কোটা আন্দোলন : তিন নেতাকে ডিবিতে নেয়ার অভিযোগ
প্রকাশ : ১৬ এপ্রিল ২০১৮, ১৬:০০
কোটা আন্দোলন : তিন নেতাকে ডিবিতে নেয়ার অভিযোগ
ঢাবি প্রতিনিধি
প্রিন্ট অ-অ+

সরকারি চাকরির কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতারা অভিযোগ করেছেন গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) তাদের তিন নেতাকে চোখ বেঁধে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে গিয়েছিলো। তবে কিছুক্ষণ পরে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়। এ ঘটনার প্রতিবাদে সোমবার বিকেলে বিক্ষোভ মিছিল করে কোটা সংস্কার দাবিতে সোচ্চার আন্দোলনকারীদের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ।


পরিষদের যুগ্ম আহবায়ক নুরুল হক নূর দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারের সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করে বলেন, আমরা ন্যায়ের পথে আন্দোলন করেছি, কিন্তু পুলিশ আমাদের তুলে নিয়ে যাচ্ছে। নানাভাবে আমাদের হত্যার হুমকি দেয়া হচ্ছে। আমরা নিরাপদ বোধ করছি না।


আন্দোলনকারীরা সোমবার বেলা ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ক্যাম্পাসে সংঘর্ষ ও উপাচর্যের বাসভবনে হামলার ঘটনায় দায়ের করা সব মামলা দুই দিনের মধ্যে প্রত্যাহার না করলে তারা আবার রাজপথে নামবেন।


ওই সংবাদ সম্মেলনের পরপরই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা থেকে পরিষদের তিন যুগ্ম আহবায়ক নূরুল হক নূর, ফারুক হাসান, মুহম্মদ রাশেদ খানকে ডিবি পুলিশ ধরে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেন আহ্বায়ক হাসান আল মামুন।


পরে গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার আব্দুল বাতেন গণমাধ্যমকে বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় বিভিন্ন ‘সহিংসতার’ ঘটনায় যেসব তথ্য উপাত্ত পুলিশ পেয়েছে, সেগুলো যাচাই বাছাই করার জন্য ওই তিনজনকে তারা ‘ডেকে নিয়ে’ গিয়েছিলেন। ভিসির বাসায় যে হামলা হয়েছিল, এই ঘটনায় যেসব ভিভিও ফুটেজ পেয়েছি সেগুলো যাচাই বাছাই করার জন্য তদন্তের প্রয়োজনে তাদের ডেকে এনেছিলাম। তারা চলেও গেছে।


ডিবি অফিস ঘুরে এসে দুপুরের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারের সামনে আবার সংবাদ সম্মেলন করে ঘটনার বর্ণনা দেন আন্দোলনের নেতারা।


সেখানে জানানো হয়, বেলা ১টা ২৫ মিনিটে ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের তিন যুগ্ম আহ্বায়ককে ঢাকা মেডিকেলের জরুরি বিভাগের সামনে থেকে ‘ধরে নিয়ে যায়’ ডিবি পুলিশ।


যুগ্ম আহবায়ক নুরুল হক নূর বলেন, আমরা মেডিকেলে ভর্তি শিক্ষার্থীদের দেখে যাওয়ার সময় জরুরি বিভাগের সামনে থেকে ৩/৪টি মোটর সাইকেল এবং দুটো কালো কাচওয়ালা মাইক্রোবাস সেখানে আসে। রিকশা থামিয়ে টানা-হেঁচড়া করে তারা আমাদের মাইক্রোবাসে তুলে ফেলে। মাইক্রোবাসে তোলার পর প্রথমে আমাদের হেলমেট পরিয়ে দেয়া হয়। গুলিস্তান এলাকায় নিয়ে ‘গামছা দিয়ে চোখ বেঁধে’ ফেলা হয়। গাড়ি থেকে নামিয়ে চোখ খোলার পর বুঝতে পারি আমরা ডিবি কার্যালয়ে আছি।


নূর বলেন, পুলিশ আমাদের বলেছে, কিছু ভিডিও ফুটেজ দেখানোর জন্য তারা আমাদের তুলে নিয়েছে। পরে তারা আমাদের কিছুই দেখায়নি। নাম জিজ্ঞেস করে, দরকার হলে পরে ডাকা হবে বলে ছেড়ে দিয়েছে।


আরো পড়ুন


ডিবি পুলিশের হয়রানির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল


মামলা প্রত্যাহারে ২ দিন সময় দিলো আন্দোলনকারীরা


বিবার্তা/রাসেল/শারমিন/কাফী

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com