কোটা ইস্যুতে ঢাবিতে পাল্টাপাল্টি মানববন্ধন
প্রকাশ : ১১ জুলাই ২০১৮, ১৯:২৮
কোটা ইস্যুতে ঢাবিতে পাল্টাপাল্টি মানববন্ধন
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ওপর হামলার ঘটনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ক্যাম্পাসে পাল্টাপাল্টি মানববন্ধন করেছেন শিক্ষার্থীরা।


বুধবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের মোকাররম ভবনের সামনে মানববন্ধন করেন বিজ্ঞান অনুষদের শিক্ষার্থীরা। এই মানববন্ধন থেকে শিক্ষার্থীদের কোনো ধরণের গুজবে কান না দেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।


মানববন্ধনে আগত শিক্ষার্থীরা বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা নিজেরাই নিজেদের মধ্যে মারামারি করেছে। তারা এই আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে নেয়ার জন্য গুজব ছড়িয়ে বেড়াচ্ছে। কোটা সংস্কার আন্দোলনের নামে ক্যাম্পাসে যেন কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি না হয় সে ব্যাপারে সাধারণ শিক্ষার্থীরা সজাগ রয়েছেন।


এ মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারী আশিক ইসলাম নামে এক ছাত্রলীগ নেতা বলেন, আমি সাধারণ শিক্ষার্থী হিসেবে এ মানববন্ধনে এসেছি। কোটা সংস্কার সবাই চায়, আমরাও চাই। কিন্তু বর্তমানে যে আন্দোলন করা হচ্ছে, তারা কেউই কোটা সংস্কারের জন্য আন্দোলন করছে না। তারা গুজব ছড়িয়ে ক্যাম্পাসকে অস্থিতিশীল করতে চাইছে। আমরা সবার কাছে আহ্বান জানাই, আপনারা কেউ গুজবে কান দেবেন না।


এর আগে বেলা ১২টার দিকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের আরেকটি অংশ মানববন্ধন করে নিরাপদ ক্যাম্পাস দাবি করেছেন। একইসাথে বিভিন্ন মামলায় আটক কোটা আন্দোলনকারীদের মুক্তিরও দাবি তোলা হয়েছে।


এ মানববন্ধনে কোটা সংস্কার আন্দোলনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলায় গুরুতর আহত তরিকুল ইসলামের ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে শিক্ষার্থীরা প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন। আর এতে লিখেছেন, ‘হাতুড়ির স্থান পেরেকের ওপর, ছাত্রের ওপর নয়’।


মানববন্ধনে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের অধ্যাপক গীতি আরা নাসরিন, অধ্যাপক ফাহমিদুল হক, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তানজিম উদ্দিন খানসহ বিভিন্ন বিভাগের প্রায় পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন।


অধ্যাপক ফাহমিদুল হক বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলন অনেক দিন হলো চলছিল। এটা ছিলো ছাত্রদের আন্দোলন। আমরা এ আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে তখনি পাশে দাঁড়িয়েছি, যখন ছাত্রদের ওপর হামলা হয়েছে। আমরা সচেতনভাবে তাদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছি। আমরা দেখছি, যাদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে তাদেরকে গ্রেফতার করা হচ্ছে। তাদের রিমান্ডে নিয়ে অত্যাচার করা হচ্ছে। যারা নিপীড়ক, তারা সবাই চিহ্নিত; কিন্তু তাদের বিচারের আওতায় আনা হচ্ছে না।


সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক সামিনা লুৎফা বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলন সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অতীত ঐতিহ্য ছাত্রদের আন্দোলন করার জন্য প্রেরণা দিচ্ছে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ই আমাদের প্রতিবাদ করতে শিখিয়েছে। রাষ্ট্র ভুল করতে পারে, কিন্তু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষকরা ভুল করতে পারে না।


এদিকে কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম-আহ্বায়ক বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র মশিউরের মুক্তির দাবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে এবার অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন তার বিভাগের শিক্ষার্থীরা।


এদিন সকাল ৯টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ ভবনে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ১১ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা এই অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন। এসময় তারা মশিউরসহ কোটা আন্দোলনের নেতাদের ওপর হামলা, মামলা, গ্রেফতার ও রিমান্ডের প্রতিবাদ জানান। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের নীরব ভূমিকারও নিন্দা জানানো হয়।


সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী আকরাম হোসেন বলেন, মশিউর আমাদের সহপাঠী। তাকে অন্যায়ভাবে হল থেকে উঠিয়ে নিয়ে মারধর করা হয়। পরে পুলিশের কাছে দেয়া হয়। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দায় এড়াতে পারে না। আমরা অবিলম্বে মশিউরকে ক্লাসে ফেরত চাই।


সমাজবিজ্ঞান বিভাগের আরেক শিক্ষার্থী তিথি বলেন, আমরা মশিউরের মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত ক্লাস করব না। দুই-একজন শিক্ষক আমাদের কয়েকজনকে জোর করে ক্লাসে নেয়ার চেষ্টা করছেন।


গত ৫ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে এক মানববন্ধন থেকে মশিউরের মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করার ঘোষণা দেন তারা।


বিবার্তা/রাসেল/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com