হুজুর হুজ্জত হুবহু হুমকি
প্রকাশ : ৩০ আগস্ট ২০১৭, ০৮:০৫
হুজুর হুজ্জত হুবহু হুমকি
জিয়াউদ্দিন সাইমুম
প্রিন্ট অ-অ+

বাংলায় ‘হুজুর’ একটি সম্মানসূচক সম্বোধন। এর আভিধানিক অর্থ সম্মানিত ব্যক্তি, মনিব, প্রভু ইত্যাদি। হুজুর আরবি শব্দ। শব্দটির সঙ্গে আরবি ‘হাজির’ শব্দের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে। আরবি ভাষায় ‘হাজির’ অর্থ ‘উপস্থিত’ এবং হুজুর অর্থ ‘উপস্থিতি’। আরবি ‘হাজির’ ও বাংলা ‘হাজির’ অভিন্ন অর্থ বহন করলেও আরবি ‘হুজুর’ আর বাংলা ‘হুজুর’ অভিন্ন অর্থ বহন করে না। বাংলায় এসে আরবি ‘হুজুর’ তার মূল অর্থ সম্পূর্ণ হারিয়ে ফেলে নতুন অর্থ ধারণ করে। যার ডাকে হাজির হওয়া বাধ্যতামূলক তিনি হুজুর- এভাবে হয়তো আরবি ‘হুজুর’ বাংলায় এসে অর্থের পরিবর্তন করে নিয়েছে।


আবার আরবি হুজ্জৎ শব্দটি বাংলায় বিচারবিতর্ক, বাদানুবাদ, বাগযুদ্ধ অর্থে ব্যবহৃত হয় (কংগ্রেসের নেতারা জিন্নাহ ফান্ডে টাকা তোলা নিয়ে আজ কদিন থেকে যে রকম হুজ্জত বাঁধিয়ে দিয়েছে, হয়তো মুসলিম লীগের ছেলেরা কংগ্রেসের রাজেন্দ্রবাবুর বাড়িতে চড়াও হয়ে পড়েছে- নদী কারো নয়, সৈয়দ শামসুল হক; দেশকে নতুন করে গড়ে পিটে নিতে চেয়েছে হুজ্জত সব জ্বলন্ত জোয়ান- রৌদ্র করোটিতে, শামসুর রাহমান; (বাঙ্গালীর মেয়ে) হুজ্জুতে হারিলে কেঁদে পাড়া করে জড়- হেমচন্দ্র)। অথচ আরবিতে হুজ্জাত অর্থ দলিল প্রমাণ, ঝগড়া করার সুযোগ। যেমন কুরআনে রয়েছে: লিয়াল্লাইয়াকুনা লিন্নাসি আলাইকুম হুজ্জা- যাতে করে মানুষের জন্য তোমাদের সাথে ঝগড়া করার অবকাশ না থাকে; সূরা আল বাকারা)।


অন্যদিকে হুবহু শব্দটির মূলও আরবি। আরবি হু (সে হয়) + ফারসি ব (যথাবৎ) + আরবি হু (সে)= হুবহু। অর্থাৎ সে ঠিক তার অনুরূপ। বাংলায়ও হুবহু শব্দটি একই অর্থ ধারণ করে। বাংলায় হুবহু অর্থ অবিকল, অভিন্ন (অভিন্ন যথাযথ হুবহু লিখব- মনোজ বসু; আমারও মনে হয় না যে, আপনি শুধু ইচ্ছা করলেই আপনার মৌলিক সুর হুবহু বজায় থেকে যাবে- সংগীতচিন্তা, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর; প্রকৃতির বা স্বভাবের হুবহু নকল করা চযড়ঃড়মৎধঢ়যু হতে পারে, কিন্তু সে কি ছবি হবে?- স্বদেশ ও সাহিত্য, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়)।


অবশ্য বাংলায় হুমকি শব্দের মূল নিয়ে অভিন্ন মত নেই। বাংলা একাডেমির অভিধান মতে, হুমকি শব্দের হঠন হচ্ছে হুম (হুঙ্কার বা ধমক অর্থে) + কি অথবা হুঙ্কার এবং ধমকি (ধমক) এর মিলিত রূপ।


হুমকি শব্দের অর্থ হচ্ছে ধমকানি, ভীতি প্রদর্শন, তর্জন, গর্জন, হুঙ্কার (এ ছেলের হাতের মোয়া নয় যে খাবে হুবকি (হুমকি) দিয়ে- রামপ্রসাদ সেন; ওই শোনা যায় রেডিয়োতে বোঁচা গোঁফের হুমকি, দেশবিদেশে শহরগ্রামে গলাকাটার ধুম কী- ছড়া, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর; একবার গিয়ে উঠানে দাঁড়াবে, তোমাদের ডাকাতে-হুমকি একবার ঝাড়বে, তার পর দেখে নেবো কিসে কি হয়- ছেলেধরা, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়)।


লেখাটি লেখতের ব্লগ থেকে নেয়া


বিবার্তা/জিয়া

সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com