্ষার্থীরা মাদক সেবনে জড়িয়ে পড়ছে।


ম্যানেজমেন্ট বিভাগের শিক্ষার্থী আরিফুল ফয়সাল শাওনের পরিচালনায় ইংরেজি বিভাগের সাজ্জাদ আহমেদ, বাংলা বিভাগের ওয়াদুদ, আইন ও বিচার বিভাগের জুবায়ের, গণিত বিভাগের মুজিবুর রহমান শিশির প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।


এসময় শিক্ষার্থীরা বলেন, উন্নয়নের নামে নতুল হল দিয়ে আবার প্রকৃতি ধ্বংসের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। পাঁচ তলা বিশিষ্ট রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের আশেপাশে অপরিকল্পিতভাবে যে তিনটি ১০ তলা হল নির্মিত যাচ্ছে এতে কোনো ধরনের খেলার মাঠ নেই, আলো বাতাসের পর্যাপ্ত সুবিধা নেই, বস্তির মতো হল নির্মাণের ফলে শিক্ষার্থীদের মাদক সেবন বৃদ্ধি পাচ্ছে।


উল্লেখ্য, অধিকতর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় জাবিতে ১০তলা বিশিষ্ট ছয়টি আবাসিক হল নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়। গত ৩০ জুন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম পাঁচটি হলের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। ছাত্রদের তিনটি হল বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের উত্তর, দক্ষিণ ও পূর্ব পার্শ্বে নির্মাণের জন্য ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের দক্ষিণ (টারজান পয়েন্ট) পাশে ছাত্রীদের দুটি হল নির্মাণের লক্ষ্যে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে।


বিবার্তা/কামাল/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com