বশেমুরবিপ্রবিতে বহিরাগতদের হামলা, আহত ২৫
প্রকাশ : ০৫ জুলাই ২০১৮, ০৯:৫৭
বশেমুরবিপ্রবিতে বহিরাগতদের হামলা, আহত ২৫
বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) বহিরাগতদের হামলায় কমপক্ষে ২৫ জন সাধারণ শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন। গুরুতর অবস্থায় ১৫ জনকে গোপালগঞ্জ শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং বাকিদের স্থানীয় চিকিৎসা দেয়া হয়।


হাসপাতালে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা হলেন সমাজবিজ্ঞান ৪র্থ বর্ষের নিউটন মজুমদার (২৩), লোকপ্রশাসন ১ম বর্ষের তুহিন (২০), মার্কেটিং ৩য় বর্ষের মুন (২২), মুরাদ (২২), পদার্থবিজ্ঞান ১ম বর্ষের আসিফ (২০), সুব্রত (২০), এআইএস ২য় বর্ষের তিতাস (২১), ম্যানেজমেন্ট মাস্টার্সের অরুপ (২৪), সমাজবিজ্ঞান ২য় বর্ষের মিহিন (২১), নাজমুল ইসলাম পাভেল (২১), নাইম হোসেন (২১), আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ৩য় বর্ষের মহসিন (২২), মিজান (২২), সিএসই ২য় বর্ষের সিহাব (২১) এবং আমিনুর।


বুধবার বিকেলে গোবরার স্থানীয় ২০ যুবক বিশ্ববিদ্যালয়ের মাঠে ফুটবল খেলে ক্যাম্পাসের লেকে অশালীনভাবে গোসল করতে নামে। লেকের পাশে বসে থাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন ছাত্রীকে এ সময় তারা বিভিন্ন কটু বাক্যে উত্যক্ত করে। পাশে থাকা কয়েকজন শিক্ষার্থী প্রতিবাদ করলে তাদের মারধর করে বহিরাগতরা পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে ঘটনাটি পুরো ক্যাম্পাসে ক্ষোভ ও উত্তেজনার সৃষ্টি করে।



এসময় ক্যাম্পাসের সাধারণ শিক্ষার্থীরা এক হয়ে প্রথমে গোপালগঞ্জ-টুংগীপাড়া সড়ক অবরোধ করে আন্দোলন চালায় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে একটি মার্কেটে আগুন ধরিয়ে দেয়।


প্রতিবাদে স্থানীয়রা ঘোষণা দিয়ে একত্রিত হয়ে দেশীয় অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর আচমকা হামলা চালায়। এতে বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ছত্রভঙ্গ হয়ে যায় এবং তারা এদিক ওদিক ছুটাছুটি করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় তারা শিক্ষার্থীদের মেরে আহত করে।


পরে স্থানীয়রা বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটের সামনে ব্যাপক ভাংচুর চালায় এবং গেটম্যানের রুমে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় তারা শিক্ষার্থীদের দুটি মোটরসাইকেলেও আগুন ধরিয়ে দেয়। আগুনে পুরো ক্যাম্পাস উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এবং বৈদ্যুতিক তারেও আগুন ধরে যায়। এ সময় খবর পেয়ে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।



অপরদিকে হাসপাতালে নেয়ার জন্য আহত শিক্ষার্থীদের বহনকারী অ্যাম্বুলেন্সেও স্থানীয়রা হামলা চালায়, এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাম্বুলেন্সটির কয়েকটি গ্লাস ভেঙ্গে যায় এবং সামনের গ্লাস ফেটে যায়। পরে পুলিশের সহায়তায় তাদের হাসপাতালে নেয়া হয়।


গোপালগঞ্জ সদর থানার ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, পরিস্থিতি এখন শান্ত। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এলাকায় এবং ক্যাম্পাসের সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।


এদিকে বৃহস্পতিবার সকাল নয়টায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা পরবর্তী কর্মসূচি গ্রহণ করবেন বলে জানা যায়।


বিবার্তা/সৈকত/জহির

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

ময়মনসিংহ রোড, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanews24@gmail.com ​, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com