ষষ্ঠ বর্ষে বিবার্তা : আমাদের অঙ্গীকার
প্রকাশ : ০২ আগস্ট ২০১৭, ১৪:৫৮
ষষ্ঠ বর্ষে বিবার্তা : আমাদের অঙ্গীকার
প্রিন্ট অ-অ+

ন্যায় ও সত্য প্রতিষ্ঠার নিরন্তর লড়াইয়ের জন্যই মিডিয়ার প্রকাশ। অথবা বলা যায়, গঠনমূলক সমালোচনার মাধ্যমে রাষ্ট্রব্যবস্থাপনাকে আরো গণমুখী করার প্রয়াসের জন্যই মিডিয়া।


দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকে সমুন্নত রাখা, যা কিছু মন্দ তার বিরুদ্ধে দৃঢ়তর অবস্থান সৃষ্টি করা, সামাজিক শৃংখলা বজায় রাখা, দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গঠন - এ সবই মিডিয়ার অবধারিত দায়িত্বের আওতায় আসে। গণতন্ত্রের বিকাশ সাধন ও সুস্থ বিনোদনের পরিবেশ সৃষ্টির পাশাপাশি সামাজিক বিশৃংখলা, অপরাধ ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থান নেয়া - কোনটি নয় মিডিয়ার দায়িত্ব? এসব কারণে একুশ শতকের এই দিনেও ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়া যতো তথ্যই দিক না কেন, ‘সবার আগে সব খবর’ পেতে সুযোগ পেলেই পাঠকসমাজের চোখ চলে যায় অনলাইনের দিকে। নিজেকে সমৃদ্ধ করতে মুদ্রিত গণমাধ্যমকর্মীরাও এখন অনলাইনের দ্বারস্থ হন।


কালের যাত্রায় অনেকের কাছে বিবার্তার ছয় বছরের ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা উল্লেখযোগ্য না হলেও আমাদের কাছে তা এক মাইলফলক। কোনো প্রতিকূল পরিস্থিতির কাছে মাথা নত না করে উদ্ভাবনী ও বিশ্লেষণীশক্তিকে পুঁজি করে আমরা সাহসের সাথে অগ্রসর হচ্ছি।


গণমাধ্যমের বিকাশের পথ যে কখনও সাবলীল ও সহজ নয়, তা প্রতিটা সাংবাদিকেরই জানা। প্রতি মুহূর্তে নানা কিসিমের বাধা, রাশি রাশি উটকো প্রতিবন্ধকতা। আমরা জানি, এসব কিছু উৎরাতে হয় সাহসিকতা, ধৈর্য ও বলিষ্ঠতার মাধ্যমে। বিবার্তা পরিবার বিশ্বাস করে, সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে অগ্রসর হলে অবশ্যই গন্তব্যে পৌঁছানো যায়। আর এই বাস্তবতাকে বুকে লালন করেই বিবার্তা২৪ডটকমের অবিচল পথচলা।


সবার আগে সব খবর পাঠকের দৃষ্টিতে আনাই আমাদের প্রতি মুহূর্তের চ্যালেঞ্জ। এই শেষহীন সংগ্রামে পাঠক ও শুভানুধ্যায়ীদের রায়ই হবে আমাদের পথ চলার পাথেয়। আমরা শুধু এতোটুকু বলতে পারি, আমরা এগিয়ে যাবো সম্মুখপানে। সমাজ উন্নয়নে রাখবো বলিষ্ঠ পদক্ষেপ। পাঠকরা সাথে থাকলে কোনো অপশক্তিই সমাজের মূলস্রোতের আদর্শ প্রকাশে আমাদের সতেজ অনুভূতিকে রুখতে পারবে না ইনশাআল্লাহ।


আমাদের এই ক্ষুদ্র অথচ সুস্থির প্রয়াসে যারা উৎসাহ দিয়েছেন, বিভিন্নভাবে সহযোগিতা দিয়েছেন তাদের প্রতি হাজারো কৃতজ্ঞতা ও হৃদয়নিংড়ানো শুভেচ্ছা।


আমরা জাতির মূল চেতনার সহযোদ্ধা। আমরা বিশ্বাস করি, গণমাধ্যমের ভূমিকা সব সময় ইতিবাচক হওয়া উচিত। আরো বিশ্বাস করি, নেতিবাচক, অসত্য, পক্ষপাতদুষ্ট সংবাদের আধিক্য মানুষের দৃষ্টিভঙ্গিতে নেতিবাচক প্রভাব সৃষ্টি করে।


আমরা গঠনমূলক সমালোচনাকেও সম্মান জানাই। বিশ্বাস করি, আদর্শ সমাজ, উন্নত জাতি, সমৃদ্ধ দেশ গঠনে শক্তিশালী গণমাধ্যমের বিকল্প কিছুই হতে পারে না। তাই গণমাধ্যমে মহৎ হৃদয় নিয়ে মেধাবীদের এগিয়ে আসতে হবে। কারণ, গণমাধ্যম সত্য-অসত্য যাচাই-বাছাই করার অন্যতম হাতিয়ার।

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (২য় তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com