সবার আগে চাই শ্রেণীকক্ষে পড়াশোনা
প্রকাশ : ০৪ জানুয়ারি ২০১৮, ২১:০৫
সবার আগে চাই শ্রেণীকক্ষে পড়াশোনা
প্রিন্ট অ-অ+

শীত এবার তীব্র কামড় বসিয়ে চলেছে রাজধানীর শরীরে। বস্তিবাসী, ফুটপাথবাসী মানুষের কথা বাদই দিলাম, যারা কোনো দিন রাস্তায় রাতযাপনের কথা কল্পনাতেই আনেননি, সেই শিক্ষক-মানুষেরা যখন রাজধানীতে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনের ফুটপাথে এই তীব্র শীত ও ঠাণ্ডা হাওয়ার মধ্যে দিবারাত্রি শুয়ে-বসে আমরণ অনশন করে চলেন, তখন দুর্ভাবনা হয় বৈকি।


তবে শুধু শিক্ষকদের নিয়ে নয়, শিক্ষার্থী এবং সমগ্র শিক্ষাব্যবস্থা নিয়েই দুর্ভাবনা করার সময় এসে গেছে বলে আমাদের মনে হচ্ছে। সেই আদ্যিকাল থেকেই বলা হয়ে আসছে ''শিক্ষাই জাতির মেরুদণ্ড''। সেই মেরুদণ্ডে ক্ষয়রোগ দেখা দিলে জাতির আর মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার ন্যূনতম সম্ভাবনাটিও কি থাকে? আমাদেরও কি আজ তা-ই হতে বসেনি?


আজ ক'বছর ধরে বিভিন্ন পাবলিক ও ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস একটা ''নিয়মিত ঘটনায়'' পরিণত হয়েছে। এবছর তা নতুন মাত্রা পেয়েছে প্রথম শ্রেণীর প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার মধ্য দিয়ে। একটা সমাজ ও তার ''মানুষ'' কতোটা অধঃপতিত ও নষ্ট হলে প্রথম শ্রেণীর প্রশ্নপত্র পর্যন্ত ফাঁস হতে পারে, কেউ কি বলতে পারেন?


জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনের ফুটপাথে তীব্র শীত ও ঠাণ্ডা হাওয়ার মধ্যে দিবারাত্রি শুয়ে-বসে অনশনকারী শিক্ষকদের প্রতি আন্তরিক শ্রদ্ধা রেখেও বিনীত প্রশ্ন রাখতে চাই, প্রশ্নপত্র ফাঁস নামের দুষ্কর্মের সঙ্গে যারা জড়িত, তারা কারা? শিক্ষক সমাজের কেউ-কেউও কি এতে জড়িত নন? জানি, প্রশ্নপত্র ফাঁসের প্রধান দায় প্রশাসনের। তাদের নিয়ে অনেক বলা ও লেখা হয়েছে, ভবিষ্যতেও হবে। আজ তাই প্রশাসনের কথা বাদ রেখে শিক্ষকদের কাছেই যেতে চাই। জানতে চাই, শিক্ষকসমাজ কি এর দায় এড়াতে পারেন?


শুধু প্রশ্নপত্র ফাঁস নয়, ক্লাসে পাঠদানে শিক্ষকদের (ব্যতিক্রম বাদে) রহস্যময় অনীহা আজ এতোই ব্যাপক যে, ক্লাস ওয়ানের শিক্ষার্থী শিশুটিকেও কোচিং থেকে কোচিংয়ে দৌড়াতে হয়। এমপিওভুক্ত শিক্ষকমণ্ডলী বলতে পারে, এর জবাব কী?


সরকার শিক্ষানীতি করতে পারে, শিক্ষকদের এমপিওভুক্ত করে তাদের বেতনের একটা বড় অংশ দিতে পারে, কিন্তু শিক্ষকরা ক্লাসে বসে কী করেন, তাও কি দেখা সরকারের পক্ষে সম্ভব? সম্ভব কি কেউ একটা স্কুল বানিয়ে, দু'চার বছর টেনেটুনে তারপর সেটিকে এমপিওভুক্ত করার দাবি জানালে বাছবিচার ছাড়াই তা মেনে নেয়া?


সরকার যেহেতু ড্রাইভিং সিটে, কাজেই নানা কারণে ও অকারণে তাকে আমরা দুষবোই। কিন্তু পাশাপাশি চাই আত্মসমালোচনা ও বিবেকের তাড়নাও। শিক্ষকদের সব রকম সুবিধা দেয়া হোক, তাতে আমাদের আপত্তির কিছু নেই, কিন্তু শ্রেণীকক্ষে পড়াশোনা হোক - সবকিছুর আগে এটা নিশ্চিত করতে হবে। এ কাজটা একান্তভাবেই সম্মানিত শিক্ষকদের; কোনোভাবেই আর কারো নয়।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com