‘উচ্চশিক্ষার স্বপ্ন বাস্তবায়ন ও ক্যারিয়ার তৈরির প্লাটফর্ম উইংস লার্নিং সেন্টার’
প্রকাশ : ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:২৩
‘উচ্চশিক্ষার স্বপ্ন বাস্তবায়ন ও ক্যারিয়ার তৈরির প্লাটফর্ম উইংস লার্নিং সেন্টার’
উজ্জ্বল এ গমেজ
প্রিন্ট অ-অ+

ক্যারিয়ার শিক্ষা প্রতিটি মানুষের জন্য অত্যাবশ্যক। ক্যারিয়ার মানুষকে প্রতিষ্ঠিত করে, তাকে তার কর্মক্ষেত্রে অবদান রাখতে সাহায্য করে এবং তার দক্ষতা, নৈপুন্য এবং অঙ্গীকারের সর্বোচ্চ ব্যবহারের উদ্বুদ্ধ করে। ক্যারিয়ার গঠনের প্রয়োজনীয় হাতে-কলমে শিক্ষা না থাকায় আমাদের শিক্ষার্থীরা শিক্ষা পরবর্তী জীবনে কোন পেশা বেছে নেয়া উচিত অনেক সময় তা বুঝে উঠতে পারে না।


উইংস লার্নিং সেন্টার এমন একটি শীর্ষস্থানীয় শিক্ষা ও প্রশিক্ষণকেন্দ্র যেটি ২০০০ সাল থেকে মানসম্মত ইংরেজি ভাষা শিক্ষা, আইইএলটিএস, অন্যান্য প্রাতিষ্ঠানিক বিষয় এবং পেশাগত প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।


পড়ালেখার পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা যাতে জীবনের প্রকৃত শিক্ষার আলোয় আলোকিত হতে পারে সেজন্য প্রতিষ্ঠানটি সব সময় সৃজনশীল শিক্ষায় বিশেষ নজর দিচ্ছে। কৃষ্টি-সংস্কৃতিতে বেড়ে উঠতে শিক্ষার্থীদের নানান পরিকল্পনা করে থাকে উইংস লার্নিং সেন্টার।



বিশ্বের প্রযুক্তি সফল দেশের দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতির সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে উন্নয়নশীল দেশের বাণিজ্যিক সম্পর্ক দিন দিন উন্নত হচ্ছে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস থেকে শুরু করে বিলাসবহুল দ্রব্য প্রায় সব ধরণের পণ্যই এখন ওইসব দেশ থেকে আমদানি করা হচ্ছে। এর মধ্যে চীন, জাপান, আমেরিকা উল্লেখযোগ্য। বর্তমানে বাংলাদেশ ও চীন, জাপানের আমদানি-রপ্তানি সম্পর্ক দিন দিন আরও জোরদার হচ্ছে। শুধু ব্যবসা-বাণিজ্যেই নয় উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রেও এসব দেশে রয়েছে সরকারি ও বেসরকারি অনেক শিক্ষাবৃত্তি। রয়েছে পর্যটন শিল্পের অপার সম্ভাবনা। এসব সম্ভবনাগুলোকে বাস্তবে রূপদানের জন্য তাদের সাথে ব্যবসায়িক সুসম্পর্ক বজায় রাখতে এসব দেশের ভাষা, সংস্কৃতি জানা জরুরি। আর এর জন্য ভাষা শেখার বিকল্প নেই। আধুনিক বিশ্বায়নের পৃথিবীতে এগিয়ে যেতে আগ্রহীদের জন্য এই উইংস লার্নিং সেন্টার বিশেষ ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। বর্তমানে উইংস লার্নিং সেন্টারে বাংলা, ইংরেজি, চাইনিজ ও কোরিয়ান ভাষা ও সংস্কৃতি শিক্ষার জন্য উপযুক্ত কোর্স, প্রশিক্ষক ও রিসোর্সেস রয়েছে।


রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকায় অনেক প্রাইভেট স্কুল রয়েছে যাদের এক্সাম ভেন্যু নেই। ধানমন্ডির শিক্ষার্থীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে উইংস লার্নিং সেন্টারের নিজস্ব ভেন্যুতে ইতোমধ্যেই ও লেভেল এবং এ লেভেল পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উইংস লার্নিং সেন্টারের পার্টনার অর্গানাইজেশন ব্রিটিশ কাউন্সিল এক্ষেত্রে ভূমিকা রেখেছে।


শুধু ও/এ লেভেলই নয়। প্রফেশনালদের বিভিন্ন এক্সাম এর ভেন্যু হিসেবেও ইতোমধ্যে উইংস সুনাম অর্জন করেছে। এর ধারাবাহিকতায় ইতোমধ্যে উইংস লার্নিং সেন্টারে ডাক্তারদের প্রফেশনাল এম আর সি পি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।



কেন উইংস লার্নিং সেন্টার?


প্রতিষ্ঠানটিতে রয়েছে ব্রিটিশ কাউন্সিলের ও/এ লেভেল এক্সাম ভেন্যু, ওয়ার্ল্ড ক্লাস স্টুডিও ক্লাসরুম, অভিজ্ঞ ও মানসম্পন্ন শিক্ষকমণ্ডলী, সমৃদ্ধশালী রিসোর্স সেন্টার, ল্যাঙ্গুয়েজ ক্লাব, নিয়মিত মক ও ক্লাস টেস্ট সিস্টেম, অভিভাবকদের সাথে আন্তরিক যোগাযোগ ও সুসম্পর্ক রক্ষা, দুর্বল ছাত্রছাত্রীদের জন্য বিশেষ যত্ন, ছাত্রছাত্রীদের ওয়ান-টু-ওয়ান কাউন্সিলিং, নিড-বেইজড কারিকুলাম শিক্ষা ব্যবস্থা এবং ১৮ বছরের শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের অভিজ্ঞতা।


ও/এ লেভেল শিক্ষা প্রোগ্রাম/উইংস স্কুল প্রোগ্রাম


আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষা কারিকুলাম নিয়ে ২০১৮ সাল থেকে উইংস লার্নিং সেন্টারে ও লেভেলের শিক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করা হয়। এখানে বাংলা, ইংলিশ, ম্যাথমেটিকস, ফিজিকস, ক্যামেস্ট্রি, বায়োলজি, ইকোনমিকস, আইসিটি, অ্যাকাউন্টিং, বিজনেস স্টাডিজ ও বাংলাদেশ স্টাডিজ বিষয়ে শিক্ষা দেয়া হয়।


উইংস ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ সেন্টার


মানসম্পন্ন ইংরেজি শিক্ষা দেবার লক্ষ্য নিয়ে ২০০০ সালে উইংস ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ সেন্টার প্রতিষ্ঠিত হয়। ঢাকার ধানমন্ডি এলাকায়, বাড়ি নং ৫৫, সড়ক নং ৪/এ, ঢাকা -১২০৯ এর নিজস্ব ভবনে ৯ ধরনের আইইএলটিএস প্রিপারেশন কোর্স ছাড়াও পেশাজীবী এবং ছাত্রদের জন্য উইংস এর ল্যাঙ্গুয়েজ কোর্সেস রয়েছে। ব্যবসায়িক যোগাযোগের জন্য প্রয়োজনীয় ইংরেজি, সরকারি দপ্তর, ব্যাংক এবং স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের জন্য প্রয়োজনীয় ইংরেজি শেখার কোর্স রয়েছে এখানে। কোর্সগুলো ছুটির দিনসহ সুবিধাজনক সময়ে করার সুযোগ দেয়া হয়। ইংরেজি শেখার কোর্স এবং আইইএলটিএস শেখার কোর্সগুলোয় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিজ্ঞ শিক্ষকগণ ক্লাস নেন।



এই সেন্টারের যেসব সুযোগ-সুবিধা রয়েছে


ক্লাসরুমগুলো শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত, এছাড়া পুরো তিনটি ফ্লোর জুড়ে আইইএলটিএসসহ অন্যান্য পরীক্ষা গ্রহণের সুব্যবস্থা রয়েছে। আরও আছে সুপরিসর সেমিনার কক্ষ, সমৃদ্ধ লাইব্রেরি, কফি লাউঞ্জ ও নামাজের নির্দিষ্ট কক্ষ।


বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে জন্য প্রাতিষ্ঠানিকভাবেও ইংরেজি শেখার কোর্সের আয়োজন করে উইংস। উইংসের এরকম কয়েকটি গ্রাহক যেমন-অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ, অর্থ মন্ত্রণালয়, সিভিক ফাউন্ডেশান ইত্যাদি। এছাড়া বিদেশে মাইগ্রেশন বা ভর্তির চেষ্টা করছেন এমন ব্যক্তি, চিকিৎসক, প্রকৌশলী, ব্যাংকার, শিক্ষক, আইনজীবী, গবেষক, এমনকি বাংলাদেশে পড়াশোনা করছেন এমন বিদেশি ছাত্ররাও এখানে কোর্স করেন।


অন্যান্য সুবিধা


কেউ হয়তো অন্য কোনো কাজ করছেন, দিনে বেশি সময় পান না; তার জন্য কিছুটা সময় নিয়ে দীর্ঘমেয়াদি কোর্স করার ব্যবস্থা আছে। আবার কেউ হয়ত দ্রুত কোর্স শেষ করতে চান তার জন্য বেশি ক্লাসের মাধ্যমে দ্রুত কোর্স শেষ করার ব্যবস্থাও আছে। সরকারি ছুটির দিন ছাড়া সপ্তাহের প্রতিদিনই খোলা থাকে। সকল কোর্স শেষে সনদ দেয়া হয়।


কথোপকথনের মাধ্যমে ইংরেজি চর্চা করার জন্য ক্লাব রয়েছে। আইইএলটিএস শিক্ষার্থীদের এ ক্লাবের জন্য কোনো ফি দিতে হয় না।


শিক্ষার্থীদের প্রস্তুত করার জন্য মূল আইইএলটিএস টেস্টের মতই এখানে টেস্ট নেয় হয়। আইইএলটিএস বই এবং অন্যান্য কোর্স সামগ্রী ফ্রি দেয়া হয়। সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য জেনারেটর আছে। সেই সাথে রয়েছে লিফট সুবিধা।


লাইব্রেরি


উইংসের শিক্ষার্থীরা বিনামূল্যে লাইব্রেরি ব্যবহার করতে পারেন। লাইব্রেরিতে ইংরেজি দৈনিক, ম্যাগাজিন এবং জার্নাল রাখা হয়। এখানে পাঁচ হাজারের বেশি বইয়ের পাশাপাশি অডিও-ভিজ্যুয়াল মাধ্যমে ইংরেজি শেখার জন্য সিডি, ডিভিডি এবং হেডফোনসহ কম্পিউটার রয়েছে।


আইইএলটিএস প্রস্তুতির জন্য লাইব্রেরিতে সর্বশেষ আইইএলটিএস বই এবং অন্যান্য শিক্ষণ সামগ্রী রাখা হয়। লাইব্রেরিটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত।



উইংসের আইইএলটিএস প্রিপারেশন কোর্সগুলো-


আইইএলটিএস ইনটেনসিভ প্লাস, আইইএলটিএস ইনটেনসিভ, আইইএলটিএস প্রিমিয়াম, আইইএলটিএস রেগুলার ইত্যাদি।


আইইএলটিএস মক টেস্ট : শিক্ষার্থীদের মধ্যে আত্মবিশ্বাস তৈরির জন্য টেস্ট নেয়া হয়। মূল পরীক্ষার অনুরূপ পরিবেশেই এই টেস্ট নেয়া হয়। প্রতি শনিবার এই টেস্ট নেয়া হয়। এখানকার আইইএলটিএস শিক্ষার্থীদের জন্য এই টেস্ট ফ্রি। মক টেস্টের জন্য তিন ধরনের প্যাকেজ আছে। প্যাকেজগুলো হলো- সিলভার, গোল্ড ও প্লাটিনাম।


জেনারেল ইংলিশ কোর্স


ছাত্র কিংবা যেকোনো পেশাজীবীদের জন্য এই কোর্স। ইংরেজি পড়া, লেখা, বলা, শোনা, ব্যাকরণ এবং ভোকাব্যুলারি বা নতুন শব্দ শেখার প্রতি জোর দেয়া হয় এই কোর্সে। এই কোর্সটি একদিকে আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি এবং দেশে-বিদেশ কর্মক্ষেত্রে সাফল্যের সহায়ক, অন্যদিকে আইইএলটিএস প্রস্তুতিতে সহায়ক।


বিজনেস ইংলিশ অ্যান্ড কমিউনিকেশন স্কিল


যেকোনো বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের কর্মী এবং নির্বাহীদের কথা মাথায় রেখে এই কোর্সটি ডিজাইন করা হয়েছে। এছাড়া যারা শীঘ্রই পড়াশোনা শেষে কর্মজীবনে প্রবেশ করতে চলেছে তাদের জন্যও সহায়ক এই কোর্সটি।


বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানে যোগাযোগ রক্ষা করা, উপস্থাপনা, আলাপ আলোচনা চালানো, পত্রলিখন, বিপণন কার্যক্রম পরিচালনা করা ইত্যাদিতে দক্ষতা তৈরি করা হয় এই কোর্সটির মাধ্যমে।


স্পোকেন ইংলিশ কোর্স


স্পোকেন ইংলিশ কোর্স হলেও ইংরেজি পড়া, লেখা, বলা, শোনা, ব্যাকরণ এবং ভোকাব্যুলারির বা নতুন শব্দ শেখার প্রতিও জোর দেয়া হয় এই কোর্সে। যারা স্কুল-কলেজে ইংরেজি শিখেছে কিন্তু যথাযথ জ্ঞান এবং চর্চার অভাবে ইংরেজিতে পরিপূর্ণ দক্ষতা তৈরি হয়নি তাদেরকে যেকোনো পরিবেশে ইংরেজি বলায় দক্ষ করে তুলতে এই কোর্স।



প্লেসমেন্ট টেস্ট


ঠিক কোন স্তরের ইংরেজি কোর্সটি দরকার সেটি নির্ণয়ের জন্য নতুন শিক্ষার্থীদের একটি প্লেসমেন্ট টেস্ট নেয়া হয়। এই টেস্টের জন্য কোনো ফি দিতে হয় না।


উইংস লার্নিং সেন্টারের সফলতার কথা সম্পর্কে প্রতিষ্ঠানটির চিফ অপারেটিং অফিসার মি. আশিক সারোয়ার বলেন, আমাদের প্রতিষ্ঠান থেকে এ পর্যন্ত ৬০ হাজার আইইএলটিএস ক্যান্ডিডেট পরীক্ষা দিয়েছেন। তারা বেশির ভাগ এখন দেশের বাইরে রয়েছেন। এ ছাড়াও আমাদের এখানে চাইনিজ, ইংরেজি ভাষাসহ বিভিন্ন ধরণের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। আমরা সব সময় চেষ্টা করি প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার মান ধরে রাখার জন্য।


রাজধানীতে হাজারো প্রশিক্ষণকেন্দ্র রেখে শিক্ষার্থীরা কেন এই প্রাতিষ্ঠানে আসবে এমন প্রশ্নের জবাবে প্রতিষ্ঠানের সিওও বলেন, আমরা প্রশিক্ষণ দেয়ার জন্য সব কিছুতে কোয়ালিটি এনসিউর করি। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মানসম্পন্ন রিসোর্স পার্সন ও প্রশিক্ষকদের নিয়ে ক্লাসগুলো দেয়া হয়। কোর্সের কনটেন্ট, প্রোগ্রাম মডিউল সব কিছুই গুণগত মান ঠিক রেখে করা হয় এবং শিক্ষার্থীদের প্রয়োজন অনুযায়ী কন্টেন্ট ও লার্নিং ম্যাটেরিয়াল নিজেরা ডিজাইন ও ডেভেলপ করে থাকি।


প্রতিষ্ঠানটির চিফ অপারেটিং অফিসার আরও জানান, প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার বাইরে গিয়ে ছাত্রছাত্রীরা যাতে তাদের মেধাকে আরো বিকশিত করতে পারে, অন্যান্য স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের সাথে সুন্দর একটা সম্পর্ক গড়ে উঠে এবং তারা যেন বিনোদন পেতে পারে তাই প্রতি বছর আমাদের প্রতিষ্ঠানে সাধারণ জ্ঞান কুইজ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়ে থাকে। ২০১৮ সালের প্রতিযোগিতায় ধানমন্ডির ২০ টি স্কুলের প্রায় দুই হাজার শিক্ষারথী প্রাথমিক রাউন্ডে অংশ নিয়েছিলো।


২০১৭ সালের ১১ আগস্ট ব্রিটিশ কাউন্সিলের অংশীদারিত্বে আইইএলটিএস টেস্ট সেন্টার চালু করেছে উইংস লার্নিং সেন্টার। ব্রিটিশ কাউন্সিল ও উইংস লার্নিং সেন্টারের সমন্বিত অভিজ্ঞতা আইইএলটিএস প্রার্থীদের আরো উন্নত সেবাদানে সহায়ক হবে বলে প্রতিষ্ঠানটির বিশ্বাস।


সিইওও মি. আশিক সারোয়ার বলেন, ব্রিটিশ কাউন্সিলের সাথে উইংস লার্নিং সেন্টারের অংশীদারিত্বের ফলে আইইএলটিএস প্রার্থীরা এখন থেকে ধানমন্ডির উইংস লার্নিং সেন্টারে আইইএলটিএসের জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন ও বাছাই পরীক্ষা দিতে পারবেন। পাশাপাশি এ অংশীদারিত্ব ব্রিটিশ কাউন্সিল এবং ধানমন্ডি ও ওই এলাকা সংলগ্ন প্রার্থীদের স্থান সুবিধাভিত্তিক সেবা প্রদানের মাধ্যমে বিশেষ সেতুবন্ধন স্থাপন করবে। এখন থেকে ধানমন্ডির প্রার্থীরা অত্যন্ত সহজেই তাদের নিকটবর্তী আইইএলটিএস সেন্টারে গিয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য নিতে পারবেন এবং প্রয়োজনে ফি পরিশোধ করতে পারবেন, যা প্রার্থীদের সময় ও অর্থ দুটোই বাঁচাবে।


প্রতিষ্ঠানটির ভবিষ্যৎ কার্যক্রম নিয়ে তিনি জানান, এ প্রতিষ্ঠানের মূল রূপকার হলেন উইংস লার্নিং সেন্টারের মাদার অরগানাইজেশান সেবা গ্রুপ। গ্রুপ ম্যানেজিং ডিরেক্টর মি. আসিফ চৌধুরী হাতে কলমে একটি দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলার ভিশন সামনে রেখে এই প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেন এবং এখনো গ্রুপ এম ডি আসিফ চৌধুরীর নেতৃত্বে উইংস সেই লক্ষ্য বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছে।


উইংস সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে ওয়েবসাইট: www.wings.com.bd, ফেসবুক পেজ: http://www.facebook.com/WingsELC.Dhaka এই লিংকে । যোগাযোগ করা যাবে ল্যান্ডফোন: +880 2 9661173,+880 2 9660392,+880 2 8622099, মোবাইল ফোন: +88 01911229081, ফ্যাক্স: +880 2 8610038 এবং ই-মেইল: info@wings.com.bd ঠিকানায়।


বিবার্তা/উজ্জ্বল/মৌসুমী


সর্বশেষ খবর
সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদক : বাণী ইয়াসমিন হাসি

৪৬, কাজী নজরুল ইসলাম এভিনিউ

কারওয়ান বাজার (৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২১৫

ফোন : ০২-৮১৪৪৯৬০, মোবা. ০১৯৭২১৫১১১৫

Email: bbartanational@gmail.com, info@bbarta24.net

© 2016 all rights reserved to www.bbarta24.net Developed By: Orangebd.com